২২ জানুয়ারি ২০২১
`

শেরপুরে হিজড়া হত্যার আসামি গ্রেফতার

-

বগুড়ার শেরপুরের কানাইকান্দর গ্রামে হিজড়া রাশি হত্যা মামলার আসামি মো: সোহেলকে (৩০) গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে পাঁচপাইকা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার শাহ্ বন্দেগী ইউনিয়নের কানাইকান্দর গ্রামের মো: মোজাহার আলীর ছেলের প্রকৃত নাম মান্নান ওরফে রাশি। তিনি সহ বেশ কয়েকজন গত ২৯ অক্টোবর সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড় এলাকায় খাইরুন হিজড়ার বাড়িতে সম্মেলন করেন। পরে সম্মেলন শেষে বিকেল ৫টার দিকে শেরপুরে এলে সবাই যে যার মতো বাড়িতে চলে যান। ওই দিন সন্ধ্যার পর ৩০ বছরের অজ্ঞাত এক যুবক রাশি হিজড়া বাড়িতে যান। পরে রাশিকে হত্যার উদ্দেশে মারধর করে ঘরের মেঝেতে রেখে বাইরের গেটে তালা লাগিয়ে চলে যান।

গত ৩০ অক্টোবর দুপুর ১টার দিকে একই গ্রামের চাতালশ্রমিক শুটু ওরফে রানা রাশির ভাড়া বাড়ির সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় ঘরের ভিতর থেকে গোঙ্গানির শব্দ শুনে এগিয়ে যান। পরে ঘরের জানালা দিয়ে উকি দিলে দেখতে পান ঘরের মেঝেতে গুরুতর অবস্থায় রাশি হিজড়ার দেহ পড়ে আছে। এদিকে বাড়ি আশপাশের লোকজনকে ডেকে এনে গেটের তালা ভেঙে ভিতরে গিয়ে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এদিকে রাশির অবস্থার অবনতি হলে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ৪ নভেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় তার ওস্তাদ রশিদ ওরফে হিজড়া বৈশাখী অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে শেরপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ ঘটনায় শেরপুর থানা পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে এসআই রবিউল ইসলাম ফোর্স নিয়ে একটি অভিযান চালান। শুক্রবার রাতে পাঁচপাইকা গ্রামের জাফরুলের ছেলে মো: সোহেলকে নিজ বাড়ি থেকে আটক করে শেরপুর থানায় নিয়ে আসে। পরে শনিবার সকালে রিমান্ড চেয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: শহিদুল ইসলাম শহিদ বলেন, এই হত্যাকাণ্ডের সাথে আরো কেউ জড়িত আছে কিনা তা জানার জন্য আটককৃত আসামিকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।



আরো সংবাদ