০৪ আগস্ট ২০২১
`

আট স্টেডিয়াম জুন পর্যন্ত পেল বাফুফে

-

এবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ৮ ভেনুতে করার পরিকল্পনা ছিল বাফুফের পেশাদার লিগ কমিটির। নিজস্ব হোম ভেনুতে খেলবে এই নিয়ে কি উচ্চকণ্ঠ ক্লাবগুলোর। অথচ যতই ঘনিয়ে আসছে লিগের সময় ততই উল্টো সুর এই ক্লাবগুলোর। এখন পর্যন্ত ১৩ ক্লাবের দু’টি চট্টগ্রাম আবাহনী এবং শেখ রাসেল তাদের হোম ভেনুতে খেলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। এম এ আজিজ স্টেডিয়াম ছিল চট্টগ্রাম আবাহনী এবং সিলেট স্টেডিয়াম ছিল শেখ রাসেলের। কিন্তু খেলার জন্য এই স্টেডিয়ামগুলো পাওয়া যাবে না এই অজুহাতে সেখানে হোম ভেনু নিতে অস্বীকৃতি এই দুই ক্লাবের।
এম এ আজিজ স্টেডিয়াম বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ টি-২০ এর বিকল্প ভেনু। তাই এখানে হোম ভেনু করবে না চট্টগ্রাম আবাহনী। তাই বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে পেশাদার লিগ খেলতে চেয়ে বাফুফেতে আবেদন করেছে চট্টগ্রাম আবাহনী। অন্য দিকে সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থা জানিয়েছে তাদের কিছু স্থানীয় খেলা আছে। তাই তাদের পক্ষে পেশাদার লিগের জন্য শেখ রাসেলকে এই মাঠ দেয়া সম্ভব নয়। ফলে শেখ রাসেলেরও দাবি বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম। অবশ্য বাফুফের কাছে ২৩ ডিসেম্বর স্বাক্ষরিত এবং ২৬ তারিখে পাওয়া জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের চিঠি বলছে, মাঠ না পাওয়ার ওই যুক্তি সঠিক নয়। স্টেডিয়ামের মালিক জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, সিলেট এবং চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামসহ দেশের আট স্টেডিয়াম জুন পর্যন্ত বাফুফেকে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এই সময়ে সেখানে ফুটবল আয়োজনে কোনো বাধাই নেই। অন্য ছয় স্টেডিয়াম হলোÑ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহ স্টেডিয়াম, নোয়াখালী স্টেডিয়াম, ফরিদপুর স্টেডিয়াম, নিলফামারী স্টেডিয়াম ও গোপালগঞ্জ স্টেডিয়াম। বাফুফে সেক্রেটারি এই স্টেডিয়ামগুলো জুন পর্যন্ত বরাদ্দ দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
উল্লেখ্য, ঢাকা আবাহনী, মোহামেডান, ব্রাদার্স ও রহমতগঞ্জ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম, সাইফ স্পোর্টিং এবং আরামবাগ ময়মনসিংহ স্টেডিয়াম, বসুন্ধরা কিংস নিলফামারী স্টেডিয়াম, শেখ জামাল ফরিদপুর স্টেডিয়াম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্র গোপালগঞ্জ স্টেডিয়াম এবং বিজেএমসি ও নোফেল স্পোর্টিং নোয়াখালী স্টেডিয়ামকে হোম ভেনু হিসেবে বাফুফেতে জমা দিয়েছে। এবার এএফসির কড়া নির্দেশনা একাধিক ভেনুতে হতে হবে পেশাদার লিগ। তাই এই নাম জমা দেয়ার হিড়িক পড়েছিল।

 



আরো সংবাদ