১৩ আগস্ট ২০২২
`

শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শোক

শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শোক -

দিগন্ত মিডিয়া করপোরেশনের চেয়ারম্যান, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের সাবেক চেয়ারম্যান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর, অধুনা বিলুপ্ত দুর্নীতি দমন ব্যুরোর সাবেক মহাপরিচালক ও সাবেক সচিব শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার দুপুরে বিএনপি'র সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবার্তায় তিনি গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন।

শোকবার্তায় বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘শাহ আবদুল হান্নান ছিলেন একজন ইসলামী চিন্তাবিদ, শিক্ষাবিদ, লেখক, অর্থনীতিবিদ ও সমাজসেবক। কর্মজীবনের প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে বিচক্ষণতা, সততা ও ন্যায়-নীতির কারণে তিনি সর্বমহলে ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধাভাজন। বহুগুণে গুনান্বিত শাহ আবদুল হান্নান দায়িত্ব পালনে কখনোই ন্যায়-নীতির আদর্শ থেকে বিচ্যুত হননি এবং অন্যায়কে প্রশ্রয় দেননি। কীর্তিমান এই মানুষটি তার কর্মের মাধ্যমেই দেশবাসীর কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তার মৃত্যুতে আমি তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি। দোয়া করি মহান রাব্বুল আ’লামীন যেন তাকে জান্নাত নসিব এবং শোক বিহব্বল পরিবারবর্গকে ধৈর্য ধারণের ক্ষমতা দান করেন। আমি তার রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গ, গুণগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।’

ঢাকা মহানগরী উত্তর জামায়াতের শোক
শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরে আমির মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন।

এক শোকবাণীতে তিনি বলেন, মরহুম শাহ আব্দুল হান্নান ছিলেন বিরল প্রতিভার অধিকারী ক্ষণজন্মা এক মহান পণ্ডিত ব্যক্তিত্ব। তিনি বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূণ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে অত্যন্ত সততার সাথে দায়িত্ব পালন করে গেছেন। এই কর্মদ্বীপ্ত ব্যক্তি যোগ্যতা, সফলতা, দক্ষতার সাথে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ও ইবনে সিনা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর হিসাবেও ছিলেন সফল ও স্বার্থক। এ ছাড়াও তিনি দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তা। তিনি গণমানুষের কল্যাণ ও সমাজসেবায়ও ছিলেন কর্মতৎপর ব্যক্তিত্ব। তার মৃত্যুতে দেশের বুদ্ধিভিত্তিক আদর্শ চর্চার অঙ্গণে যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা সহজেই পূরণীয় নয়।

তিনি বলেন, মরহুম তার ক্ষুরধার লেখনীর মাধ্যম ইসলামের সুমহান আদর্শকে উচ্চকিত করার চেষ্টা করে গেছেন। তিনি তার লেখনীতে সমকালীন যুগজিজ্ঞাসার জবাবে বেশ প্রজ্ঞার পরিচয় দিয়েছেন। শাহ আব্দুল হান্নান সবসময় অনাড়ম্বর জীবনযাপন করতেন। তার সারল্য, চরিত্রমাধুর্য্য ও ব্যক্তিত্ব ছিল খুবই হৃদয়গ্রাহী, আকর্ষণীয় ও অনুকরণীয়। মহানগরী আমির মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা ও তাকে জান্নাতে উচ্চ মাকাম দানের জন্য মহান আল্লাহ তায়ালার দরকারে দোয়া করেন। একইসাথে তার শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান ও তাদের ধৈর্য্য ধারণের তাওফিক কামনা করেন।

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ জামায়াতের শোক

বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সচিব ও বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ শাহ আবদুল হান্নান ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ শাখা। জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুল এবং কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ এক বার্তায় এ শোক প্রকাশ করেন।

যৌথ শোকবার্তায় তারা মরহুম শাহ আবদুল হান্নানের রূহের মাগফেরাত কামনা করেন ও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তারা মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের কাছে দোয়া করেন, আল্লাহ যেন তার নেক আমলগুলো কবুল করে তাকে জান্নাতবাসী করেন। একইসাথে তার শোকাহত পরিবার ও স্বজনদেরকে ধৈর্য্য ধারণ করার তৌফিক দান করেন।

লেবার পার্টির শোক
শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা: মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান এস এম ইউসুফ আলী ও মাহবুবুর রহমান খালেদ।

ছাত্রশিবিরের শোক
শাহ আব্দুল হান্নানের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। 

