২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

শীত পড়লেও চাহিদা নেই লেপের, দুশ্চিন্তায় কারিগররা

শীত পড়লেও চাহিদা নেই লেপের, দুশ্চিন্তায় কারিগররা - ছবি : নয়া দিগন্ত

শীতের আগমনী বার্তা দিচ্ছে সাত সকালের ঘন কুয়াশা। ঠাণ্ডা পড়তে শুরু করেছে গ্রামীণ জনপদে। ঠাকুরগাঁও সদরে ইতোমধ্যেই বিক্রি বেড়েছে শীতবস্ত্রের। তবে সমস্যায় পড়েছেন রুহিয়ার ধুনুরিরা।

প্রতি বছর শীত পড়তেই লেপ তৈরির জন্য অর্ডার পেয়ে থাকেন তারা। এ দিকে লেপের তুলনায় কম্বলের চাহিদা বাড়ায় ধুনুরিদের আর সেই রকম অর্ডার পাওয়া হয় না। আগে প্রতি বছর শীতের মৌসুমে একজন ধুনুরি প্রায় ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা আয় করতেন। সেই উপার্জন এখন তলানিতে ঠেকেছে।

গত বছরের তুলনায় এ বছর অর্ধেকেরও কম লেপ বানানোর অর্ডার পেয়েছেন রুহিয়ার ধুনুরিরা। এর কারণ হিসেবে ধুনুরিদের ধারণা, প্রতি বছর বাইরে থেকে বহু ব্যবসায়ী কম্বলে এনে রুহিয়ার দোকান ও বাড়ি বাড়ি ফেরি করে বিক্রি করে। ফলে তাদের তৈরি লেপের তুলনায় ক্রেতা আকৃষ্ট হচ্ছেন বাহারি কম্বলের দিকেই।

রুহিয়া বাজারের তুলা ব্যাবসায়ী কামাল হোসেন বলেন, শীতের সময় ছাড়াও আগে বিভিন্ন বিয়ের অনুষ্ঠানে তুলার লেপের চাহিদা ছিল। কিন্তু বর্তমানে মানুষ লেপের তুলনায় কম্বল বেশি পছন্দ করছেন। যার জন্য ধুনুরিদের ব্যবসায় ভাটা পড়েছে।



আরো সংবাদ