১১ আগস্ট ২০২২
`

‘ভিডিওটা দেখে চিৎকার করে কাঁদতে ইচ্ছা করেছে’


এক নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনা সম্পর্কে পাঠক খন্দকার নাসিমা নওশাদ ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘শুধু নোয়াখালী নয়, পুরো দেশই এখন সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য।’’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘‘যতবার ভিডিওটা দেখেছি, ততবারই চিৎকার দিয়ে কাঁদতে ইচ্ছে করেছে। আল্লাহর কাছে আশ্রয় চেয়েছি।’’

পাঠক সাগর সরদার লিখেছেন, ‘‘এই সামাজিক অবক্ষয়ের শেষ কোথায়? দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। আর যদি সম্ভব হয় এই অমানুষগুলোকে প্রকাশ্যে ক্রসফায়ার দেওয়া হোক।’’

পাঠক জাহাঙ্গীর আলমের মন্তব্য, ‘‘এরকম দু-একটা ঘটনা হয়তো মিডিয়াতে প্রকাশ পাচ্ছে, কিন্তু বাস্তবতা আরো ভয়াবহ।’’

শাহাব হাওলাদার মনে করেন, ‘‘প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদে সন্ত্রাসীরা এ ধরনের অপরাধের রাজত্ব কায়েম করছে।’’ প্রায় একই ধারণা পাঠক সাইফুল ইসলাম সাইফের।

তবে বেগমগঞ্জের ঘটনায় কেউ পুলিশ অভিযোগ করেনি, ভিডিও প্রকাশের পর পুলিশ তৎপর হয়েছে বলে সাইফের প্রশ্ন, ‘‘অভিযোগ কেন করবে, কার কাছে করবে? অপরাধকারী সবাই নিজেরা নিজেরাই, কার বিচার কে করবে?’’

তবে সুমন লিখেছেন, ‘‘ভিকটিম যদি অভিযোগ না করে তাহলে পুলিশ কিভাবে জানবে? ভিকটিম না বলতে পারলেও মেম্বার-চেয়ারম্যান কিংবা সচেতন কাউকে তো থানায় বিষয়টি জানাতে হবে।’’

সাদ্দাম হোসেন আকন্দ বলছেন, ‘‘ধন্যবাদ তো নির্যাতনকারীদের প্রাপ্য, তারাই তো ভিডিও প্রকাশ করে নিজেদের দোষ স্বীকার করেছে।’’ ডয়চে ভেলে


আরো সংবাদ


premium cement