২৬ নভেম্বর ২০২০

জামায়াতে ইসলামীর শোক

-

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলা শাখার প্রবীণ সদস্য (রুকন) নতুন রূপপুরের বাসিন্দা মাহবুব আলম ২৬ অক্টোবর রাত ১০টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মঙ্গলবার বাদ আসর নতুন রূপপুর ঈদগাহ ময়দানে জানাজা শেষে তাকে নতুন রূপপুর কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

জানাজায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আমীর অধ্যাপক আবু তালেব মণ্ডল, জেলা সাংগঠনিক সেক্রেটারি অধ্যাপক আবু সালেহ মো: আব্দুল্লাহ, জেলা তারবিয়াত সেক্রেটারি মাওলানা গোলাম রব্বানী খান জোবায়ের, ঈশ্বরদী উপজেলা আমীর নুরুজ্জামান প্রামাণিক, উপজেলা সেক্রেটারি মাওলানা নুর মোহাম্মদ প্রমুখ।

মাহবুব আলমের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা: শফিকুর রহমান মঙ্গলবার একটি শোকবাণী দিয়েছেন।

শোকবাণীতে তিনি বলেন, মাহবুব আলমের ইন্তেকালে আমরা ইসলামী আন্দোলনের একজন নিবেদিতপ্রাণ দাঈকে হারালাম। তিনি সংগঠনের সকল কাজে অংশগ্রহণ করতেন এবং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতেন। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন।

অপর এক যুক্ত শোকবাণীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী পাবনা জেলা শাখার আমীর ও সেক্রেটারি যথাক্রমে অধ্যাপক আবু তালেব ও অধ্যক্ষ ইকবাল হোসাইন, ঈশ্বরদী উপজেলা শাখার আমীর ও সেক্রেটারি যথাক্রমে নুরুজ্জামান প্রামাণিক ও মাওলানা নূর মুহাম্মাদ গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন, মাহবুব আলম ইসলামী আন্দোলনের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন এবং তিনি সর্বাবস্থায় আন্দোলনের কাজকে অগ্রাধিকার দিতেন। আমরা তার ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করছি। আল্লাহ তায়ালা তার জীবনের সকল নেক আমল কবুল করে তাকে জান্নাতে উচ্চ মাকাম দান করুন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদেরকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন।

শোক সংবাদ
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী বগুড়া শহর শাখার মহিলা সদস্য (রুকন) তহুরা বেগম ২৪ অক্টোবর করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৪৭ বছর।

তহুরা বেগমের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা: শফিকুর রহমান মঙ্গলবার একটি শোকবাণী প্রদান করেছেন।

শোকবাণীতে তিনি বলেন, তহুরা বেগমের ইন্তেকালে আমরা ইসলামী আন্দোলনের একজন নিবেদিতপ্রাণ বোনকে হারালাম। তিনি তার নিজ এলাকার মহিলাদের মাঝে ইসলামী আন্দোলনের প্রচার ও প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেছেন। তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন। আমি তার এই মর্মান্তিক ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করছি। আমি মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের কাছে দোয়া করছি, তিনি যেন তাকে শহীদ হিসেবে কবুল করেন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদেরকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করেন।

শোক সংবাদ
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রংপুর জেলা শাখার সাবেক কর্মপরিষদ ও শূরা সদস্য এবং কাউনিয়া উপজেলা শাখার সাবেক আমীর, পাওটানা ফাজিল মাদরাসার সাবেক ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা আবদুস সাত্তার মঙ্গলবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটে বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। ২৭ অক্টোবর রাতে টেপামধুপুর ফাজিল মাদরাসা মাঠে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

মাওলানা আবদুস সাত্তারের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা: শফিকুর রহমান ২৭ অক্টোবর একটি শোকবাণী দিয়েছেন।

শোকবাণীতে তিনি বলেন, মাওলানা আবদুস সাত্তারের ইন্তেকালে আমরা ইসলামী আন্দোলনের একজন নিবেদিতপ্রাণ দাঈকে হারালাম। আমি তার ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি ইসলামী আন্দোলনের প্রচার ও প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদেরকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন।

অপর এক যুক্ত শোকবাণীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রংপুর জেলা শাখার আমীর ও সেক্রেটারি যথাক্রমে মাওলানা এটিএম আজম খান ও অধ্যাপক গোলাম রব্বানী, কাউনিয়া উপজেলা শাখার আমীর ও সেক্রেটারি যথাক্রমে মাওলানা আবদুস সালাম মিয়া ও মাওলানা নজরুল ইসলাম গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন, মাওলানা আবদুস সাত্তার পীরগাছা ও কাউনিয়া উপজেলার সকল স্তরের মানুষের কাছে অত্যন্ত প্রিয় ও খ্যাতিমান আলেম দ্বীন হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

তিনি ইসলামী আন্দোলনের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন এবং অত্যন্ত যোগ্যতা ও দক্ষতার সাথে তার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করতেন। আমরা তার ইন্তেকালে গভীরভাবে শোকাহত। আমরা যেন তার রেখে যাওয়া কাজ যথাযথভাবে আঞ্জাম দিতে পারি। আল্লাহ তায়ালা তার জীবনের সকল নেক আমল কবুল করে তাকে জান্নাতে উচ্চ মাকাম দান করুন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদেরকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন।

শোক সংবাদ
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার প্রবীণ সদস্য (রুকন) মুহাম্মাদ আফতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে কালু চৌধুরী সোমবার বিকেল ৫টায় বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মঙ্গলবার দুপুর ২টায় ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে তাকে সেনুয়া কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

মুহাম্মাদ আফতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে কালু চৌধুরীর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা: শফিকুর রহমান মঙ্গলবার একটি শোকবাণী দিয়েছেন।

শোকবাণীতে তিনি বলেন, মুহাম্মাদ আফতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে কালু চৌধুরীকে (রাহিমাহুল্লাহ) আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা ক্ষমা ও রহম করুন এবং তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন।

শোকবাণীতে তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদেরকে এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

অপর এক যুক্ত শোকবাণীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার আমীর মাওলানা আবদুল হাকিম, জেলা সেক্রেটারি মুহাম্মাদ আলমগীর ও শহর শাখার আমীর কফিল উদ্দিন আহমাদ গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন, মুহাম্মাদ আফতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে কালু চৌধুরী ইসলামী আন্দোলনের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন এবং তিনি সর্বাবস্থায় আন্দোলনের কাজকে অগ্রাধিকার দিতেন।

আমরা তার ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করছি। আল্লাহ তায়ালা তার জীবনের সকল নেক আমল কবুল করে তাকে জান্নাতে উচ্চ মাকাম দান করুন এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনদেরকে এ শোক সহ্য করার তাওফিক দান করুন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি


আরো সংবাদ