২২ জুন ২০২১
`

ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার জন্য জামায়াতের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে : ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ

ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার জন্য জামায়াতের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে : ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ - ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ সোমবার সকালে রাজধানীর খিলগাঁও এলাকায় ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে খাদ্য সামগ্রীসহ বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করেন। এ ছাড়াও রাজধানীর শাহবাগে আরেকটি পৃথক অনুষ্ঠানে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দেশের সকল মানুষের কল্যাণে কাজ করে। যেকোনো দুর্যোগ ও সঙ্কট মোকাবিলায় দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষের পাশে জামায়াতে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

খিলগাঁও পূর্ব ও পশ্চিম থানার যৌথ উদ্যোগে সোমবার সকালে রাজধানীর খিলগাঁও থানার গোড়ান এলাকায় ভিন্ন ধর্মালম্বীদের মাঝে তিনি এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।

খিলগাঁও পূর্ব থানা আমির মোহাম্মদ শাহজাহানের সভাপতিত্বে ও খিলগাঁও পশ্চিম থানা আমির এস এম জুয়েলের সঞ্চালনায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য শামছুর রহমান।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন খিলগাঁও পূর্ব থানা সেক্রেটারি আশরাফুল আলম ইমন, থানা কর্মপরিষদ সদস্য মাহমুদুর রহমান, খোরশেদ আলম মজুমদার ও সারোয়ার হোসাইন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

অপর দিকে শাহবাগ থানা জামায়াতের উদ্যোগে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় উপস্থিত থেকে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মাঝে তিনি এই ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেন।

জামায়াতে ইসলামীর শাহবাগ থানা আমির আহসান হাবীবের সভাপতিত্বে ঈদ সামগ্রী বিতরণে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সভাপতি মো: আব্দুস সালাম।

থানা সেক্রেটারি শাহ মুহাম্মদ মাহফুজুল হকের সঞ্চালনায় সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন নায়েবে আমির রহমতুল্লাহ ফরায়েজী, থানা কর্মপরিষদ সদস্য মুনিম খান ও মেসবাহ উদ্দিন সায়েম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

তিনি আরো বলেন, আমরা সকল ধর্মাবলম্বী মানুষের সুখে-শান্তিতে বসবাসের জন্য একটি নিরাপদ দেশ চাই, যেখানে রাষ্ট্রের নাগরিকদের মধ্যে কোনো বৈষম্য ও ভেদাভেদ থাকবে না। রাসুল সা:-এর মদিনা রাষ্ট্রের ইতিহাসে আমরা দেখতে পাই, সেখানে ইহুদি, খ্রিস্টানসহ সকল ধর্মের মানুষেরা সুখে-শান্তিতে নিরাপদে বসবাস করতে পারতেন, যার যার ব্যক্তিগত অধিকার সেখানে প্রতিষ্ঠিত ছিল। ইসলামী কল্যাণমূলক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা থাকার ফলেই তা বাস্তবায়িত হয়েছিল। মুহাম্মাদ সা:-এর আদর্শ ও ইসলামের সুমহান বিধানকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করতে পারলেই শান্তি ও কল্যাণ নিশ্চিত হবে। তিনি সকলকে সেই কাঙ্ক্ষিত সমাজ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধভাবে ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।



আরো সংবাদ