৩০ নভেম্বর ২০২০

সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় দেশে ধর্ষণের মহোৎসব চলছে : খায়রুল কবির

বক্তব্য রাখছেন কাদের গনি চৌধুরী। পাশে আছেন খায়রুল কবির খোকন - ছবি : সংগৃহীত

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক ডাকসু জিএস খায়রুল কবির খোকন বলেছেন, বর্তমান সরকারের আমলে দেশে ধর্ষণের মহোৎসব চলছে। নারীর শ্লীলতাহানী, নারী ও শিশু নির্যাতন এটা এখন নিয়মিত ব্যবস্থায় পরিণত হয়েছে। সরকার ধর্ষণ প্রতিরোধে কোনো উদ্যোগ না দিয়ে উল্টো ধর্ষকদের পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণবিরোধী সমাবেশে সরকারি দল ও পুলিশ বাহিনীর হামলা সরকারের এ পৃষ্ঠপোষকতার প্রমাণ।

তিনি বলেন, মানুষের জান-মাল ও ইজ্জতের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ সরকার ক্ষমতায় থাকার সকল অধিকার হারিয়েছে। তিনি মধ্যবর্তী নির্বাচন দিয়ে সরকারকে বিদায় নেয়ার আহ্বান জানান।

আজ শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দেশব্যাপী ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে আরাফাত রহমান কোকো ক্রীড়া চক্র আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

সংগঠনের সভাপতি ফারুক হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী, সুরঞ্জন ঘোষ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, হুমায়ুন কবির, ফারুক হোসেন রুদ্র প্রমুখ।

খায়রুল কবির খোকন বলেন, সিলেটের এমসি কলেজে এবং নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে যে লোমহর্ষক ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছে তা সমস্ত জাতি শুধু নয় আমার মনে হয় সমস্ত বিশ্ব বিবেককে নাড়া দিয়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকারের আমলে দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে শুধু তাই নয়। অর্থনীতি আজ ধ্বংসের মুখে। মানুষের জীবনের কোনো নিরাপত্তা নেই। আজকে এই দেশে সবচেয়ে অসহায় অবস্থায় আছেন আমাদের মা-বোনেরা। প্রতি মুহূর্তে তারা নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছে। আমরা স্পষ্টভাবে বলতে চাই সরকার ক্ষমতায় থাকার সকল অধিকার হারিয়েছে। তাদের ক্ষমতায় থাকার কোনো ধরনের কোনো কারণ নেই।

কাদের গনি চৌধুরী বলেন, এসরকার দেশ পরিচালনায় সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। আজ মানুষের জান, মাল, ইজ্জতের নিরাপত্তা নেই। ভয়ে মা-বোনেরা ঘর থেকে বের হওয়ার সাহস পাচ্ছেন না। সুন্দরী মেয়েদের পেলেই হামলে পড়ছে ছাত্রলীগ -যুবলীগাররা। এসব ঘটনার কোনো বিচার নেই।

তিনি বলেন, আজকে সমস্ত বাংলাদেশের মানুষ ফুঁসে উঠেছে। যে ভয়াবহ অবস্থায় এই অবৈধ সরকার দেশকে নিয়ে গেছে তাতে দেশের অস্তিত্বই বিপন্ন হয়ে পড়েছে। দেশ মনুষ্য বসবাসে অযোগ্য হয়ে পড়েছে। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে যে ভয়াবহ রোমহর্ষক মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে এটা সমস্ত জাতি শুধু নয়, বিশ্ব বিবেককে নাড়া দিয়েছে।

‘শুধু এই নোয়াখালীর ঘটনা নয়, গত কয়েক মাসে আপনারা লক্ষ করেছেন ধর্ষণের একটা মহোৎসব শুরু হয়েছে। এই নারীর শ্লীলতাহানি, নারীর ওপরে নির্যাতন- এটা এখন এই অবৈধ সরকারের ছত্রচ্ছায়ায় একটা নিয়মিত ব্যবস্থায় পরিণত হয়েছে।
এটা মেনে নেয়া যায় না। আজকে পরিষ্কার করে বলতে চাই, এই সরকার ক্ষমতায় থাকার সমস্ত বৈধ্যতা তারা হারিয়েছে।
তাই এই সমাবেশ থেকে আপনাদের আহ্বান জানাচ্ছি, অবিলম্বে পদত্যাগ করুন এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে মধ্যবর্তী নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে যান। যদি না যান এই দেশের জনগণ জেগে উঠবে, আপনাদেরকে চলে যেতে বাধ্য করবে’, বলেন তিনি। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।


আরো সংবাদ