০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯, ৯ রজব ১৪৪৪
ads
`

বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে জামায়াতের বিবৃতি

-

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা: শফিকুর রহমান ১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে এক বিবৃতি প্রদান করেছেন।

শুক্রবার দেয়া ওই বিবৃতিতে জামায়াত আমির বলেন, ‘১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস। ১৯৪৮ সালের এই দিনে জাতিসঙ্ঘের সাধারণ পরিষদে মানবাধিকারের সর্বজনীন ঘোষণাপত্র গৃহীত হয়। ১৯৫০ সালে এই দিনটিকে জাতিসঙ্ঘ বিশ্ব মানবাধিকার দিবস হিসেবে ঘোষণা দেয়। সেই থেকে বিশ্বজুড়ে এ দিনটি মানবাধিকার দিবস হিসেবে পালিত হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ফিলিস্তিন, কাশ্মীর, মিয়ানমারসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মানবাধিকার চরমভাবে লঙ্ঘিত হচ্ছে। জাতি আজ এমন এক সময় দিবসটি পালন করতে যাচ্ছে, যখন দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন, মানবাধিকার বলতে কিছু নেই। মানুষের ভোটাধিকার, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা কেড়ে নেয়া হয়েছে। বিরোধী মতের কণ্ঠকে স্তব্ধ করে দিয়ে একদলীয় শাসন কায়েম করা হয়েছে। বিচারব্যবস্থা ও আইনের শাসনকে ভূলুণ্ঠিত করা হয়েছে। মানুষের জানমাল, ইজ্জত-আব্রুর আজ কোনো নিরাপত্তা নেই। দেশে প্রতিনিয়ত গুম, খুন, হত্যা, ধর্ষণ এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে।

সরকার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির বিশ্ববরেণ্য মোফাসসিরে কুরআন আল্লামা দেলাওয়ার হেসাইন সাঈদী, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ এ টি এম আজহারুল ইসলাম ও সাবেক এমপি আব্দুল খালেক মণ্ডলকে বিচারের নামে প্রহসনের আয়োজন করে দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে আটক রেখেছে। বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান ও সাবেক এমপি শাহজাহান চৌধুরীসহ বিরোধী দলীয় শীর্ষ রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক মিথ্যা মামলা দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তার চিকিৎসার মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য জনাব মির্জা আব্বাসসহ অনেক নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী জানুয়ারি ২০২২ থেকে অক্টোবর ২০২২ পর্যন্ত গত ১০ মাসে দেশে নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তিন হাজার ৬৭ জন। এর মধ্যে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৮৩০ জন, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৩৯ জনকে। আত্মহত্যা করেছেন সাতজন।

২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নয় মাসে দেশে বিচারবহির্ভূতভাবে ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হেফাজতে নিহত হয়েছেন ১৫ জন। নয় মাসে ৩৮৭টি রাজনৈতিক সঙ্ঘাত ও সহিংসতার ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৫৮ জন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন পাঁচ হাজার ৪০০ জনের মতো।

এ সময় দুটি পৃথক ঘটনায় হিন্দু সম্প্রদায়ের চারটি ঘরসহ আটটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে দুর্বৃত্তদের হামলার ঘটনা ঘটে। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলি, নির্যাতন ও ধাওয়ায় নিহত হন ১২ বাংলাদেশী।

গত জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন ৬৬ জন সাংবাদিক। আসকের তথ্য মতে, আরো ১৭৯ জন সাংবাদিক বিভিন্নভাবে নির্যাতন, হয়রানি, হুমকি, মামলা ও পেশাগত কাজ করতে গিয়ে বাধার সম্মুখীন হয়েছেন। এছাড়া দুর্বৃত্তদের গুলিতে কুমিল্লায় একজন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। এ তথ্যগুলো দৈনিক পত্রিকা থেকে সংগ্রহ করা হলেও বাস্তবে এ সংখ্যা হবে আরো অনেক বেশি।

বিশ্ব মানবাধিকার দিবসের এই দিনে আটক সকল রাজনৈতিক নেতাদেরকে মুক্তি দেয়ার জন্য আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। সেই সাথে দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন, ভোটাধিকারসহ মৌলিক মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় দলমত নির্বিশেষে আপামর জনতাকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’


আরো সংবাদ


premium cement
পুনরায় বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর তীব্র প্রতিবাদ বিএনপির জাপার বিদ্রোহীরা রওশনের নেতৃত্বে ২০১৪ সালের নির্বাচনে যায় : চুন্নু জাতির সঙ্কটময় মুহূর্তে খন্দকার মাহবুব হোসেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে ব্যাংক থেকে আড়াই কোটি টাকা আত্মসাৎ বিদেশে শ্রমিক নিয়োগের বিধি-বিধান শক্তিশালী করতে হবে : মোরালেস এমপি রহমতুল্লাহ’র পকেটে আহলে হাদিসের দুই কোটি ভোট মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক ২ আসামি গ্রেফতার দলের নাম ভাঙিয়ে অপকর্মকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ উপ-নির্বাচন ঘিরে ’নাটকীয়তা’ বিপিএলে ইতিহাস গড়ে জয় কুমিল্লার খেলার মাঠে দেয়াল দিয়ে প্রবেশাধিকার সংকুচিত করা হচ্ছে

সকল