২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

ঘরেই করুন রুক্ষ্ম ও ফাটা ঠোঁটের যতœ

-


ষ রুক্ষ্ম ঠোঁটে লাবণ্য ফিরিয়ে আনার জন্য তেল খুব ভালো একটি উপাদান। নারকেল তেল, অলিভ অয়েল বা ক্যাস্টর অয়েলে আছে ফ্যাটি এসিড যা ঠোঁট সুন্দর ও লাবণ্যময় করে তোলে। ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল, অলিভ অয়েল বা ক্যাস্টর অয়েলের সাথে ২-৩ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল বা নিম অয়েল মিশিয়ে নিন। ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন সারারাত। দিনে ২-৩ বার লাগাতে হবে।
ষ মধু ও ভেসলিন দিয়েও করা যায় শুষ্ক ও ফাটা ঠোঁটের চিকিৎসা। প্রথমে ঠোঁটে মধু লাগান। তারপর মধুর ওপরে ভেসলিন লাগান। ১৫ মিনিট রাখুন। এরপর ভেজা টিস্যু বা কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। ভালো ফল পাওয়ার জন্য এটা প্রতিদিন একবার করে একটানা সাত দিন করতে হবে।
ষ শুষ্ক ঠোঁটের যতেœ গ্রিন টি ব্যাগ খুব উপকারী। ১ কাপ গরম পানিতে একটি গ্রিন টি ব্যাগ ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। তারপর এই ব্যাগটি তুলে নিয়ে ঠোঁটে চেপে রাখুন। ১০ মিনিতে পর সরিয়ে নিন। এতে করে ফাটা ঠোঁটের যন্ত্রণা কমবে।
ষ ঠোঁটের মরা চামড়া দূর করতে এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করুন। ১ চা চামচ চিনি, কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল, আধা চা চামচ চিনি একসাথে মিশিয়ে নিন। এবার এটি ঠোঁটে লাগিয়ে আলতো করে ঘষুন। ৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রথম দুই সপ্তাহ ১ দিন পরপর করুন এই প্রক্রিয়াটি। তার পর থেকে সপ্তাহে ২ দিন করে করলেই চলবে। এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করলে ঠোঁট নরম, কোমল ও তরতাজা হবে।
ষ ১ ফোঁটা ঘি ফাটা ঠোঁটে জাদুকরি প্রভাব ফেলতে পারে। ঘি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। ১ ফোঁটা ঘি সারারাত ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন। পরপর কয়েকদিন করলে ফাটা ঠোঁট একদম ভালো হয়ে যাবে।
ষ মধু ও গ্লিসারিন সমপরিমাণে নিয়ে একসাথে মিশিয়ে একটি কৌটায় রাখুন। ফাটা, রুক্ষ্ম বা চামড়া ওঠা ঠোঁটে প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর সময় লাগিয়ে সারারাত রাখতে হবে। ২-৩ দিনের মাঝেই ঠোঁটের সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।

 


আরো সংবাদ