০২ জুন ২০২০

ঘরে স্ত্রী-ই নরসুন্দরের ভূমিকায়, ভাইরাল সেই ছবি

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবাইকে বাড়িতে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া বাজারের সব দোকানপাটও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ অবস্থায় ফেসবুকে দেখা যাচ্ছে চুল, দাড়ি, গোঁফ বড় হয়েছে এমন ছবি পোস্ট করছে ছেলে বা পুরুষরা।

কাটানোর মতো কোনো সেলুন খোলা না থাকায় হতাশ এক পুরুষকে মানসিক স্বস্তি দিতে নিজেই কাঁচি তুলে নিয়েছেন এক গৃহবধূ। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করার পর ইতোমধ্যে তা ভাইরালও হয়ে গেছে।

নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়া পৌর শহরের কালিকাপুর মহল্লার তরুণ ব্যবসায়ী সমীর পালমা তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে চুল কাটছে তার স্ত্রী- এমন ছবি পোস্ট করে লিখেছে ‘বাড়িতে থাকি তাই বলে কি চুল কাটব না....তাই বউয়ের হাতে কাঁচি তুলে দিলাম।’

স্ত্রী লাকি কস্তাও এটাকে বিপদকালীন সময়ে স্বামীর প্রতি ভালোবাসা ও দায়িত্ববোধ হিসেবে মনে করে ফেসবুকে বিভিন্ন মানুষের পজিটিভ বা নেগেটিভ সব মন্তব্যকে সাদরে গ্রহণ করছেন।

তবে ফেসবুক কমেন্টসে বেশির ভাগ মানুষই এ ঘটনাকে সম্মান দেখিয়ে ইতিবাচক মন্তব্য লিখেছে। ফেসবুক কমেন্টকারীদের মধ্যে ডানিয়েল চৌধুরী তার মন্তব্যে লিখেছেন, ‘এটা চিরস্থায়ী ভালোবাসার একটি প্রদর্শনী’, হুমায়ুন কবীর লিখেছেন, ‘এমন লক্ষ্মী বউ সবার ঘরে থাকা দরকার’, সাগর ডি কস্তা লিখেছেন, ‘এমন গুণবতী লাইফ পার্টনার কয়জনের ভাগ্যে জোটে, এমন ভালোবাসা ছুঁয়ে থাক দু’জনের’, সুফলা রোজারিও লিখেছেন, ‘নারী-সব পারি, এটাই তার বাস্তব প্রমাণ’ ইত্যাদি।

এ বিষয়ে সমীর পালমা বলেন, প্রয়োজনে আমিও স্ত্রীর ভ্রু প্লাগ বা মাথার চুলের বিউটি হেয়ার কাটিং করে দিতে প্রস্তুত আছি।

সমীরের স্ত্রী লাকি কস্তা বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঘরে থাকাটাই জরুরি। এ অবস্থায় স্বামীর চুল ছেঁটে দিয়ে স্বামীকে ঘরে থাকার অনুপ্রেরণা দেয়ার প্রয়োজন থেকে এ কাজটি করেছি।


আরো সংবাদ