২৯ মার্চ ২০২০

গণতন্ত্রকে হত্যা করে দেশে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় : মোশাররফ

গণতন্ত্রকে হত্যা করে দেশে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় : মোশাররফ - ছবি : নয়া দিগন্ত

গণতন্ত্রকে হত্যা করে দেশে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

সুপ্রিম কোর্ট বার মিলনায়তনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি কর্তৃক আয়োজিত একুশে ফেব্রুয়ারী মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ব্যারিষ্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, মহিলা দল সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবদলের সাধারন সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহিন, মহিলা দলের যুগ্ন সাধারান সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, শুধু উন্নায়ন করে গণতন্ত্রকে হত্যা করে দেশে প্রকৃত উন্নয়ন যদি হতো তাহলে সেটা বিশ্বের অনেক দেশেই হতো। আর সেটা হয় নাই বলেই দেশে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়। পাকিস্তানের সময় আইয়ুব খান উন্নয়নের নামে নতুন ডেফিনেশন দিয়েছিল। কিন্তু সেই উন্নয়ন তার পতন ঠেকাতে পারেনি। আজকে আমরা দেখতে পাচ্ছি সরকারপ্রধান এটাকে উন্নয়নে রূপান্তর করলো। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সর্বত্র উপর থেকে নিচ পর্যন্ত পচন লেগেছে। শিক্ষাঙ্গন, অর্থনীতি, ব্যবসা-বাণিজ্য সর্বক্ষেত্রে। দ্রব্যমূল্য ক্রয় ক্ষমতার বাইরে রেখে সিন্ডিকেট করছে ব্যবসায়ীরা। প্রতিবাদ করার কেউ নেই।

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, দেশনেত্রীকে যদি বাঁচাতে হয় আমাদেরকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। গণতন্ত্র আওয়ামী লীগ ফিরিয়ে দেবেনা। এর আগে ৭৫ সালে তারা গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে এবারও করছে। তিনি আরো বলেন, সরকার ভালো করে জানে জনগণ তাদের ভোট দেবে না। তাই তারা বলতে পারে কে ভোট দিলো কে ভোট দিলো না তাতে কিছু আসে যায় না। এ কথার মাধ্যমে গণতন্ত্র কোথায় গেছে এটা তাদের চিন্তা করতে হবে।

মোশাররফ বলেন, ৪৮ সালের যুবক ছাত্রদের যদি এতো সাহস থেকে থাকে আজকে ছাত্র সমাজে সেই সাহস নেই কেনো?আজকে দেশে গণতন্ত্র নাই। এর বিরুদ্ধে সাহসের সাথে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো আমাদের ঈমানী দায়িত্ব। কিন্তু আমরা পারছি না। আজকে আমরা যারা মঞ্চে এবং সামনে যারা ছাত্র যুবক আমরা প্রত্যেকেই এ ব্যাপারে ব্যর্থ হচ্ছি। আমাদের শিক্ষা নিতে হবে সেই সময়ের ছাত্র যুবক নেতাদের কাছ থেকে। তারা যদি পারে আমরা পারছি না কেন?


আরো সংবাদ

বৃদ্ধকে কান ধরে উঠবস করানো এসিল্যান্ডকে একহাত নিলেন আসিফ নজরুল (২৫১২২)করোনার বিরুদ্ধে লড়াকু ‘বীর’ চিকিৎসক যে ভয়াবহ বার্তা দিয়েই মারা গেলেন (২৪৫০৫)ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর করোনার খবরে পেছনের দরজা দিয়ে পালালেন উপদেষ্টা (ভিডিও) (১৪৩৬২)অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া আর নেই (১২১৬৭)মুক্ত খালেদা জিয়ার সাথে দেখা হলো না সানাউল্লাহর (৯৭৮৩)কান ধরে উঠবস করানো সেই এসিল্যান্ড প্রত্যাহার (৯৭০৬)করোনার ওষুধ আবিষ্কারের দাবি ডুয়েটের ৩ গবেষকের (৯১৭৪)প্রবাসীর স্ত্রীর পরকীয়ার বলি মেয়ে (৮৮৯৯)করোনার আক্রমণে করুণ অবস্থা যুক্তরাষ্ট্রের (৮৭৮৩)মোদি-যোগির রাজ্যে ক্ষুধার জ্বালায় ঘাস খাচ্ছে শিশুরা (৮৫৯৭)