০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, ৫ জিলহজ ১৪৪৩
`

সৎপথে চলার জন্য রাসুল সা.-এর পদাঙ্ক অনুসরণের বিকল্প নেই : মাওলানা মাসুম

সৎপথে চলার জন্য রাসুল সা.-এর পদাঙ্ক অনুসরণের বিকল্প নেই : মাওলানা মাসুম - নয়া দিগন্ত

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এ টি এম মাসুম বলেছেন, ইসলাম হচ্ছে কালজয়ী আদর্শ যার মূর্ত প্রতীক মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। তিনি সার্বজনীন ও শেষ নবী। কিয়ামত পর্যন্ত যারাই সৎ পথে চলতে চাইবে তাদের নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পদাঙ্ক অনুসরণ করতে হবে।

তিনি আজ বুধবার রাজধানীর এক মিলনায়তনে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির আয়োজিত ‘সিরাতুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উদযাপন উপলক্ষে জাতীয় সিরাত পাঠ প্রতিযোগিতা ২০২১ এর পুরস্কার প্রদান’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। কেন্দ্রীয় সভাপতি রাশেদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি
জেনারেল রাজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় আয়োজনে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি দেলাওয়ার হোসাইন। এসময় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও পুরস্কারপ্রাপ্তরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাওলানা এ টি এম মাসুম বলেন, পৃথিবীতে যুগে যুগে বহু নেতার আগমন হয়েছে। যাদের জীবনাদর্শ অনেক দিক দিয়ে অনুসরণযোগ্য হলেও বহু দিক ছিল বর্জনীয়। কিন্তু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জীবনের সর্বক্ষেত্রই অনুরসরণ যোগ্য। তিনি ইসলামের বাস্তব নমুনা। যা স্বয়ং আল্লাহ
তায়ালা ঘোষণা করেছেন। অথচ মুসলিমরা আজ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আদর্শের জায়গা থেকে দূরে সরে গিয়েছে। ফলে অসৎ, নোংরা নেতৃত্বের কবলে পড়ে মুসলিম উম্মাহ ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। এ অবস্থার পরিবর্তনে প্রথমে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সিরাত চর্চা করতে হবে এবং সে অনুযায়ী
সার্বিক জীবন সাজাতে হবে। আজকের ছাত্রদের কুরআন-সুন্নাহর আলোকে রাষ্ট্র ও সমাজ পরিচালনার জন্য যোগ্য হয়ে গড়ে উঠতে হবে। তারুণ্যের শক্তিকে ইসলামের পক্ষে ব্যয় করতে হবে। এ জন্য জ্ঞানের গভীরতা বাড়াতে হবে। সমাজ-রাষ্ট্র কুরআন ও হাদিসের আলোকে পরিচালিত হবে, এটাই হবে একজন মুসলমানের কাছে শেষ কথা। আজকের বিজয়ীদের পুরস্কার আসল পুরস্কার নয়। মূল পুরস্কার আপনারা আখেরাতে পাবেন ইনশাআল্লাহ।

আল্লাহ তায়ালা এ আয়োজনকে কবুল করুন এবং পুরস্কার প্রাপ্তদের জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে আগামী দিনের ইসলামী রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য যোগ্যতা দান করুন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি দেলাওয়ার হোসেন বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সিরাত চর্চা ও অনুসরণ শুধু মুসলমানদের জন্য নয় বরং পুরো মানবজাতির জন্য প্রযোজ্য। এর আগে সকল নবী-রাসূল সা.দের পাঠানো হয়েছিল নির্দিষ্ট কওমের কাছে আর মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে পাঠানো হয়েছে সমগ্র মানবজাতি জন্য। বিশ্ব ইতিহাসে বহু দার্শনিক, বিজ্ঞানী, নেতা, সাহিত্যিক, শাসকের নাম রয়েছে। তারা সমসাময়িক কালে উল্লেখযোগ্য অবস্থান তৈরি করেছেন। কিন্তু তারা কেউই পূর্ণাঙ্গ মানবতার কল্যাণ প্রতিষ্ঠা ও পথপ্রদর্শক হতে পারেনি। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সেই যুগকে
পরিবর্তন করে মানবতার ইতিহাসের সোনালি সময় উপহার দিয়েছিলেন যেই সময়টা মানব সভ্যতার ইতিহাসে অন্ধকারের যুগ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ছিল। আজ প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশেও জাহেলিয়াতের ছায়া দেখা যাচ্ছে। অনাচার, অবিচার, দূর্নীতি অপশাসন, নিরাপত্তাতাহীনতা, বেহায়াপনা, প্রতিহিংসা, অনৈতিকতাসহ সার্বিক পরিস্থিতি ভয়াবহ রুপ ধারণ করেছে। অসৎ লোকের শাসনের কারণে চারদিকে হাহাকার চলছে। অথচ বাংলাদেশ মুসলিমপ্রধান দেশ। কিন্তু রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আদর্শ রাষ্ট্র-সমাজে না থাকায় জাতিকে যুগের পর যুগ ভোগতে হচ্ছে। এ অবস্থার পরিবর্তন করতে হবে। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যেভাবে ঐ সমাজকে আমূল পরিবর্তন করেছিলেন, ঠিক সেভাবে অন্যায় জুলুম মূলচ্ছেদ করে সমাজে শান্তি
প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আর তা করতে হবে জীবনের সার্বিক ক্ষেত্রে কুরআন ও রাসূল সা. আদর্শ বাস্তবায়নের মাধ্যমেই।

