১৩ আগস্ট ২০২২
`

শিক্ষার সর্বস্তরে ধর্মশিক্ষা বাধ্যতামূলক করতে হবে : সেলিম উদ্দিন

রাজধানীতে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহনগরী উত্তরের বিক্ষোভ মিছিল - ছবি : নয়া দিগন্ত

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহনগরী উত্তরের আমির মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেছেন, সরকার দেশ থেকে ইসলাম ও ইসলামী মূল্যবোধ ধ্বংস করে জাতিকে ধর্মবিমুখ করার জন্য গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। সে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবেই আলেম-উলামাদের ওপর নির্যাতনসহ সরকার মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত ধর্মীয় শিক্ষাকে ঐচ্ছিক করে ধর্মহীন শিক্ষানীতি প্রণয়ন করেছে। সরকারের এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে নতুন প্রজন্ম ধর্মবিমুখ ও মূল্যবোধহীন হয়ে পড়বে।

তিনি অবিলম্বে সরকারের গৃহীত নতুন শিক্ষানীতি বাতিল, শিক্ষার সর্বস্তরে ধর্মশিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করে নতুন করে শিক্ষানীতি প্রণয়ন ও কারাগারে অন্তরীণ সকল আলেমদের ঈদের আগেই নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন। অন্যথায় বিষয়টি রাজপথেই ফয়সালা করা হবে।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) রাজধানীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তর আয়োজিত ধর্মহীন শিক্ষনীতি বাতিল ও শিক্ষার সকল স্তরে ধর্মীয় শিক্ষা বাধ্যমূলক করা এবং ঈদের আগেই কারাবন্দি সকল আলেম-উলামাসহ জাতীয় নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এক বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

বিক্ষোভ মিছিলটি মিরপুর-১ ওভারব্রিজ থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাংলা কলেজের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সেক্রেটারি ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারি সেক্রেটারি লস্কর মোহাম্মদ তসলিম, মাহফুজুর রহমান, নাজিম উদ্দীন মোল্লা ও ডা: ফখরুদ্দীন মানিক এবং ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য জিয়াউল হাসান, ইয়াছিন আরাফাত, মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ ও জামাল উদ্দীন, ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিসে শূরা সদস্য নাসির উদ্দীন, আব্দুল মান্নান, মিজানুল করীম, আব্দুল মতিন খান ও ডা: মাঈন উদ্দিন, ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর ও সাব্বির প্রমুখ।

তিনি বলেন, দ্বীনের প্রচার-প্রসার এবং দেশে ও জাতির কল্যাণে আলেম সমাজ অসামান্য অবদান রাখলেও সরকার দেশবরেণ্য আলেমদের ওপর জুলুম-নির্যাচন চালাচ্ছে। সে ধারাবাহিকতায় নায়েবে আমির, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মুফাসসিরে কুরআন ও সাবেক এমপি মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি মাওলানা আনম শামসুল ইসলাম, সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এ টি এম আজহারুল ইসলাম, সাবেক এমপি অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল খালেক মণ্ডল, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান, চট্টগ্রাম মহানগরীর নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি শাহজাহান চৌধুরীসহ জামায়াতের অনেক নেতৃবৃন্দকে মিথ্যা মামলায় দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে অন্তরীণ রেখেছে।

সেলিম উদ্দিন আরো বলেন, মূলত সরকার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে রাজনৈতিক ও আদর্শিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে দেশবরেণ্য আলেম-উলামা ও জাতীয় নেতাদের সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে আটক করে রেখেছে। তিনি সরকার প্রতিহিংসার রাজনীতি পরিহার করে অবিলম্বে কারান্তরীণ আলেম-উলামাসহ জাতীয় নেতাদের ঈদের আগেই নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করেন। অন্যথায় জনতার নেতাদের জনতাই মুক্ত করে ছাড়বে ইনশাআল্লাহ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি


আরো সংবাদ


premium cement