০৮ জুলাই ২০২০

শিবগঞ্জে খোলা আকাশের নিচে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

-

বগুড়ার শিবগঞ্জে গাংনগর এ.এম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের কারণে খোলা আকাশের নিচে গাছ বাগানে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান কার্যক্রম।

জানা গেছে, উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গাংনগর এ.এম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় ১৯৫০ সালে স্থাপিত হয়েছে। অজপাড়া গাঁয়ে এই প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে অত্র এলাকার ছেলে মেয়েদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘ প্রায় ৬০ বছর পূর্বে বিদ্যালয়টি স্থাপিত হওয়ায় শ্রেণিকক্ষ, ছাত্রীদের কমন রুম, ল্যাবরেটরি ও অফিস কক্ষসহ প্রায় ২০টি কক্ষের ছাদের পলেস্তারা খসে শিক্ষার্থীদের গায়ে ও মাথার উপর পড়ছে।

গত বৃহস্পতিবার বিদ্যালয় চলাকালীন সরেজমিনে গেলে শিক্ষার্থীরা জানায়, ৯ম শ্রেণির ক্লাস চলাকালে ওই ক্লাসের রিফাত আল কাউসারের মাথায় পলেস্তারা খসে পড়লে সে মারাত্মক ভাবে আহত হন। এর পর থেকে ওই ভবনে ক্লাস করতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা ভয় পাচ্ছেন। যে কোন মুহূর্তে ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে প্রাণহানির ঘটনা ঘটতে পারে এমন আতংক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের মধ্যে বিরাজ করছে। তাই খোলা আকাশের নিচে গাছ বাগানে প্রতিদিন পাঠদান কার্যক্রম চলছে।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এ.এস.এম ফসিয়ার রহমান বলেন, এবছর বর্ষ মৌসুমে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ছাদ বয়ে পানি পড়ছে। এমনকি পলেস্তারা খুলে শিক্ষার্থীদের মাথায় পড়ছে। এই বিদ্যালয়ে বর্তমানে ১১ শ’ শিক্ষার্থী নিয়মিত ভাবে ক্লাসে উপস্থিত হয় বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের সভাপতি রায়হান উদ্দিন মাছুম বলেন, আমি সম্প্রতি বিদ্যালয়ের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছি। বিদ্যালয়টি অবহেলিত হওয়ার ফলে দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন সমস্যায় জর্জড়িত হয়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য বিদ্যালয়ের সমস্যার কথা জানার পর তাৎক্ষণিক ভাবে সংস্কার কাজের জন্য ১৭ লাখ টাকা অনুদান অনুমোদন করেন। তবে অবিলম্বে বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা না হলে শিক্ষা কার্যক্রমের ব্যাঘাত ঘটবে।


আরো সংবাদ