২৭ অক্টোবর ২০২০

প্রতিদ্বন্দ্বিতা আশা করছেন কোহলি\

মুস্তাফিজে সতর্ক ভারত
-

নিজ মাঠে দক্ষিই আফ্রিকাকে পর্যুদস্ত করা ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি বাংলাদেশের কাছ থেকে কি বড় প্রতিদ্বন্দ্বিতা প্রত্যাশা করছেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে ‘না’ ‘হ্যাঁ’ কিছুই বলেননি বিরাট কোহলি। যে দলটি দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তিন টেস্টের দুটিতে ইনিংসে ও আরেকটিতেও বড় ব্যবধানে জিতেছে সে দল বাংলাদেশকে পাত্তা দিবে এটা কি হয়? তা ছাড়া বাংলাদেশ সর্বশেষ টেস্টে হেরেছে আফগানিস্তানের মতো নতুন এক দলের কাছে। তবে বিরাট কোহলি ভদ্রতার সঙ্গেই জানালেন, তারা প্রতিপক্ষকে সম্মান করেন এবং তাদের কাছে প্রতিদ্বন্দ্বিতা আশা করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা নিশ্চিতভাবেই মনে করি যে, তারা (বাংলাদেশ) আমাদের গেম-প্লান কী সেটা তারা জানে। ফলে ওই অবস্থায় তাদের করণীয় কী সে প্রস্তুতিও তাদের রয়েছে। ফল নিজেদের পক্ষে আনতে আমলাদের ভালো খেলতে হবে যেভাবে আমরা আগের সব ম্যাচ খেলেছি। তাই আমরা কোনো কিছুই হালকাভাবে নিচ্ছি না। আমরা বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যান ও বোলারকেই সহজভাবে নিচ্ছি না।’
বাংলাদেশের ক্রিকেটারদেরা কে কী পারেন সেটা ভারত অধিনায়কের বেশ ভালোই জানা। তাই এ নিয়ে তারা যে প্লানটা কষে রেখেছেন সেভাবেই এগুতে চান। তিনি বলেন, ‘যখন তারা ভালো খেলে, তখন তারা খুবই দক্ষতাসম্পন্ন দল হিসেবে আবির্ভূত হয়। আর ভালো ক্রিকেট খেলার সব রকমের সামর্থ্য তাদের আছে। এই বিষয়টাকে আমরা সম্মান করছি। তবে এটাও ঠিক, সবকিছুর পরেও কিন্তু আমরা আমাদের নিজেদের উদ্দেশ্যের ওপর যথেষ্ট আস্থা রাখি।’ কোহলির চিন্তাতে শুধু মুস্তাফিজ। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘সে বাঁহাতি এবং খুব ভালো বোলিং করেন। আমরা দীর্ঘ দিন বাঁহাতি পেসারকে নেটে খেলিনা। এটা একটা চিন্তার কারণ।’ তিনি আরো বলেন, ‘ সে খুব ভালো একজন বোলার। সে লাল বলেও বেশ কিছু ম্যাচ খেলেছে। আমরা সাধারণত যাদের খেলি সেসব বাঁ হাতি পেসারের চেয়ে সে একটু আলাদা। ওর দিকে বাড়তি মনোযোগ দিতে হবে। কারণ আমাদের দলে বাঁ হাতি পেসার নেই। এটা চ্যালেঞ্জ হবে তবে আমরা এই চ্যালেঞ্জ নিতে মুখিয়ে আছি।’
তবে নিজেদের সামর্থ্যরে কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এটাও ঠিক, বাঁ হাতি পেসারের ভয়ে আমরা আমরা গুটিয়ে থাকব তেমনটা না।’ তিনি বলেন, ‘ সে বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এক বোলার। সে অনেক অভিজ্ঞ বলার। আইপিএলে খেলার জন্য ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সম্পর্কে সে বেশ ভালো জানে। তবে ওর বিপক্ষেও আমরা অনেক খেলেছি। আমার মনে হয়, মনোযোগ ও মনসংযোগ হবে এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।’


আরো সংবাদ