০৭ এপ্রিল ২০২০

দূরের গ্রহের তথ্য সংগ্রহে ‘কিয়প্স’ স্যাটেলাইট

দূরের গ্রহের তথ্য সংগ্রহে ‘কিয়প্স’ স্যাটেলাইট - সংগৃহীত

দূরের গ্রহ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ শুরু করেছে বিজ্ঞানিরা। এ নিয়ে একটি টেলিস্কোপ কক্ষপথ থেকে অনুসন্ধান চালাচ্ছে। দূরের গ্রহগুলি সম্পর্কে মূল্যবান তথ্য সংগ্রহ করছে এই অভিযান।

পৃথিবীর বুকে টেলিস্কোপ নক্ষত্রের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করে। কোনো গ্রহ সেটির নক্ষত্র প্রদক্ষিণ করার সময় গ্রহের অভিকর্ষ নক্ষত্রকে আকর্ষণ করে। তখন নক্ষত্র কিছুটা নড়াচড়া করে। তথাকথিত এই রেডিয়াল মুভমেন্টের মাধ্যমে এক্সোপ্ল্যানেটের ভর পরিমাপ করা যায়।

জেনিভা বিশ্ববিদ্যালয়ের দিদিয়ে কোয়েলস বিষয়টি সম্পর্কে বলেন, দুই পদ্ধতির মেলবন্ধন ঘটানো সম্ভব। নক্ষত্রের সামনে দিয়ে গ্রহ চলে যাবার সময় কিছু প্রণালী রেডিওভেলোসিটিও পরিমাপ করে। সে ক্ষেত্রে ভর ও আয়তন জানা যায়। তারপর তার ভিত্তিতে ঘনত্ব হিসেব করতে হয়। এভাবে গ্রহের চরিত্র সম্পর্কে জানা যায়।

দূরের এই সব মহাজাগতিক বস্তু কি বৃহস্পতি গ্রহের মতো গ্যাস দিয়ে তৈরি? নাকি পৃথিবী বা মঙ্গলগ্রহের মতো পাথর দিয়ে তৈরি? এই সব গ্রহ কি শুধু মহাসাগর বা বরফের চাদরে ঢাকা? এমন সব তথ্য জানতে পারলে বোঝা যাবে, কোনো গ্রহ বাসযোগ্য হতে পারে কিনা।

দূরের গ্রহগুলির নিজস্ব বায়ুমণ্ডল রয়েছে কিনা, স্যাটেলাইট সেই তথ্যও জানার চেষ্টা করছে। সেটা জানতে নক্ষত্রের কাছে গ্রহের কক্ষপথ ও গ্রহের উপর নক্ষত্রের আলোকপাত বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্যও এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

আমাদের সৌরজগতের গ্রহগুলি যে সেগুলির বর্তমান অবস্থানে জন্মগ্রহণ করে নি, তা ইতোমধ্যেই জানা গেছে। প্রচলিত তত্ত্ব অনুযায়ী বিশাল মেঘের পুঞ্জ ঘনীভূত হলে এবং ঘূর্ণায়মান চাকতি সদ্য সৃষ্টি হওয়া নক্ষত্র প্রদক্ষিণ করলে গ্রহ সৃষ্টি হয়।

সূর্য থেকে অনেক দূরে বৃহস্পতির মতো বিশালাকার গ্যাসভিত্তিক গ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। চারপাশের পরিবেশের কারণে থমকে গেলে এমন গ্রহ সূর্যের আরও কাছে এগিয়ে যায়। ভিতরের অংশে, যেখানে ধূলিকণা ঘনীভূত হয়ে পাথুরে কাঠামোয় পরিণত হয়– গ্রহ সেদিকে ধাবিত হয়। বিকাশের সময় গ্রহগুলি অনেক দূরত্ব অতিক্রম করে। কিয়প্স স্যাটেলাইট সেই গতিপথ চিহ্নিত করতেও যথেষ্ট তথ্য সংগ্রহ করবে।

এই স্যাটেলাইট এমনকি নতুন জগতও আবিষ্কার করতে পারে। হয়তো এখনো পর্যন্ত আবিষ্কৃত এক্সোপ্ল্যানেটের তুলনায় ছোট গ্রহের অস্তিত্বের কথাও জানা যাবে। পৃথিবীর মতো বায়ুমণ্ডলে ঢাকা পাথুরে গ্রহও খুঁজে পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আগামী দশকগুলিতে একাধিক সুপার টেলিস্কোপ এমন সব দূরের গ্রহগুলি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত গবেষণা চালাবে। তখন হয়তো মানবজাতির অন্যতম মৌলিক প্রশ্নের উত্তরের আভাস পাওয়া যাবে। পৃথিবীর বাইরে বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের কোনো প্রান্তে প্রাণের স্পন্দন রয়েছে কিনা জানা যাবে। (সূত্র: ডয়সে ভেলে)


আরো সংবাদ

করোনায় কারখানা বন্ধ থাকলেও শ্রমিক ছাঁটাই করা যাবে না : বাণিজ্যমন্ত্রী কবরস্থান জিয়ারত করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান উত্তর সিটি করপোরেশনের কাশ্মিরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে নিহত ভারতীয় দুর্ধর্ষ কমান্ডো দলের সব সদস্য মারা গেলেন কোয়ারেন্টিন অমান্যকারী যুবক করোনার ভয়ে স্ত্রীকে হত্যার পর আত্মহত্যা মুজিববর্ষেই বঙ্গবন্ধুর বাকি খুনিদের দেশে আনা সম্ভব হবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী করোনা : মহামন্দা ও খাদ্য সঙ্কটের আশঙ্কা! করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির যত্ন নিবেন কীভাবে আতিফ আসলামের সুমধুর কন্ঠের আজানে বিমুগ্ধ নেট দুনিয়া(ভিডিও) বিক্রির সময় অসুস্থ গরুর মাংস জব্দ জনগণের পাশে দাঁড়াতে ওবায়দুল কাদেরের আহবান

সকল

দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর (২৭৯১৩)করোনা ছড়ানোয় চীনকে যে ভয়ঙ্কর শাস্তি দেয়ার দাবি উঠল জাতিসংঘে (১৭৬৭৩)গাদ্দাফিকে উৎখাতকারী জিবরিলের করোনায় মৃত্যু (১৫৭৯০)রমজান মাসে অফিসের সময়সূচি নির্ধারণ (১৪৩১৪)উকুন মারার ওষুধে ৪৮ ঘণ্টায় খতম করোনা (১৩৯১৮)করোনায় মৃতদের জানাজা-দাফনে প্রস্তুত এক ঝাঁক আলেম (১২৯১২)এবার করোনায় আক্রান্ত বাঘ (১০৬৬১)৩ ঘণ্টার রাস্তা পাড়ি দিয়েছেন ২ দিন, খরচ হয়েছে ৪ হাজার টাকা! (১০৫১৮)'মেয়েকে কোলেও নিতে পারছি না!' দূর থেকে ভেজা চোখে তাকিয়ে পুলিশ অফিসার (১০০৭২)করোনার চিকিৎসায় তুরস্কের অভূতপূর্ব পদক্ষেপ, পাল্টে যাচ্ছে চিকিৎসা পদ্ধতি (৯৭০৬)