২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

সেশেলসকে হারাতেই এত কষ্ট ফিলিস্তিনের!

ফিলিস্তিন ১ : ০ সেশেলস
-

ফিফা র্যাংকিংয়ে সেশেলস এর অবস্থান ২০০তে। বিপরীতে ফিলিস্তিন আছে ১০৬ এ। গত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের চ্যাম্পিয়ন মধ্য প্রাচ্যের দেশটি এবার গ্রুপ ম্যাচে বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কা উভয়কেই ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিতে আসে। অন্য দিকে ভারত মাহসাগরের দ্বীপ রাষ্ট্র সেশেলস গ্রুপ পর্বে মাত্র একটি ড্র করে গোল পার্থক্যে টিকিট পায় সেমির। যাদের সবই অ্যামেচার ফুটবলার। অথচ কাল বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের প্রথম সেমিফাইনালে ময়দানী লড়াইয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন চেহারায় দুই দল। দেখে মনে হয়েছে সেশেলসই র্যাংকিং এবং শক্তিতে এগিয়ে। অবশ্য এর পরও অনভিজ্ঞতা ইতিহাস গড়তে দেয়নি আফ্রিকান দেশটিকে। হারটাও কপাল দোষে। স্রেফই ভাগ্যের সহায়তা নিয়ে কাল তাদেরকে ১-০ গোলে হারিয়ে ২৫ জানুয়ারির ফাইনালে চলে গেছে ফিলিস্তিন। ৭৯ মিনিটে তাদের লাইত খারোবের করা ক্রস কেটে গিয়ে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে জালে জড়ায়।
ম্যাচে গোলের ভালো সুযোগ সেশেলসই পেয়েছিল। সাত মিনিটে কার্ল হলের ফ্রি-কিক ক্রসবারে বাতাস দিয়ে যায়। ৪৭ মিনিটে পেরি মোনিয়ে ফিলিস্তিনের গোলরক্ষককে একা পেয়েও তাড়াহুড়া করে মারতে গিয়ে ব্যর্থ গোল করতে। ৭৭ মিনিটে ফিলিস্তিনের ইসারইল কারাগারে এক বছর জেলা খাটা সামেহ মারাবার হেড পোস্টে বাতাস দিয়ে যায়। ৪০ মিনিটে লাইত খারোবের শট সেশেলস কিপার ইয়ান আ কং রুখে দিলেও ৭৯ মিনিটে স্রেফই চেয়ে চেয়ে বলের জালে যাওয়া দেখেছেন।
ম্যাচ শেষে ফিলিস্তিনের সহকারী কোচ ফাহাদ আত্তেল জানান, গ্রুপ পর্বের ম্যাচের পর আমরা চার দিন বিশ্রাম পেয়েছিলাম। এটা আমাদের ক্ষতি করেছে। খেলোয়াড়রা হালকা ভাবে নেয় এই ম্যাচ। আমি বলবো ভাগ্যের জোরেই জিতেছি।’ সেশেলস কোচ রালফ লুইস, বলেন, আমরা সুযোগ কাজে না লাগানোর খেসারত দিয়েছি।


আরো সংবাদ