১৪ আগস্ট ২০২০

বগুড়ায় করোনায় তিনজন ও উপসর্গে দুইজনের মৃত্যু

বগুড়ায় করোনায় তিনজন ও উপসর্গে দুইজনের মৃত্যু - প্রতীকী
24tkt

করোনাভাইরাস কেড়ে নিয়েছে বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক আবুল কাশেম আযাদসহ (৫৮) তিনজনের প্রাণ। রোববার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র। এছাড়াও জেলায় করোনা উপসর্গে মারা গেছেন আরো দুজন।

জানা গেছে, রোববার বেলা সোয়া ১১টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান আবুল কাশেম আযাদ। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ উপজেলার তালোম ইউনিয়নের উপোর সিলোট গ্রামে।

বগুড়া সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এনামুল হক জানান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক আবুল কাশেম আযাদের স্ত্রী ময়মনসিংহের একটি বেসরকারি কলেজের শিক্ষক। স্ত্রী-সন্তানসহ তার পরিবার বসবাস করতেন ময়মনসিংহে। কয়েক মাস আগে আবুল কাশেম আযাদ বগুড়ায় যোগদান করেন। তার পরিবার থাকতেন ময়মনসিংহে। বগুড়ায় কর্মরত অবস্থায় করোনা উপসর্গ দেখা দিলে তিনি ২২ জুন বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজে নমুনা দেন ও ২৩ জুন তিনি কোভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হন।

এনামুল হক আরও জানান, পরিবার ময়মনসিংহে থাকায় ওই দিন সন্ধ্যায় একটি অ্যাম্বুলেন্সে তাকে ময়মনসিংহে পাঠানো হয়। তার শ্বাসকষ্ট হলে ২৭ জুন থেকে তিনি ময়মনসিংহে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত শনিবার মুঠোফোনে তিনি সারিয়াকান্দির কৃষি কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে বন্যায় কৃষি পরিস্থিতিরও খোঁজখবর নিয়েছেন। কিন্তু রোববার বেলা সোয়া ১১টার দিকে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের সহকারী পরিচালক আব্দুর ওয়াদুদ জানান, করোনায় সিদ্দিক হোসাইন (৭৭) নামে এক বৃদ্ধ মারা গেছেন। রোববার সকাল ৭টার দিকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে তিনি মারা যান। মারা যাওয়া সিদ্দিক হোসাইন বগুড়া শহরের মালতীনগর এলাকার বাসিন্দা।

তিনি জানান, সিদ্দিক শ্বাসকষ্ট নিয়ে ৩ জুলাই করোনা ইউনিটে ভর্তি হন। তিনি ২৫ জুন নমুনা দিলেও তার ফলাফ পান গত ৪ জুলাই। সেই ফলাফলে তিনি করোনায় পজিটিভ বলে শনাক্ত হন। তার উচ্চতর শ্বাসকষ্ট ছিল।

ডাক্তার ওয়াদুদ আরো জানান, শহরের ঠনঠনিয়া শাহপাড়ার বাসিন্দা গুলনাহার বেগম (৫৫) শ্বাসকষ্টসহ করোনার অন্যান্য উপসর্গ নিয়ে গত শনিবার রাতে শজিমেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার বিকেলে তিনি মারা যান।

অপরদিকে মোহাম্মাদ আলী হাসপাতালের আরএমও ডাক্তার খায়রুল বাশার মোমিন জানান, জেলার শিবগন্জ উপজেলার পিরব এলাকার বাসিন্দা খোরশেদ আলম (৬০) করোনা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার সকালে মোহাম্মাদ আলী হাসপাতালে মারা গেছেন।

এদিকে রোববার ভারপ্রাপ্ত জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার মোসআফিজুর রহমান তুহিন জানান, জেলায় এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৬১জন। একই সময় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬১জন । তিনি আরো জানান, এপর্যন্ত জেলায় করোনায় আক্রান্ত ৩ হাজার ৩০৭ জন, সুস্থ্য ৯৩৭জন এবং মৃত্যু ৬১জন।


আরো সংবাদ