২১ মে ২০২২
`
স্ম র ণ

স্মরণীয় ব্যক্তিত্ব মাওলানা শামসুদ্দীন (রহ:)

-

কিছু মানুষ জীবন থেকে হারিয়ে গিয়েও অমর হয়ে থাকেন। তারা সমাজ, রাষ্ট্র ও জাতির জন্য পথপ্রদর্শক হয়ে থাকেন। চট্টগ্রামের বিরল ব্যক্তিত্ব মাওলানা মুহাম্মাদ শামসুদ্দীন ছিলেন সমসাময়িক কালের বাতিঘর। শিক্ষা, চিকিৎসা ও সমাজসেবায় তিনি ছিলেন আলোকবর্তিকা।
এ মহৎ ব্যক্তি ১৯৩১ সালের পয়লা মার্চ মিরসরাই উপজেলার উত্তর হাইতকান্দি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা ছিলেন মুহাম্মদ সেকান্দর মাস্টার। প্রাইমারি শিক্ষা শেষে তিনি চট্টগ্রামের প্রাচীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কাজেম আলী হাইস্কুল থেকে দশম শ্রেণী পাস করে মিরসরাই সুফিয়া নুরীয়া সিনিয়র মাদরাসা থেকে আলিম-ফাজিল এবং ছারছিনা আলিয়া মাদরাসা থেকে প্রথম শ্রেণীতে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করে কামিল পাস করেন। তিনি চট্টগ্রামের জামিয়া আহমদিয়া আলিয়া মাদরাসায় ১৯৫৬-৫৭ দুই বছর হেড মাওলানা এবং ছোবহানিয়া আলিয়া মাদরাসায় দীর্ঘ এক যুগ মুহাদ্দিস ও ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল ছিলেন। রাজনীতিক ময়দানে তিনি ১৯৫৬-২০৫৫ পর্যন্ত ইসলামী আন্দোলনের বিভিন্ন স্তরে দায়িত্ব পালন করেন। ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে ১৯৭৭ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৩৩ বছর তিনি চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সমাজসেবা, সমাজ কল্যাণ ও আর্তমানবতার খেদমতে অনন্য ভূমিকা পালন করেন। তিনি চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ডাইরেক্টর ছিলেন। চট্টগ্রাম ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজ প্রতিষ্ঠায় তার ভূমিকা ছিল অভিভাবকের। তিনি শাহ ওয়ালিউল্লাহ ইনস্টিটিউট, আল জাবের ইনস্টিটিউট, জামান আনোয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজ, আবু হুরায়রা মাদরাসা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শিক্ষা খাতে অসাধারণ অবদান রাখেন।
মাওলানা শামসুদ্দীন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় ঈদ জামাত কমিটির সহসভাপতি, জিলা চাঁদ দেখা কমিটির আজীবন সদস্য, চট্টগ্রাম ডায়বেটিক অ্যাসোসিয়েসনের আজীবন সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি দীর্ঘ দিন চট্টগ্রাম দারুল উলুম আলিয়া মাদরাসার সহসভাপতি ছিলেন। ইসলামের প্রচার ও প্রসারে তার ত্যাগ ও কোরবানি অপরিসীম। তাফসিরুল কুরআন মাহফিল আয়োজন করে চট্টগ্রামের তথা বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মানুষের কাছে কুরআনের দাওয়াত পৌঁছাতে তিনি নিরলস প্রচেষ্টা চালান।
২৬ জানুয়ারি ২০২১ তার একাদশতম মৃত্যুবার্ষিকী। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে তার রূহের মাগফিরাত কামনা করছি। আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুন। আমিন।
লেখক : অধ্যাপক লিয়াকত আখতার ছিদ্দিকী


আরো সংবাদ


premium cement