২৬ মে ২০২০
আইএস দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি

তারেক রহমান, মির্জা ফখরুলসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা

তারেক রহমান, মির্জা ফখরুলসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা - ফাইল ছবি

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আইএস দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগে আজ মঙ্গলবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ উর রহমানের আদালতে মামলা দায়েরের আবেদন করেন বাংলাদেশ জননেত্রী পরষদের সভাপতি এবি সিদ্দিকী।

যাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে তারা হলেন- বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, দলের মহানগর উত্তর কমিটির ভাইস-চেয়ারম্যান রবিউল আউয়াল সোহেল, জামায়াতের রোকন শাহ আলী বাগদাদী (রা.) কামিল মাদরাসার সাময়িক বহিষ্কৃত উপাধ্যক্ষ আফজাল হোসেন, মাদরাসার অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ও আবদুল করিম, হাফেজ মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, আমিনুল হক বাবু এবং ফারুক আহমদ।

গত ৬ ডিসেম্বর শেখ হাসিনাসহ সবাইকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয় বলে মামলার আবেদনে বলা হয়- ‘আমি আমার পত্রিকার অফিস মুক্তি প্লাজা থেকে পায়ে হেঁটে শাহআলীর মাজারের দিকে রওয়ানা হই। এসময়ে শাহআলী মার্কেটের কর্নারে এসে পৌঁছালে বিএনপির নেতা আব্দুল আউয়াল সোহেলের হুকুমে ৪/৫ জন হুজুর শ্রেণীর লোক এবং ৪/৫ জন বিএনপির গুন্ডা পরিচয় দিয়ে আমাকে প্রথমে তারা আওয়ামী ওলামালীগের লোক হিসেবে পরিচয় দেয় এবং তারা বলে, বিএনপি ও জামায়াত নেতাদের গোপন বৈঠকের তথ্য আছে, আমারা আলোচনা করব, চলেন আমােেদর অফিসে। আমি তাদের চেহার এবং যে অফিসের ঠিকানা বলে তা বিএনপির কুখ্যাত নেতা রবিউল আউয়ালের অফিস তা বুঝতে পরি। তখন তাদের সাথে যেতে না চাইলে তখন তারা বলে যে, খালেদা জিয়া, তারেক রাহমানসহ বিএনপির নেতাদের বিরুদ্ধে মামলাগুলো প্রত্যাহার করে নিবি। এবং তাদের মুক্তির ব্যবস্থা করে দিবি। নাহলে আবারো একুশে আগস্টের মতো শেখ হাসিনাসহ আইএস দিয়ে গ্রেনেড দিয়ে মেরে তোর সবাইকে শেষ করে দেয়া হবে, কথাটা মনে রাখিস এটা আমাদের নেতাদের নির্দেশ।’

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো আদেশ দেননি আদালত।


আরো সংবাদ