১৩ আগস্ট ২০২২
`

বন্যা ও দুর্যোগের শিকার মানুষেরাও আমাদের ভাই : মতিউর রহমান আকন্দ

বন্যা ও দুর্যোগের শিকার মানুষেরাও আমাদের ভাই : মতিউর রহমান আকন্দ - ছবি : সংগৃহীত

দুনিয়ার সব মুসলিম একে অপরের ভাই। বন্যা ও দুর্যোগের শিকার মানুষেরাও আমাদের ভাই। জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে আমরা বন্যা বিধ্বস্ত ভাইবোনদেরকে দেখতে এসেছি বলে মন্তব্য করেছেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দ।

শুক্রবার জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে হাতিভাঙা ইউনিয়নে দুর্গতদের মাঝে খাদ্য ও উপহার সামগ্রী বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, বন্যাকবলিত বিভিন্ন এলাকায় জামায়াতে ইসলামীর খাদ্য ও উপহার সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। ২৩ জুন বন্যাকবলিত দেওয়ানগঞ্জের চিকাজানী ইউনিয়নের বৌলাতলী, খোলাবাড়ি ও ইসলামপুর উপজেলার সাপধরি, নোয়ারপাড়া ইউনিয়নে বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শন করে খাদ্য ও উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা: শফিকুর রহমান। এরপর থেকে বন্যাকবলিত এলাকায় খাদ্য ও উপহার সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত আছে। ইতোমধ্যে উজানের পানি নেমে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও জামায়াতের পক্ষ থেকে বিভিন্নমুখী কল্যাণ কার্যক্রম চলমান আছে।

তিনি বলেন, আল্লাহর ওপর আস্থা রেখে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে হবে। গণমানুষের সংগঠন হিসেবে জামায়াত সব দুর্যোগ সংগ্রামে দেশবাসীর সাথে অতীতে যেমন ছিল, এবারও সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, নেত্রকোনার বন্যায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে।

দেশের উত্তরাঞ্চলে কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নীলফামারীসহ বন্যাকবলিত সব জেলায় জামায়াতের কর্মীরা সাধ্যানুযায়ী জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে। জামায়াতের আমির বন্যায় নদী ভাঙন ও বিপর্যস্ত মানুষের অবস্থা দেখতে জামালপুর জেলায় সফর করেছেন। সরকারের উচিত প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সবাইকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে জাতীয় স্বার্থে কাজ করা। কিন্তু জনগণের প্রতি দায় না থাকায় সরকার তা করতে ব্যর্থ হচ্ছে।

জামায়াতের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সেক্রেটারি ও ময়মনসিংহ অঞ্চলের বন্যা সহায়তা সমন্বয়ক ড. ছামিউল হক ফারুকী বলেন, জামায়াত এমনই একটি কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করছে, যেখানে ইনসাফ ও ন্যায়ভিত্তিক অর্থনৈতিক সুষম বণ্টন নিশ্চিত হবে। এর গ্যারান্টি দিয়েছে ইসলাম। কুরআন ও সুন্নাহই সুখ ও শান্তির নিশ্চয়তা দিতে পারে। তাই জামায়াত ইসলামের পদ্ধতিকেই সমাজ বদলের মাধ্যম হিসেবে গ্রহণ করে কাজ করছে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন কাঠার বিল হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক হাফিজুর রহমান ও স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম।

উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও জামালপুর জেলা আমির অ্যাডভোকেট নাজমুল হক সাঈদী, জেলার ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট আবদুল আওয়াল, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা আমির অধ্যাপক মাওলানা মাহবুবুর রহমান তালুকদার, উপজেলা সেক্রেটারি কাজী আতিকুর রহমান, ইসলামী ছাত্রশিবিরের জেলা সভাপতি সামাউন সরকার ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা সভাপতি হাসান আল বান্নাসহ জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ এবং স্থানীয় সমাজকর্মীরা।


আরো সংবাদ


premium cement