এক যৌথ শোকবার্তায় ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি সালাহউদ্দিন আইউবী ও সেক্রেটারি জেনারেল রাশেদুল ইসলাম বলেন, গত ৮ মে থেকে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র- আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন, ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাইহি রাজিউন। তার ইন্তেকালে জাতি একজন সৎ, দক্ষ ও অভিজ্ঞ দেশপ্রেমিক ব্যক্তিত্বকে হারালো। তিনি রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ইসলামী চিন্তাবিদ, লেখক, কলামিস্ট ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হিসেবে সবার কাছে সমাদৃত ছিলেন। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান থাকাকালে তিনি ভ্যাট ব্যবস্থা চালুর প্রস্তাবনা দেন সরকারকে, যা রাষ্ট্রের জন্য এক অভাবনীয় সহায়ক বিষয়ে পরিণত হয়। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ আমলা হিসেবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ব্যাংকিং, শিক্ষা ও সমাজসেবা সেক্টরে তার অবদান অনন্য। তিনি ইসলামিক ইকনোমিক রিসার্স ব্যুরো, বাংলাদেশ ইসলামিক ইনস্টিটিউট অব থটের স্বপ্নদ্রষ্টাদের অন্যতম। তিনি আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামের ভিসি ছিলেন। জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত দেশের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। দেশে নানা সঙ্কটকালে তিনি সততা, দক্ষতা ও সফলতার সাথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। দেশ ও জাতির জন্য তার অবদান আমরা কখনোই ভুলব না। তার ইন্তেকালে আমরা গভীরভাবে শোকাহত।

আমরা আল্লাহ তায়ালার কাছে তার রূহের মাগফিরাত কামনা করছি ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

তার ইন্তেকালে জ্ঞান চর্চায় শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে
বিদগ্ধ লেখক শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে জ্ঞান চর্চায় শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে নারী অধিকার আন্দোলন। সংগঠেনে সভানেত্রী অধ্যাপিকা চেমন আরা ও সেক্রেটারি প্রফেসর ডা: হাবিবা চৌধরী সুইট এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন।

বিবৃতিতে নারী অধিকারের শীর্ষনেত্রীরা বলেন, মরহুম শাহ আব্দুল হান্নান ছিলেন বাংলাদেশের প্রবাদ পূরুষ। তিনি তার পাণ্ডিত্যপূর্ণ লেখনীর মাধ্যমে দেশ, জাতি ও ইসলামের কল্যাণে আজীবন নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। তিনি নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় সবসময় সোচ্চার ভূমিকা পালন করেছেন। নারী জাতির অগ্রায়ণ ও মুক্তির জন্য বিভিন্ন প্রবন্ধ-নিবন্ধ লিখে নারীদের আত্মসচেতন করার প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালিয়ে গেছেন।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, শাহ আব্দুল হান্নান বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে অত্যন্ত সততার সাথে দায়িত্ব পালন করে গেছেন। তিনি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর হিসেবেও ছিলেন সফল ও স্বার্থক। এ ছাড়াও তিনি দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তা। তিনি গণমানুষের কল্যাণ ও সমাজসেবায়ও ছিলেন কর্মতৎপর। তার মৃত্যুতে জ্ঞান চর্চায় যে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে তা সহজেই পূরণীয় নয়।

তারা বলেন, শাহ আব্দুল হান্নান ছিলেন অন্যন্য সাধারণ মেধা, মনন ও মনীষার অধিকারী। তিনি তার লেখার মাধ্যম ইসলামের সুমহান আদর্শকে মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন। শাহ আব্দুল হান্নান ছিলেন অতিবিনয়ী, আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব ও বিরল প্রতিভার অধিকারী।

নারী অধিকারের নেত্রীদ্বয় মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করেন ও তার শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

বাংলাদেশ যুব মিশন
সাবেক সচিব ও এনবিআরের চেয়ারম্যান, ইবনে সিনা ট্রাষ্ট্র ও দিগন্ত মিডিয়া করপোরেশনের চেয়ারম্যান শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে গভীর শোক জানিয়েছেন বাংলাদেশ যুব মিশন আহবায়ক ইমরুল কায়েস ও সদস্য সচিব শওকত হোসেন চৌধুরী।

বাংলাদেশ ছাত্র মিশন
সাবেক সচিব ও এনবিআরের চেয়ারম্যান, ইবনে সিনা ট্রাষ্ট্র ও দিগন্ত মিডিয়া কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান শাহ আবদুল হান্নানের ইন্তেকালে গভীর শোক জানিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র মিশন সভাপতি সৈয়দ মো: মিলন ও সাধারণ সম্পাদক মো: শরিফুল ইসলাম।

বরেণ্য ইসলামী চিন্তাবিদ শাহ আবদুল হান্নান একজন অর্থনীতিবীদ ও সমাজ সেবক ছিলেন উল্লেখ করে নেতৃবর্গ বলেন, তিনি আমৃত্যু ইসলাম, দেশ ও মানবতার জন্য কাজ করে গেছেন। মহান আল্লাহ নেক কাজের উছিলায় তাকে জান্নাতুল ফেরদাউসের মেহমান হিসাবে কবুল করুন। আমিন।


আরো সংবাদ


premium cement