০৩ ডিসেম্বর ২০২০

২৮ অক্টোবর বাংলাদেশে যে দুর্বৃত্তায়নের যাত্রা শুরু হয়েছিল আজ জাতি তার কুফল ভোগ করছে : ডা: শফিকুর

বক্তব্য রাখছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা: শফিকুর রহমান - ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা: শফিকুর রহমান বলেছেন, পল্টনে ২৮ অক্টোবর ২০০৬ সালে বাংলাদেশে দুর্বৃত্তায়নের যে যাত্রা শুরু হয়েছিল আজ জাতি তার কুফল ভোগ করছে। বর্তমান বেপরোয়া শাসকগোষ্ঠীর নেতাকর্মীদের সরাসরি অংশগ্রহণে লগি-বৈঠার তাণ্ডবে সেদিন ঢাকার রাজপথে প্রাণ দিতে হয়েছিল দেশপ্রেমিক জামায়াত নেতা-কর্মীদেরকে।

২৮ অক্টোবরের নারকীয় ও পৈশাচিক হত্যাকাণ্ড সভ্য দুনিয়ায় এক কলঙ্কজনক ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। ইতিহাসের এই নির্মম ও নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ মূলত বাংলাদেশে গণতন্ত্রের কবর রচনা করেছিল। ২৮ অক্টোবরের পথ ধরেই বাংলাদেশে ১/১১ -এর সরকার এবং পরবর্তীতে ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নিল নকশার পরিকল্পিত নির্বাচন হয়েছিল, যা মূলত একই সূত্রে গাঁথা।

মঙ্গলবার ঢাকার একটি মিলনায়তনে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে ২০০৬ সালে ২৮ অক্টোবর লগি-বৈঠার পৈশাচিক হামলায় শহীদদের স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর জননেতা নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমীর মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিন, কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক মোকাররম হোসাইন খান, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য শামসুর রহমান, কামাল হোসাইন, আব্দুস সালাম, ড. আব্দুল মান্নান, হাফিজুর রহমান প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

ডা: শফিকুর রহমান বলেন, ১৪ বছর আগে ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবরের সেই নারকীয় হত্যাকাণ্ডের বিচার আমরা দুনিয়ার কারো কাছে চাই না। যেদিন দুনিয়ার কোনো লোভ কোনো কাজে আসবে না। যেখানে সঠিক বিচারের নিশ্চয়তা রয়েছে। সকল সৃষ্টি যেদিন হাহাকার করে কাঁদবে। সেই মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছেই বিচারভার সোপর্দ করলাম। মানবতার সত্যিকার মুক্তির পথ হলো ইসলাম। ২৮ অক্টোবরের লগি বৈঠার তাণ্ডব দেখিয়ে যারা ক্ষমতা গ্রহণ করেছেন তারা আজ মুক্তিকামী বিশ্বের মানুষের কাছে চরম ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়েছেন। অপরদিকে আমাদের শহীদদের রক্ত আজ লাল গোলাপ হয়ে দেশের সর্বত্র বিচরণ করছে। আমরা আশা করছি শহীদদের শাহাদাতের পথ ধরে এদেশে আল্লাহর দ্বীন অবশ্যই প্রতিষ্ঠিত হবে। আমাদের সকলের আকাঙ্ক্ষিত লক্ষ জান্নাতের সিঁড়িতে আমাদের সাক্ষাৎ হবে ইনশাআল্লাহ।

সভাপতির বক্তব্যে নুরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, লগি-বৈঠা দিয়ে ২০০৬ সালের ২৮ অক্টোবর পৈশাচিক হামলা করে শহীদ করা হয়েছে জামায়াত নেতাকর্মীকে। সেই উত্তপ্ত ময়দানে ২৮ অক্টোবর বাংলাদেশের জাতীয় রাজনীতির জন্য একটি টার্নিং পয়েন্ট। শুধু তাই নয় এটা ইসলামী আন্দোলনের জন্যও বিশেষ একটি টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। নেতাকর্মীরা সেই দিন আল্লাহর অশেষ মেহেরবানীতে সর্বশেষ পর্যন্ত স্বাভাবিক শান্ত থেকে সকল পরিবেশ পরিস্থিতির মোকাবেলা করে আমরা ফিরে এসেছিলাম।

প্রকৃতপক্ষে সেই দিন এদেশের জাতীয় রাজনীতির কবর রচিত হয়েছে। অন্যদিকে এদেশে ইসলামী দৃষ্টিকোনের ভিত্তিতে আমাদের বিজয় দান করেছেন মহান আল্লাহ। যারা ওই ঘটনার ক্রিড়ানক ছিলেন এদেশের অধিকাংশ মানুষ আজ তাদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করেছে। এখানে জামায়াতে ইসলামীর অগ্রযাত্রা আরো বেগবান হয়েছে। আগামী দিনের সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় ২৮ অক্টোবরের শহীদেরা হবে আমাদের প্রেরণার উৎস। সেই তামান্না নিয়ে আমাদের কাজ করতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি


আরো সংবাদ

ইসলাম ধর্মের অপব্যাখ্যা : সম্মিলিত ইসলামী জোট সভাপতির বিরুদ্ধে মামলা (২০৮০৬)অপশক্তি মোকাবেলা করে ইসলামের বিজয় নিশ্চিত করতে হবে : মামুনুল হক (২০৭৫৮)ভাস্কর্যের নামে মূর্তি স্থাপন কোনোক্রমে মেনে নেয়া যায় না : সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহ (১৭১৮৩)সৌদি আরবে ইমাম হোসাইন মসজিদটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ (১৫৩৭৬)জাতীয় সঙ্কট নিয়ে ৫ ডিসেম্বর শীর্ষ আলেমদের বৈঠক (১২৬৩১)আইএইএ’র বেশিরভাগ পরিদর্শক সিআইএ’র গুপ্তচর : ইরান (৬৫৭৬)বাউল শিল্পী রিতা দেওয়ানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি (৬৫৫৮)ভাস্কর্য নিয়ে ভুল ব্যাখ্যা বন্ধ করে ক্ষমা না চাইলে জনগণ জবাব দেবে : মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী (৫৯৮৭)স্টেডিয়ামগুলোকে জেলে রূপান্তরের অনুমতি না দেয়ায় কেজরিওয়ালের ওপর ক্ষুব্ধ মোদি (৪৮৫৩)৬১ পৌরসভার ভোট ১৬ জানুয়ারী (৪২২৬)