২২ জুন ২০২১
`

মিশুক পেলেন সেই রিকশাচালক

রিকশারচালক আনিছুর রহমান - ছবি নয়া দিগন্ত

‘মোর রিকশাত কাইয়ো চইড়বার চায় না, সগাই সবল রিকশাওয়ালা খোঁজে বাহে’ এই শিরোনামে প্যাডেলচালিত রিকশারচালক আনিছুর রহমানকে নিয়ে গত মার্চ মাসে দৈনিক নয়া দিগন্তসহ বিভিন্ন পত্রিকায় একটি সংবাদ প্রকাশ হয়।

সংবাদ প্রকাশের পর বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠন আনিছুর রহমানের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন। অবশেষে রোববার রাতে একটি মিশুক (ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা) উপহার পেয়েছেন রিকশাচালক আনিছুর রহমান।

পবিত্র লাইলাতুল কদরের রাতে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে মুসলমান ও হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েক ব্যক্তির সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নামাজ শেষে ভূরুঙ্গামারী সরকারি কলেজ জামে মসজিদ চত্বরে বৃদ্ধ রিকশাচালক আনিছুর রহমানের হাতে মিশুকের চাবি তুলে দেয়া হয়।

জানা যায়, বৃদ্ধ রিকশাচালক আনিছুর রহমানের পাশের বাড়ির সহকারি শিক্ষক আরিফুর রহমান তার ফেসবুক আইডিতে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ ও বৃদ্ধর ছবিসহ একটি পোস্ট দেন। তার পোস্টের পর চিকিৎসক, শিক্ষক, ব্যবসায়ী, সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবির পাশাপাশি সনাতন ধর্মাবলম্বী এক শিক্ষা কর্মকর্তা ব্যাটারিচালিত রিকশা কিনতে অর্থ সহায়তা দেন। তাদের দেয়া অর্থে তাকে মিশুক কিনে দেয়া হয়।

মিশুকের চাবি হস্তান্তরের সময় কচাকাটা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ জহুরুল হক, ভূরুঙ্গামারী সরকারি কলেজের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সফিকুল ইসলাম, সোনাহাট কলেজের অধ্যক্ষ বাবুল আক্তার, ভূরুঙ্গামারী সরকারি কলেজের প্রভাষক আজিজুর রহমান স্বপন ও আরিফুর রহমান শাহিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা পেয়ে আবেগাপ্লুত বৃদ্ধ আনিছুর রহমান জানান, ‘খুব ভালো লাগতেছে, আল্লাহর রহমতে আয় রোজগারে আর সমস্যা হইবে না। এলা আর কাইয়ো কবার নয় তোমার রিকশাত চইড়বার নই, এলা সগাই মোর রিকশাত চইড়বে বাহে।’

এ সময় আনিছুর রহমান ও তার পরিবারকে নতুন পোশাক ও ঈদ সামগ্রী প্রদান করা হয়।

দেখুন:


আরো সংবাদ