২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`
রাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশে নোমান

বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে


বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল নোমান অভিযোগ করে বলেছেন, রাজশাহীর আজকের এই বিশাল সমাবেশ পণ্ডু করতে প্রশাসনের ব্যক্তিরা নানা অপকৌশল চালিয়েছিল।

তিনি সরকারের উদ্দেশে হুঁসিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, গুরুতর অসুস্থ সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য তার বিদেশ যাওয়া প্রয়োজন। কিন্তু সুচিকিৎসার অভাবে তার অনাকাঙ্খিত কোনো ঘটনা ঘটলে পরিস্থিতি শান্ত রাখতে পারবো না। আমরা অতীতে এরশাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছি, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছি। বেগম জিয়ার মুক্তি ও তার সুচিকিৎসার জন্যও আমরা কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবো।

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে তার সুচিকিৎসার দাবিতে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার বিকেলে রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপি আয়োজিত বিশাল সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজশাহী মহানগর বিএনপি কার্যালয়ের সামনের সড়কে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বড় পরিসরে বিএনপির সমাবেশের অনুমতি মেলেনি; তবে সমাবেশস্থল ছাড়াও আশপাশের এলাকায় বিপুলসংখক নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, দেশনেত্রীর সুস্থতার জন্য আমাদের মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করতে হবে। আমরা চাই বেগম খালেদা জিয়া অবিলম্বে মুক্ত হোক। মুক্ত হয়ে বেগম খালেদা জিয়া আবার গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার সংগ্রামে নেতৃত্ব দেবেন।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর সভাপতি ও সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সাবেক এমপি নাদিম মোস্তফা, বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত ও ওবায়দুর রহমান চন্দন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদ, সৈয়দ সাইফুল ইসলাম মার্শাল, মতিউর রহমান মণ্টু, শহিদুন্নাহার কাজী হেনা, আবু বাক্কার সিদ্দিক ও দেবাশীষ রায় মধু। মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যদের মধ্যে সাবেক এমপি ও জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি জাহান পান্না, রাজশাহী মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মামুন অর রশিদ মামুন, ওয়ালিউল হক রানা, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন উজ্জল, গোলাম মোস্তফা মামুন, জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সভাপতি ও রাজশাহী জেলা সভাপতি নুসরাত এলাহী রিজভী, নগরীর মতিহার থানা বিএনপির সভাপতি আনসার আলী, মহানগর বিএনপির দফতর সম্পাদক নাজমুল হক ডিকেনসহ বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর বিপুলসংখক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

মিজানুর রহমান মিনু বলেন, শেখ হাসিনা বিষ ও আগুন নিয়ে খেলছে। বেগম খালেদা জিয়াকে পরিকল্পিতভাবে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। কিন্তু দেশের মানুষ জেগে উঠেছে। আর কোনো আন্দোলন কর্মসূচি নয়। এখন হবে এক দফার আন্দোলন। শেখ হাসিনার বিদায়ের আন্দোলন। তিনি বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য নেতাকর্মীদের কঠোর আন্দোলনের জন্য প্রস্তত থাকার আহ্বান জানান।

সমাবেশে নেতারা বলেন, গণতন্ত্রের প্রতীক বেগম খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ হয়ে বর্তমানে হাসপাতালে মুমূর্ষু অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। নানা রকম জটিল রোগে তিনি এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণের জায়গায় চলে এসেছেন। প্রচণ্ড ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে তার জীবন। দেশে চিকিৎসা দেয়ার মতো আর কিছু বাকি নেই। তাই বেগম জিয়ার জীবন রক্ষা করতে হলে অবিলম্বে বিদেশে উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন।

তারা আরো বলেন, বর্তমান সরকার চরম রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়নতার কারণে সঙ্কীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠতে পারছে না। সব ধরণের মানবিকতা বিসর্জন দিয়ে প্রতিহিংসা পূরণের চেষ্টায় অটল তারা। বর্তমান সরকার বেগম জিয়ার সুচিকিৎসার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় অন্তরায়।

বিএনপি নেতারা বলেন, কঠোর আন্দোলন ছাড়া বেগম জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে তার সুচিকিৎসা সম্ভব নয়। তাই যত দ্রুত সম্ভব আন্দোলনের ডাক দিতে হবে।


আরো সংবাদ


premium cement