৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

মায়ের কারণেই বাবা সম্পূর্ণভাবে দেশের জন্য কাজের সুযোগ পেয়েছেন : শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা - ছবি : সংগৃহীত

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে দেশের জন্য সম্পূর্ণভাবে কাজের সুযোগ তৈরিতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিভিন্নভাবে তার ব্যক্তিগত আকাঙ্ক্ষা ও চাহিদা উৎসর্গ করেছেন বলে শনিবার জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, ‘কারো ব্যক্তিগত আকাঙ্ক্ষা ও চাহিদা উৎসর্গ করার চেয়ে বড় কিছুই হতে পারে না। আমার মা সেই দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন।’

প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এ অনুষ্ঠানে যোগ দেন। অন্যান্য অংশগ্রহণকারীরা বাংলাদেশ শিশু একাডেমি এবং গোপালগঞ্জ থেকে যুক্ত ছিলেন।

বঙ্গমাতা প্রসঙ্গে মেয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘কোনো দিন সংসারের কোনো ব্যাপারে তিনি আমার আব্বাকে কখনো কিছু বলেননি, কোনো কিছু চাননি। শুধু বলতেন, তোমার এগুলো দেখা লাগবে না, আমি সব দেখবো। যার ফলে আমার বাবা নিজে সম্পূর্ণভাবে একটা দেশের জন্য কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন।’

এসময় একটি পরিবার, একটি সংগঠন এবং দেশকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে দেশের নারীদের বঙ্গমাতার আদর্শ অনুসরণ করার আহ্বান জানান তিনি।

দেশের স্বাধীনতায় বঙ্গমাতার ভূমিকা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গমাতা রাজনৈতিক অঙ্গনে বিভিন্ন কঠিন সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘রাজনীতিতে যখন বিভিন্ন সময়ে কঠিন সিদ্ধান্ত নেয়ার বিষয়টি আসে এবং তখন আমাদের অনেক সিনিয়র এবং অভিজ্ঞ নেতা সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে ব্যর্থ হয়েছেন বা ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তখন আমার মা সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পারিবারিক বিষয় নিয়ে কাজ করার পাশাপাশি বঙ্গমাতা আটক এবং অসুস্থ নেতাদের পরিবারের খোঁজ নিতেন এবং তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করতেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘তার মা দক্ষতার সাথে সংগঠনটিকে (আ’লীগ) পরিচালনা করতেন (বিশেষত বঙ্গবন্ধু কারাগারে থাকাকালীন) এবং সঠিক সিদ্ধান্ত দিতেন।’

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতার জীবন ও কর্মের উপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বেগম মতিয়া চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জীবন ও কর্মের চিত্র তুলে ধরে একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়।

প্রতিমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, প্রথমবারের মতো দিবসটি দেশের সব জেলা এবং বিশ্বের সব বাংলাদেশি মিশনে পালিত হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা মেধাবী শিক্ষার্থীদের ল্যাপটপ, অসচ্ছল নারীদের মধ্যে সেলাই মেশিন বিতরণ করার পাশাপাশি বঙ্গমাতার পৈতৃক জেলায় মোবাইল ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে দরিদ্র নারীদের নগদ সহায়তা প্রদান করেন।

এসময় প্রায় ৩ হাজার ২০০ সেলাই মেশিন এবং ১০০টি ল্যাপটপ বিতরণের পাশাপাশি ১ হাজার ৩০০ দুস্থ নারীদের নগদ সহায়তা প্রদান করা হয়।
সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয়ের (১২৯৪২)ড. কামাল ও আসিফ নজরুল ঢাবি এলাকায় অবা‌ঞ্ছিত : সন‌জিত (১১৭২৬)‘সনজিতকে ক্যাম্পাসে দেখতে চায় না ঢাবি শিক্ষার্থীরা’ (১০৩২০)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৯০২০)আজারবাইজান ৬টি গ্রাম আর্মেনিয়ার দখল মুক্ত করেছে (৮৩৪১)নতুন বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র সামনে আনলো ইরান (৫৭১১)যে কারণে এই শীতেই ভারত-চীন মারাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কা রয়েছে (৫৬৫০)অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত (৫২২৯)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৯ (৫১৬৭)ছাত্রলীগের ঢাবি সভাপতি বক্তব্য স্পষ্টত সন্ত্রাসবাদের বহিঃপ্রকাশ (৫১৫০)