কেন্দ্রীয় সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বলেন, সর্বত্র হতাশা, অবিশ্বাস, আত্মবিশ্বাসহীনতা, হিংস্রতা, অত্যাচারি মনোভাব, বেহায়পনা, হত্যাযজ্ঞ, বৈষম্য ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যা জাহেলিয়াতের প্রতিচ্ছবি। সমাজ-রাষ্ট্রে শুধু
ইসলামের অনুপস্থিতি নয় বরং নিত্য নতুন ইসলাম বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র চলছে।

বিপ্লব, জিহাদ নানা সময়ে মানবতাকে মুক্তি দিয়েছে। অথচ আজ এই শব্দগুলোকে পরিকল্পিতভাবে অপপ্রচারের মাধ্যমে মানুষের কাছে ভয়ঙ্কর হিসেবে উপস্থাপন করা হচ্ছে। এসবের দাত ভাঙ্গা জবাব দিতে জ্ঞান চর্চা বৃদ্ধি, বাস্তব জীবনে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আদর্শ অনুসরণ করতে হবে। রাসূল সাল্লাল্লাহু
আলাইহি ওয়াসাল্লাম জাহেলিয়াতের ঘুণেধরা সমাজকে পরিবর্তন করেছিলেন আমাদের লক্ষ্য উদ্দেশ্যেও সেটাই হতে হবে। একজন মুসলিমের এ ছাড়া আর বিকল্প কোনো পথ নেই। কেননা মহান আল্লাহ তায়ালা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আদর্শকে নির্ধারণ করে দিয়ে বলেছেন, রাসূল তোমাদের যা কিছু দেয় তা গ্রহণ কর, আর যা থেকে বিরত রাখে তা থেকে বিরত থাকো। (সুরা হাশর, আয়াত-৭)। আমরা সৌভাগ্যবান যে আমরা সেই শ্রেষ্ঠ নবীর উম্মত। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আদর্শ বাস্তবায়নে আদর্শিক নাগরিক তৈরির উদ্দেশ্যেই আজকের এ আয়োজন। আমাদের এমন আয়োজন আগামীতেও অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি


আরো সংবাদ


premium cement
মিরসরাইয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু সিডনিতে বন্যা : ৫০ হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে যাওয়ার নির্দেশ মণিপুরে ভূমিধসে নিহত বেড়ে ৪৭ বৃদ্ধের পায়ুপথে টর্চলাইট ঢুকিয়ে নির্যাতন : আরো ১ জন গ্রেফতার ইসরাইলের ‘ছোঁড়া গুলিতে’ নিহত হয়েছেন আবু আকলেহ : যুক্তরাষ্ট্রের তদন্ত ঈদযাত্রার প্রথম দিনেই দেড় ঘণ্টা দেরিতে ট্রেন লোডশেডিংয়ে দেশে কেন এই দুর্বিষহ পরিস্থিতি, প্রশ্ন রিজভীর ভারতে করোনার নয়া প্রজাতির হানা! দাবি ইসরাইলের বিজ্ঞানীর সামনে কোরবানির ঈদ, তাই ব্যস্ত লালমোহনের কামারশিল্পীরা চীনের আনহুই প্রদেশে ১৭ লাখ মানুষ লকডাউনে আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তা পাঠিয়েছে বাংলাদেশ

সকল