২৫ নভেম্বর ২০২০

বিএনপি প্রার্থীর গণসংযোগ জনস্রোত পরিণত


হামলা-মামলা করে বিএনপিকে দমিয়ে রাখা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ঢাকা-১৮ আসনের প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীর।

তিনি বলেন, হামলা-মামলা করে আমাদের দমিয়ে রাখতে পারবেন না। আমরা নির্বাচন করছি, নির্বাচন করবো। নেতাকর্মীসহ সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করার আহ্বান জানান জাহাঙ্গীর।

রাতে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সহসাধারণ সম্পাদক মোস্তফা জামানের কামারপাড়ার রানাভোলার বাড়িতে হামলার ঘটনা প্রসঙ্গ টেনে আজ রোববার সকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সিসি ক্যামেরা ফুটেজে দেখা যায়, রাত ১টার দিকে একদল যুবক মোটরসাইকেল থেকে নেমে ওই বাড়ি লক্ষ্য করে ডিম, ইটপাটকেল, মূল ফটকে কাঠ ছুড়ে মারছে। মোস্তফা জামান ওই বাড়িতে বসবাস না করলেও তার মা থাকেন বলে জানান তুরাগ থানা বিএনপির সভাপতি আমান উল্লাহ।

আজ রোববার সকালে মোস্তফা জামানের বাসায় গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের শান্তনা দেন এস এম জাহাঙ্গীর। সেখানে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দেয়া বক্তব্যে ঢাকা-১৮ আসনের বিএনপি প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ রাতের আধাঁরে আমাদের নেতাকর্মীদের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে। এর জবাব আমরা ১২ নভেম্বর ভোটের মাধ্যমে দেব। আমাদের কোনো নেতাকর্মীর ওপর হামলা চালানো হলে প্রয়োজনে পাল্টা হামলা হবে। তিনি আরো বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণ থাকতে চাই। অশান্তি ডেকে আনবেন না, কারো জন্যই মঙ্গল হবে না। নেতাকর্মীদের বলব, ভোট কেন্দ্রে গিয়ে প্রমাণ করবেন।

এস এম জাহাঙ্গীর বলেন, প্রশাসনকে বলত চাই, আমরা শান্তিপূর্ণ জনতা, শান্তিতে থাকতে চাই। আপনারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ব্যাপারগুলো দেখবেন। আমি রাতে ফোন করেছি, ভিডিও ফুটেজ আছে, দেখে যদি ব্যবস্থা না নেন আমরা অন্য ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব।

এসময় আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, হামলা-মামলা করে আমাদের দমিয়ে রাখতে পারবেন না। আমরা নির্বাচন করতেছি, নির্বাচন করবো। নেতাকর্মীসহ সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করার আহ্বান জাহাঙ্গীর।

জাহাঙ্গীরের সঙ্গে থাকা ইশরাক হোসেন বলেন, রাতের বেলা কেন? দিনের বেলা আসেন। দেখিয়ে দেব কার কতো শক্তি। রাতের বেলা কাপুরেষের মতো হামলা করে ভয় দেখানো যাবে না।

এরপর বেলা ১১টায় তৃতীয় দিনের মতো ধানের শীষের পক্ষে উত্তরখান আটিপাড়া বাজার থেকে গণসংযোগ শুরু করেন এস এম জাহাঙ্গীর। সেখানে তিনি এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, আওয়ামী লীগ যতই ভয়ভীতি দেখাক, আপনারা ১২ নভেম্বর ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নিজের ভোট স্বাধীনভাবে পছন্দের ব্যক্তিকে দেবেন। মনে রাখবেন আমার-আপনার লড়াই গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার লড়াই, সন্ত্রাস-ধর্ষণের বিরুদ্ধে লড়াই। অপশাসনের বিরুদ্ধে লড়াই। এ লড়াইয়ে আমাদেও জয়লাভ করতে হবে। তা না হলে দেশের মা-বোন, আমি আপনি কেউ নিরাপদে ঘরে থাকতে পারব না।

এরপর বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী সাথে নিয়ে হেলাল মার্কেট, চামুরখান, মৈনারটেক, মাস্টার বাড়ি, আটিপাড়া হয়ে রাজবাড়ীতে গণসংযোগ করেন এস এম জাহাঙ্গীর।

এস এম জাহাঙ্গীরের গণসংযোগ যতই সামনে এগোতে থাকে জনস্রোত আরো বাড়তে থাকে, একপর্যায়ে তা সমাবেশে রূপ নেয়। গণসংযোগকালে নানা বয়সী নারী-পুরুষ বাড়ির ছাদ থেকে জাহাঙ্গীর হাত নেড়ে সমর্থন জানায়। কেউ কেউ মাথায় ভালবাসার হাতের স্পর্শ দিয়ে দোয়াও করে দেন। এ সময় নেতাকর্মীদের শ্লোগানে চারদিক প্রকম্পিত হয়ে উঠে। ধানের শীষ, খালেদা জিয়া, তারেক রহমান ও জাহাঙ্গীরের নাম ধরে নেতাকর্মীদের সাথে ঢাকা দক্ষিণের মেয়রপ্রার্থী হিসেবে অংশ নেয়া ইশরাক হোসেনকে শ্লোগানের মধ্যদিয়ে নেতৃত্ব দিতে দেখা যায়।


আরো সংবাদ