২২ জুন ২০২১
`

এখনো ঝুঁকিমুক্ত নন খালেদা জিয়া

এখনো ঝুঁকিমুক্ত নন খালেদা জিয়া - ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সদ্য করোনা মুক্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতি হলেও তিনি এখনো পুরোপুরি ঝুঁকিমুক্ত নন।

চিকিৎসকরা বলছেন, করোনা আক্রান্ত রোগীর শারীরিক নানা জটিলতা দেখা দিয়ে থাকে। খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রেও সে জটিলতা দেখা দিয়েছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে উন্নতি হলেও করোনা পরবর্তী জটিলতায় রোগীর শারীরিক অবস্থা বিভিন্ন দিকে টার্ন নিচ্ছে। সে কারণেই খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কা রয়েই গেছে। এ ছাড়া খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশযাত্রা আটকে দেয়ায় পরিবারের পাশাপাশি উদ্বিগ্ন দলের নেতাকর্মীরা। হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়েছেন মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

চিকিৎসকরা বলছেন, খালেদা জিয়া পোস্ট কোভিড জটিলতায় ভুগছেন। করোনা পরবর্তীতে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল। তার এখন দিনে দুই-তিন লিটার অক্সিজেন লাগছে। রক্ত দেয়ায় হিমোগ্লোবিনের মাত্রাও কিছুটা বেড়েছে। এখন তিনি স্বাভাবিক খাবার খাচ্ছেন। তার ফুসফুস থেকে তরল জাতীয় পদার্থ (ফ্লুইড) দুই দফা অপসারণ করা হয়। তার ডায়াবেটিস এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) মতো বয়সী রোগীদের ক্ষেত্রে করোনা পরে নানা জটিলতা দেখা দেয়। তার ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। তা ছাড়া ম্যাডামের আগে থেকেই বেশকিছু রোগ আছে। জেলখানা যাওয়ার পর সেগুলো আরো বেড়েছে। সব মিলিয়ে তার শারীরিক অবস্থা অবস্থা ভালো বলা যাবে না।

এ দিকে উন্নত চিকিৎসায় বিএনপি চেয়ারপারসনের বিদেশ যাওয়া আটকে যাওয়ায় বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফন্ট্রের নেতারাও এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

পরবর্তী করণীয় কী হবে এ নিয়ে পরিবারের পাশাপাশি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা আলোচনা করছেন।

বিএনপির একটি সূত্র জানায়, বেগম জিয়ার বিদেশ যাওয়া না হলে এভার কেয়ারের সিসিইউতেই আপাতত থাকছেন তিনি। তার ঈদুল ফিতরও কাটবে হাসপাতালে।

দুবাইতে খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় বিএনপির দোয়া : দুবাই আল আবির বিএনপির উদ্যোগে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত রোববার স্থানীয় দরবার রেস্টুরেন্টে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুহাম্মদ দিদারুল আলমের সভাপতিত্বে ওই দোয়া ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাত বিএনপির সভাপতি জাকির হোসেন।

দুবাই আল আবির বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন সোহেলের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাত বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম সংযুক্ত ইউএইর যুগ্ম আহবায়ক এম এনাম হোসেন, দুবাই বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন কন্ট্রাক্টর, আল আবির বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম দুবাইয়ের সহ-সভাপতি মুহাম্মদ আজিম উদ্দিন তালুকদার, আল আবির বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বৃহত্তর চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী ফোরাম দুবাইয়ের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক মন্জু, দুবাই বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ন কবির সুমন, আল আবির বিএনপির উপদেষ্টা সদস্য মুহাম্মদ শহিদ উল্লাহ ও মুহাম্মদ হাশেম, আল আবির বিএনপির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও আনোয়ারা জাতীয়তাবাদী ফোরামের সভাপতি ভিপি ইলিয়াছ আজম, দুবাই যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ও ইউএই প্রস্তাবিত যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক সেলিম আজাদ মুন্না, দুবাই যুবদলের সহ-সভাপতি ও প্রস্তাবিত ইউএই যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আলহাজ লোকমান হোসেন, ইউএই যুবদল নেতা কাজী মুহাম্মদ এরশাদ প্রমুখ।

দোয়া ও ইফতার মাহফিল-পূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বক্তারা বলেন, ফ্যাসিস্ট সরকারের দ্বৈতনীতি অনুসরণের কারণে বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা আদৌ হবে কি না সন্দেহ দেখা দিয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সব ষড়যন্ত্র বন্ধ করে অবিলম্বে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে প্রেরণ ও তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিও করেন বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

 



আরো সংবাদ