০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ৪ জিলহজ ১৪৪৩
`

সাবেক এমপি জ্যোতির ৭ বছর কারাদণ্ড

নূর আফরোজ বেগম জ্যোতি - ছবি : সংগৃহীত

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দায়ের করা দুর্নীতির মামলায় বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য নূর আফরোজ বেগম জ্যোতির সাত বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার রায় দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) বিকেল সাড়ে ৪টায় বগুড়ার স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক এমরান হোসেন চৌধুরী এই রায় ঘোষণা করেন।

রায় ঘোষণার পর আদালতে উপস্থিত আসামী বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য নূর আফরোজ বেগম জ্যোতিকে কারাগারে নেয়া হয়।

গত ২০১৪ সালের ১৫ ডিসেম্বর বগুড়া সদর থানায় তৎকালীন দুদক জেলা কার্যালয়ের এডি মো: ফারুক হোসেন বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন এবং তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ২২ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

বগুড়া দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী এসএম আবুল কালাম আজাদ জানান, দুর্নীতির অভিযোগে নূর আফরোজ বেগমের বিরুদ্ধে ৫৩ লাখ ২৮ হাজার টাকা অবৈধ সম্পর্দ অর্জনের তথ্য পায় দুদক। একইসাথে নূর আফরোজ বেগম জ্যোতি ২৮ লাখ টাকা তথ্য গোপন করেছিলেন। এই বিষয়টি অনুসন্ধানে পেয়ে দুদক তার বিরুদ্ধে মামলা করে। এই মামলার বিচারকাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে। এরপর চলতি বছরের ১১ মে যুক্তিতর্ক শুনানি ছিল। এ সময় নূর আফরোজ বেগম জ্যোতির আইনজীবী সময় প্রার্থনা করেন। কিন্তু আদালত সময় আবেদন নামঞ্জুর করে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। একইসাথে এই মামলার রায় ঘোষণার জন্য ১৯ মে তারিখ ধার্য করেন। ধার্য তারিখ মতে, ১৯ মে বৃহস্পতিবার মামলার রায়ে ৭ বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং তার নামে থাকা সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়।

বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য নূর আফরোজ বেগম জ্যোতি বগুড়া শহরের কাটনারপাড়ার প্রফেসর আব্দুর রউফের স্ত্রী। ছাত্রজীবন থেকে নূর আফরোজ বেগম জ্যোতি বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। বগুড়া জেলা মহিলা দলের সভাপতি হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন। পরে নূর আফরোজ বেগম জ্যোতি জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও বগুড়া জেলা বিএনপির সাবেক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের মনোনীত সংসদ সদস্য ছিলেন।

সূত্র : বাসস


আরো সংবাদ


premium cement