১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতি, সিলেটে জামায়াতের বিক্ষোভ


সিলেট মহানগর জামায়াত নেতারা বলেছেন, নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনজীবন অতিষ্ঠ হতে চলেছে। নিত্য প্রয়োজনীয় সকল দ্রব্য আজ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে। কিন্তু মানুষের আয় রোজগার কমতেই আছে। করোনা মহামারীর কারণে অনেক মানুষ কর্মহীন হয়েছে। তারা এখনো তাদের কাজ ফিরে পায়নি। দ্রব্যমূল্যের অতিরিক্ত ঊর্ধ্বগতির কারণে শ্রমজীবী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার কার্যকর কোনো উদ্যোগ গ্রহণ না করায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে পণ্যের দাম। ঠিকমতো দুমুঠো ভাত খেতে না পেরে সন্তানের মুখে আহার দিতে না পেরে দেশের বিভিন্ন স্থানে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে। এভাবে কোনো দেশ চলতে পারে না। কথিত উন্নয়নের বুলি শুনতে শুনতে মানুষের এখন বিতৃষ্ণা এসে গেছে। মানুষ দুমুঠো খেয়ে বাঁচতে চায়। অবিলম্বে নিত্যপণ্যের দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিরোধে সরকারকে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। অন্যথায় দেশে দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে, মানুষ রাস্তায় নেমে পড়বে। যা নিয়ন্ত্রণ করা সরকারের পক্ষে সম্ভব হবে না।

বৃহস্পতিবার জামায়াত কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিলেট মহানগর জামায়াত আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।

মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন- মহানগর জামায়াতের মোহাম্মদ শাহজাহান আলী, জামায়াত নেতা হাফিজ মশাহিদ আহমদ, রফিকুল ইসলাম, পারভেজ আহমদ ও বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির সিলেট মহানগরী সভাপতি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

নেতারা বলেন, আওয়ামী শাসনে মানুষ আজ অতিষ্ঠ। দেশে নিরব দুর্ভিক্ষ চলছে। কিন্তু সরকার কথিত উন্নয়নের বুলি দিয়ে মানুষকে অনাহারে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। চাল, ডাল, তেল, পেঁয়াজ, চিনি থেকে শুরু করে এমন কোনো পণ্য নেই যার মূল্য কয়েকগুণ বাড়েনি। অথচ সরকার এ ব্যাপারে নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে নিজেদের গদি বাঁচানোর চেষ্টায় আছে। দেশ ও দেশের মানুষকে নিয়ে সরকারের কোনো মাথাব্যথা নেই। এই অবস্থা চলতে দেয়া যায় না।
বিজ্ঞপ্তি



আরো সংবাদ