১২ আগস্ট ২০২০

অন্যকে বাবা সাজিয়ে সম্পত্তি জবর দখলের অভিযোগ

-
24tkt

রংপুরের পীরগাছায় অন্য মানুষকে বাবা সাজিয়ে জমি জাল দলিল করে লিখে নেয়ার অভিযোগে ছেলের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে বাবা।

জানা যায়, উপজেলার ৯নং কান্দি ইউনিয়নের পাঠক শিকড় গ্রামের মৃত  নুরুজ্জামান প্রামানিকের ছেলে মো: ফারুক হোসেন (সুরুজ্জামান) সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেন, আমার দুই ছেলে এবং এক মেয়ে মিলে সব সম্পত্তি পরিত্যাক্তা স্ত্রীর যোগসাজশে আমার ছবির স্থলে অন্য মানুষের ছবি যুক্ত করে এবং আমার স্বাক্ষর নকল করে  মোট ৬৭ শতাংশ জমি লিখে নিয়েছে।

তিনি বলেন, শুধু তাই নয় আমার মামাতো ভাই মো: রুস্তম আলীকে সাক্ষী হিসেবে রাখা হয়েছে, অথচ তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানেন না। তার স্বাক্ষরও নকল করা হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, আমাকে আমার পরিত্যাক্তা স্ত্রীর সন্তানরা নিয়মিতভাবে  আমাকে নির্যাতন করে আসছেন। আমার ভাতের প্লেট কেড়ে নিয়ে ফেলে দিয়েছেন। অন্য মানুষ দিয়ে আমাকে মারপিট করেছে। প্রতিনিয়ত আমাকে মেরে ফেলারও হুমকি দিচ্ছেন। আমাকে বাড়ি ছাড়া করার চেষ্টা করছেন। আমি আত্মীয় স্বজনদের বাসায় খাওয়া দাওয়া করি।অথচ আমার সম্পত্তি ওরা জাল দলিল করে লিখে নিয়েছে।

এক প্রশ্নে জবাবে ফারুক হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, রোববার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: তছলিম উদ্দিনসহ স্থানীয় সংবাদকর্মী ও গণ্যমান্য ব্যাক্তিরা দুপুরে উপজেলা সাব-রেজিস্টার অফিসে গেলে, সাব-রেজিস্টার মো: মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে আগামী ১৫ কর্ম দিবসের মধ্যে এর সমাধান করে দিবেন বলে জানান।

তিনি দলিল লেখক আজির উদ্দিনকে ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে ফারুক হোসেনের সন্তানদের কাছে থাকা দলিল সাব-রেজিস্টার অফিসে ফেরত দিতে বলেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: তছলিম উদ্দিন বলেন, সন্তানদের উচিত বাবাকে সম্মান করা। আর আমরা আজ কী দেখলাম? বাবার সব সম্পত্তি সন্তানরা জাল দলিল করে লিখে নিয়েছেন। দলিলে বাবার ছবির স্থলে অন্য মানুষের ছবি লাগানো হয়েছে।

সাক্ষী রোস্তম আলী বলেন, আমি জমি দলিল করার সময় উপস্থিত ছিলাম না। আমি বিষয়টি সাব-রেজিস্টারকে অবগত করেছি। সাব-রেজিস্টার দলিল লেখককে ডেকে নিয়ে প্রমাণ করে নিয়েছেন।

এসময় ফারুক হোসেন বলেন, আমার ছবির স্থলে অন্য একজনের ছবি বসিয়ে এবং আমার স্বাক্ষর জাল করে ১৫/১০/২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে জমি দলিল করা হয়েছে। যার দলীল নং-৭০৫৭/১৯।

জমির তফশীল হলো:  মৌজা- পাঠক শিকড়, জেএল নং-১০৪, খতিয়ান নং সিএসএস এ-৬৫৭,৪০৮,৩৯৭, আরএসবিএস-৫৮,৬৪৫, আরএস-৬৫৭,৪৮১, খারিজ খতিয়ান নং- হোল্ডিং নং দাগ  এসএ-১০৩, আর এস দাগ নং-২১২ জমি ৬৭ শতক ও আরএস দাগ নং-১২৩, জমি ৫৩ শতক উভয় আরএস দাগে মোট ১২০ শতক। এর মধ্যে ৩৮ শতক জমি ও দাগ নং এসএ ৭৩ বিএস দাগ নং-২৪২ জমি ২৪ শতক। এর মধ্যে  ০৮ শতক ও দাগ  নং এসএ ৯৯ বিএস দাগ নং ৯৫ জমি ১.৬১ শতক এর মধ্যে ১৪ শতক ও দাগ নং এস এ ৭২ আর এস দাগ নং-২৪০ জমি ২১ শতক এর মধ্যে ০৭ শতক একুনে সর্ব এস এ ও আর এস ও বি এস দাগে মোট ৬৭ শতক জমি। দলীল নং-৭০৫৭/১৯-এ উল্লেখিত।


আরো সংবাদ