০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ৪ জিলহজ ১৪৪৩
`

ধুনটে ধর্ষণ মামলায় প্রভাষক রিমান্ডে

ধুনটে ধর্ষণ মামলায় প্রভাষক রিমান্ডে। - ছবি : সংগৃহীত

বগুড়ার ধুনট উপজেলার জালশুকা হাবিবর রহমান ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মুরাদুজ্জামান মুকুলকে ধর্ষণ মামলায় দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা।

প্রভাষক মুকুল উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের শৈলমারী গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।

ধুনট থানা সূত্রে জানা যায়, স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রভাষক মুরাদুজ্জামান মুকুলের বিরুদ্ধে গত ১২ মে ধুনট থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। মামলা দায়েরের পরপরই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। ১৩ মে আদালতের মাধ্যমে তাকে বগুড়া কারাগারে পাঠানো হয়। গত ১৮ মে বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গ্রেফতারকৃত মুরাদুজ্জামানের পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে বগুড়ার আদালতে আবেদন করেন। আবেদনে উল্লেখ করা হয়, মুরাদুজ্জামানের কাছে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও রয়েছে। যা উদ্ধার করা না গেলে পরবর্তীকালে স্কুলছাত্রীর ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। আবেদনের শুনানি শেষে বিচারক মুরাদুজ্জামানের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা জানান, মুরাদুজ্জামানকে দুই দিনের রিমান্ডে বুধবার থানায় আনা হয়। রিমান্ডে তার কাছ থেকে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা চলছে। রিমান্ড শেষে শুক্রবার তাকে বগুড়ার কারাগারে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, প্রভাষক মুরাদুজ্জামান মুকুল ধুনট পৌর এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকাকালে প্রতিবেশী এক স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এছাড়াও ধর্ষণের ঘটনার দৃশ্য নিজের মোবাইল ক্যামেরায় ধারন করে রাখেন। ভিডিওটি কাজে লাগিয়ে পরবর্তীকালে তিনি ওই স্কুলছাত্রীকে আরো কয়েক দফা ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ। গত ১২ এপ্রিল ওই স্কুলছাত্রীর বাসায় ধর্ষণের চেষ্টা করলে তার খালা এগিয়ে এসে মুরাদুজ্জামানকে আটকের চেষ্টা করেন। এ সময় সেখান থেকে পালিয়ে যান এই কলেজ শিক্ষক। ওই ঘটনার জের ধরে স্কুলছাত্রীর কাছ থেকে ঘটনাগুলো জানতে পারে তার পরিবার। এরপরই প্রভাষক মুরাদুজ্জামানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়।


আরো সংবাদ


premium cement