০২ জুন ২০২০

খালেদা জিয়ার মুক্তিকে রাজনৈতিক বিজয় হিসেবে দেখছে আ’লীগ

খালেদা জিয়া - সংগৃহীত

বিএনপি চেয়ারপরসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিকে নিজেদের রাজনৈতিক বিজয় হিসেবে দেখছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এ ইস্যুতে বিএনপির রাজনৈতিক পরাজয় নিশ্চিত হয়েছে বলেও মনে করছেন দলটির নীতিনির্ধারকরা।

আওয়ামী লীগ নেতাদের মতে, খালেদা জিয়ার মুক্তির মধ্য দিয়ে আবারো নিজেকে মানবিক নেতা হিসেবে প্রমাণ করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এবং বাংলাদেশে এর প্রভাব মোকাবেলায় খালেদা জিয়ার মুক্তির মাধ্যমে দলমত নির্বিশেষে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার সুযোগ সৃষ্টি করেছেন শেখ হাসিনা। এ ছাড়া কোনো ধরনের জামিন না দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতাবলে নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে সাজা স্থগিত করে সরকারবিরোধী নেত্রীর মুক্তির মাধ্যমে বিরোধীদের খাঁটো করে রেখেছেন তিনি। এটি আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক বিজয়।
অন্য দিকে দলীয় নেত্রীর মুক্তির জন্য বারবার আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেও ব্যর্থ হয়েছে বিরোধীরা। আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে শীর্ষ নেত্রীর মুক্তি নিশ্চিত করতে পারেনি বিএনপি। শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর মানবিকতার ওপর নির্ভর করতে হয়েছে। এটি বিএনপির বড় ধরনের রাজনৈতিক পরাজয়।

আওয়ামী লীগ ও সরকারের একাধিক সূত্র জানায়, এ মুহূর্তে সরকারবিরোধী নেত্রীর মুক্তির বিষয়টি কারো কাছেই জানা ছিল না। খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রণালয়ে মুক্তির আবেদন করে ব্যর্থ হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে পরিবার। এর পরপরই প্রধানমন্ত্রীর টনক নড়ে। মানবিক বিবেচনায় খালেদা জিয়ার মুক্তির সিদ্ধান্ত নেন প্রধানমন্ত্রী। তবে তিনি এ বিষয়টি দল ও সরকারের কারো সাথেই শেয়ার করেননি। খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য মোক্ষম সময়ের অপেক্ষায় ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। অবশেষে বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারী এবং বাংলাদেশে মোকাবেলার প্রস্তুতি হিসেবে সরকারি ছুটির এ সময়টাকেই উপযুক্ত সময় হিসেবে বেছে নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের তিনজন নেতা এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে বলেন, বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারীতে খালেদা জিয়াকে নিয়ে কোনো ধরনের রিস্কে যেতে চাননি প্রধানমন্ত্রী। কারণ এ মুহূর্তে কারাগারে অসুস্থ খালেদা জিয়ার কোনো অঘটন ঘটলে তার দায় সারাজীবন আওয়ামী লীগকেই বহন করতে হবে। সেজন্য তার মুক্তির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী যেমন মানবিকতার চূড়ান্ত রূপ দেখিয়েছেন, তেমনি দল হিসেবে আওয়ামী লীগও নিরাপদ থেকেছে। এটি আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক বিজয়। দলের দুইজন প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য করোনাভাইরাসের এ মুহূর্তকে বেছে নিয়ে দুইভাবে বিজয় অর্জন করেছে আওয়ামী লীগ। একদিকে প্রধানমন্ত্রী আবারো মানবিক নেত্রী হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। অন্য দিকে মুক্তির জন্য করোনা মুহূর্তকে বেছে নেয়ায় বড় ধরনের কোনো শোডাউন বা জমায়েত করতে পারেনি বিএনপি। এটি ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৌশল।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ নয়া দিগন্তকে বলেন, বিএনপি বারবার নানা ধরনের হুমকি দিয়েও আইনি ও রাজনৈতিকভাবে খালেদা জিয়ার মুক্তিতে ব্যর্থ হয়েছে। অন্য দিকে বিশ্বের করোনাভাইরাসের চরম এ বিপর্যয়ের মধ্যে দেশের সরকারবিরোধী নেত্রীর সাজা স্থগিতের মাধ্যমে মুক্তি দিয়ে মানবিকতার সর্বোচ্চ নজির স্থাপন করেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। এটি প্রধানমন্ত্রীর বিজয়, মানবিকতার বিজয় ও আওয়ামী লীগের বিজয়। আমরা আশা করব এ বিষয়টি মনে রেখে বেগম খালেদা জিয়া ও তার দল দেশ ও জনগণের জন্য ইতিবাচক কর্মকাণ্ডে মনোনিবেশ করবে।


আরো সংবাদ