০৫ এপ্রিল ২০২০

আগডুম বাগডুম কবিতা

-

শীত
আবুল হোসেন আজাদ

অতিথি পাখিরা এসেছে আবার বহু পথ ফেলে পরে
হাওর বাঁওড় লেক জলাশয়ে খাল বিল নদীচরে।
রাত শেষে ভোরে ঝাঁকে ঝাঁকে ওরা মাতে কলকাকলীতে
করে জলকেলি পাখা ঝাঁপটায় কুয়াশাজড়ানো শীতে।

খেজুরের রস নামায় গাছিরা গাছে উঠে ভোরবেলা
বাগানে বাগানে প্রজাপতি এসে যখন জমায় খেলা।
ভরে গেছে মাঠ হলুদে হলুদে সরিষার ফুলে ফুলে
শিশিরের কণা মুক্তার মতো রোদের আলোয় দোলে।

সবজির ক্ষেতে আলু কপি শিম লালশাক পুঁইদানা
যত খুশি খাও যেটা মন চায় নেই তাতে কোনো মানা।
আছে আরো কত বেগুন পালং টমেটো মটরশুঁটি
মাছ আছে কই চিংড়ি টেংরা কাতলা মৃগেল পুঁটি।

শীত এলো বলে ছোট বড় সব বন ভোজনেতে মেতে
মন চায় শীতে ঘরের বাহিরে কোথাও বেড়াতে যেতে।
নানান রকম পিঠেপুলি খেয়ে ভরায় সবার চিত
যখনই আসে বছর পেরিয়ে হাড়কাঁপা এই শীত।

হলদে সবুজ গাঁও
আবদুল কুদ্দুস ফরিদী

মাঠের পরে মাঠ পেরুলাম বনের পরে বন,
মনটা আমার চিরকালই কানন উচাটন।
দূর আঙিনা পার হয়ে ঐ
শান্ত নিটোল হলদে সবুজ গাঁও,
যেখানটাতে ঝোপের তলে ডাহুক পাখির ছাও।
ঘুঘু ডাকা নিঝুম দুপুর মাছরাঙাদের ডাক,
ঘরের পেছন আমের ডালে মৌমাছিদের চাক।
রূপঝলমল রঙিন বিকেলÑ আলোয় ভরা দিন,
প্রজাপতির ডানা দু’টি জামদানি মসলিন।
দীঘির ধারে নীল বেগুনি কলমিলতার ফুল,
বাড়ির কাছে খেলছে খুকি হাওয়ায় ওড়ে চুল।
সন্ধ্যা ঘনায়, সন্ধ্যাতারা নীরবে দেয় উঁকি,
তারায় তারায় রাতের আকাশ আলোর আঁকিবুঁকি।
জোনাক পোকা মুক্তোদানা ছড়ায় বনের কোলে,
পুকুর পাড়ে বাঁশের ঝাড়ে রাতের আঁধার দোলে।
রাত নিশীথে নিবিড় গভীর সব কিছু হয় চুপ,
রাতের আকাশ শান্ত নীরব অরূপ-অপরূপ।
প্রভাত আসে আবার হাসে আলোয় ভরা দিন,
নীল সবুজে লাল হলুদে সব কিছু রঙিন।

নতুন বছর
আবুল খায়ের

নতুন বছর নতুন স্বপ্ন
নতুনের কেতন
দুঃখ কষ্ট যাবো ভুলে
দৃঢ় করো মন।

নতুন দিনের আলোয় আলোয়
নতুন রাঙা ভোর
নতুন ভোরের আলোয় যেন
দূর হবে সব ঘোর।

নতুন আকাশ নতুন বাতাস
নতুন সবই আজ
দেশ গড়তে সবাই মিলে
করতে হবে কাজ।

ইচ্ছে করে
সৈয়দ মাশহুদুল হক

সবাই শুধু পড়তে বলে
কেউ বলে না ঘুরতে
আমি যে চাই পাখির মতো
নীল আকাশে উড়তে।

ঘরের কোণে একলা বসে
যায় কি শুধুই পড়া?
মন ছুটে যায় দূরের মাঠে
যেথায় সবুজ ভরা।

চোখে ভাসে পাবদা পুঁটির
শাপলা ফোটা ঝিল
রঙিন পাখার প্রজাপতি
রুপোলি গাঙচিল।

সবুজ মাঠের প্রান্ত ছুঁতে
আকাশ যেথায় নামে
ইচ্ছে করে যাই ছুটে যাই
এমন একটি গ্রামে।

শীত এলে
ইবরাহীম আদহাম

শীত এলে কুয়াশায়
সাজে রোজ অহনা
ফুল ফল গলে পরে
শিশিরের গহনা।

রোদ দেয় চুমু এসে
শিশিরের কপালে
সেই সিন দেখে পাখি
ডাকে রোজ সকালে।

হিম হিম ছোঁয়া লেগে
গায়ে ওঠে শিহরণ
ফিনফিনে মুক্তাতে
ভিজে যায় এ দু’ চরণ।

শিশিরের পরশে
হাসে নব পল্লব
মন ছুঁয়ে যায় শুনে
পাখিদের কলরব।


আরো সংবাদ

আত্মহত্যার আগে মায়ের কাছে স্কুলছাত্রীর আবেগঘন চিঠি (১৩৫৩০)সিসিকের খাদ্য ফান্ডে খালেদা জিয়ার অনুদান (১২৬০৬)করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন খালেদা জিয়া, শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল (৯৩১৫)ভারতে তাবলিগিদের 'মানবতার শত্রু ' অভিহিত করে জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগ (৮৪৯০)করোনায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেল ইতালির একটি পরিবার (৭৮৬৪)করোনার মধ্যেও ইরান-যুক্তরাষ্ট্র আরেক যুদ্ধ (৭১৪০)করোনায় আটকে গেছে সাড়ে চার লাখ শিক্ষকের বেতন (৬৯৩১)ইসরাইলে গোঁড়া ইহুদির শহরে সবচেয়ে বেশি করোনার সংক্রমণ (৬৮৯০)ঢাকায় টিভি সাংবাদিক আক্রান্ত, একই চ্যানেলের ৪৭ জন কোয়ারান্টাইনে (৬৭৬১)করোনাভাইরাস ভয় : ইতালিতে প্রেমিকাকে হত্যা করল প্রেমিক (৬২৯৬)