২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

পঞ্চগড়ে করতোয়ায় নৌকাডুবি : মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮

উৎসুক জনতার ভিড়। - ছবি : নয়া দিগন্ত

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার মাড়েয়া ইউনিয়নের করতোয়া নদীর আউলিয়া ঘাটে নৌকাডুবির ঘটনায় আজ মঙ্গলবার আরো ১৭টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে এ দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৬৮ জনে। এদের মধ্যে নারী ৩১ জন, শিশু ২০ জন ও পুরুষ ১৭ জন।

মঙ্গলবার উদ্ধার হওয়া ১৭টি লাশের মধ্যে ১১ জনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- শৈল বালা (৫১), সনেকা রাণী (৫৫), হরি কিশোর (৪৫), শিল্টু বর্মন (৩২), মহেন চন্দ্র (৩০), ভূমিকা রায় পুজা (১৫), আঁখি রাণী (১০), সুমি রাণী (৩৮), পলাশ চন্দ্র (১৫), ধৃতি রাণী (১০) ও সজিব রায় (১০)।

এখনো নিখোঁজ রয়েছে ২০ জনের বেশি।

উদ্ধার অভিযানের তৃতীয় দিনে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে উদ্ধার অভিযানে নামে ফায়ার সার্ভিসের সাথে স্থানীয় উদ্ধাকারীরা। দুর্ঘটনাস্থলের ভাটি অংশ থেকে একে একে উদ্ধার হতে থাকে লাশ। সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত উদ্ধার করা হয় ১৭টি লাশ। দুর্ঘটনার নিহত স্বজনদের দাবি, ধীর গতিতে উদ্ধার কাজ চলার কারণে এখনো অনেক লাশ উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না।

স্থানীয় উদ্ধারকারীরা জানান, স্থানীয়রাই নিজ উদ্যোগে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। কয়েকজন একসাথে হাত ধরে চিরুণী অভিযান চালাচ্ছেন। তারা অভিযোগ করেছেন, সকাল থেকে সারাদিন তারা উদ্ধার কাজ চালালেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের কোনো ধরনের খাবার ও পানি সরবরাহ করা হচ্ছে না।

মঙ্গলবার সকাল থেকেই নিখোঁজ স্বজনের লাশের খোঁজে করতোয়া নদীর আউলিয়া ঘাট ও এর আশপাশের এলাকা এবং মাড়েয়া বামনহাট ইউনিয়ন পরিষদে খোলা তথ্যকেন্দ্রে ভিড় করতে থাকে। স্বজনহারারা বলছেন, এখন আর জীবিত উদ্ধারের সুযোগ নেই। তিন দিন ধরে লাশের জন্য হন্যে হয়ে বেড়াচ্ছেন তারা। তারা তাদের স্বজনের লাশটি দ্রুত উদ্ধার করে দেয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

তথ্যকেন্দ্রের সামনে পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে গত দু’দিন ধরে অপেক্ষা করছেন বোদা উপজেলার মাড়েয়া কাউয়াখাল গ্রামের সন্তোষ কুমার। তিনি জানান, ওই দিন নৌকায় তার পুত্রবধূ সুমিত্রা ও নাতি সজিব (৭) ছিল। পুত্রবধূর লাশ পেলেও এখনো নাতির লাশ খুঁজে পাননি তিনি।

বোদা উপজেলার মাড়েয়া ফুটকিবাড়ী এলাকার জয় জানান, রোববার বোদেশ্বরী মন্দিরে যাওয়ার জন্য আমার সাতজন আত্মীয় উঠেছিল। শুরুতেই একটি শিশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সে সুস্থ হওয়ার পর তাকে বাড়িতে এনেছি। স্থানীয় উদ্ধারকারীরা চারজনের লাশ উদ্ধার করেছে। এখনো এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে।

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দীপংকর কুমার রায় জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তিন দিনে সর্বমোট ৬৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে বোদা উপজেলার ৪৫ জন, দেবীগঞ্জ উপজেলার ১৭ জন, আটোয়ারী উপজেলার ২ জন, পঞ্চগড় সদরের ১ জন এবং ঠাকুরগাঁও সদরের ৩ জন।

তিনি আরো জানান, আমাদের তালিকা অনুযায়ী চারজন নিখোঁজ রয়েছে। এ কারণে বুধবারও উদ্ধার অভিযান চলবে।


আরো সংবাদ


premium cement