১৫ আগস্ট ২০২০

‘বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় পদক্ষেপ নিন’

‘বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় পদক্ষেপ নিন’ - নয়া দিগন্ত
24tkt

উদাসীনতা বাদ দিয়ে অবিলম্বে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শনিবার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের নেতা-কর্মীদের সারাদেশের বন্যার্ত মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান করেছি। একই সাথে আমরা সরকারকে উদাসীনতা বাদ দিয়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অবিলম্বে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছি।’

ঈদুল আজহা উপলক্ষে দলের সিনিয়র নেতাদের নিয়ে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ফখরুল এ আহ্বান জানান। সরকারের উচিত বন্যার্তদের পুনর্বাসনের পাশাপাশি পর্যাপ্ত ত্রাণ সরবরাহ করা বলেন তিনি।

এই বছরের বন্যা দীর্ঘদিন ধরে চলতে পারে বিশেষজ্ঞদের এই সতর্কতার কথা উল্লেখ করে বিএনপি নেতা বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় সরকারের দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করা উচিত। ‘সরকার কখনোই দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করে না এবং অন্যের মতামতকে গুরুত্ব দেয় না।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারিতে সরকার বন্যাকবলিত মানুষের দুর্ভোগের জন্য পর্যাপ্ত ত্রাণ সামগ্রী নিশ্চিত করতে পারেনি।

প্রকৃত অর্থে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সুচিকিৎসা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ফখরুল বলেন, তাদের দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক জটিলতার কারণে চিকিৎসার সুযোগ পাচ্ছেন না বলে তিনি খুব অসুস্থ। ‘দেশের প্রচলিত অবস্থার কারণে তাকে কোনও হাসপাতালগুলোতেও নিয়ে যাওয়া যাচ্ছে না, চিকিৎসকরা তাকে দেখতে পারবেন না। এমনকি, বিদেশে চিকিৎসা নেয়ার মতো কোনো সুযোগ পাচ্ছেন না। সে কারণেই তার স্বাস্থ্যের যে উন্নতি হওয়ার কথা ছিল, তা হচ্ছে না।’

তিনি বলেন, খালেদার উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য তারা অনুকূল পরিস্থিতির জন্য অপেক্ষা করছেন।

ফখরুল সকাল ১১টায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নিয়ে জিয়ার সমাধিতে ফাতেহা পাঠ এবং পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। ঈদ উপলক্ষে তিনি খালেদার পক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

গত ২৫ মার্চ ৭৫ বছর বয়সী খালেদা জিয়াকে ২৫ মাস কারাভোগের পর দুটি শর্তে ছয় মাসের জন্য দণ্ড স্থগিত করে কারাগার থেকে মুক্তি দেয় সরকার। শর্ত দুটি হলো- দেশ ত্যাগ করা যাবে না এবং গুলশানের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে ছিলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।


আরো সংবাদ