০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ৬ জিলহজ ১৪৪৩
`

মিঠাপুকুরে স্লুইস গেট সংস্কারের অভাবে কয়েক হাজার কৃষকের স্বপ্ন পানিতে ভাসছে

ভেলুয়ার বিলে পানিতে তলিয়ে যাওয়া ধানক্ষেত এবং (ডানে) স্লুইস গেটের মুখে শেওলা পড়ে পানি নিষ্কাশন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। - ছবি : নয়া দিগন্ত

রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ঐতিহ্যবাহী ভেলুয়ার বিলের কয়েক হাজার বোরো ধানচাষি কৃষকের স্বপ্ন এখন পানিতে ভাসছে। বিলের স্লুইস গেটটি সংস্কারের অভাবে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, শুষ্ক মৌসুমে অত্র এলাকার কৃষকরা ভেলুয়ার বিল ও বিলের ধারে প্রায় এক হাজার হেক্টর জমিতে ৩০ হাজার কৃষক ও কৃষক পরিবার বোরো ধান আবাদ করে পুরো বছরের খাবারের চাহিদা পূরণ করতো। হঠাৎ গত ৪/৫ দিনের লাগাতার প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে বিলের পানি নিষ্কাশনের পথ না থাকায় মাঠের পাকা বোরো ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

যমুনেশ্বরী নদীর সাথে ভেলুয়ার বিলের সংযোগস্থল বৈরাগীর কুঠিও হাসিয়া ও দাড়ারপাড় নামক স্থানে প্রায় ৩০/৩৫ বছর আগে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড ও এলজিইডি’র তত্ত্বাবধায়নে নির্মিত স্লুইস গেট দুটি অকেজো হওয়ায় বর্তমানে পানি নিষ্কাশনে বাধার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ফসলি জমিগুলো পানিতে তলিয়ে আছে।

দীঘলটারী গ্রামের কৃষক সাহেব আলী জানান, আমার ২০ শতাংশ জমিতে ধান চাষ করেছিলাম। প্রায় ২৫/৩০ মণ ধান পাওয়া যেত। কিন্তু তা এবার আর পাওয়া যাবে না। এবার সারা বছর কী দিয়ে সংসার চালাব সেটাই ভাবছি।

কৃষক রবিউল আলম বলেন, আমার ৪০ শতাংশ জমির পাকা ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে। প্রতি বছর ৬০/৬৫ মণ ধান পেতাম, তা এবার পাওয়া যাবে না।

কৃষক আবেদ আলী বলেন, আমার এক বিঘা জমির ধান পানির নিচে ডুবে গেছে। এবার পরিবারের খাবার নিয়ে খুব চিন্তার আছি, সারা বছর কী খাব। ৫০/৬০ মণ ধান পেতাম, তাও পানিতে ভাসছে। দ্রুত পানি না নামলে তা পাওয়ার সম্ভাবনা নাই। আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে বিলের পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করা হলে পুরো ধান নষ্ট হয়ে যাবে।

নজরুল ইসলাম, আ: রহমান, কাশেমসহ বিল এলাকার কয়েক হাজার কৃষকের ধান পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় তাদের হতাশার নিঃশ্বাসে সেখানকার আকাশ ভারি হয়ে উঠেছে।

এ বিষয়ে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, দেখেশুনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা প্রকৌশলী আখতারুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যাযনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ-জোহরা বলেন, অতি দ্রুত খোঁজ নিয়ে কৃষকদের সুবিধার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরো সংবাদ


premium cement