০৫ আগস্ট ২০২০

আ’লীগ সরকার সব দিক থেকে ব্যর্থ : মির্জা ফখরুল

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর - নয়া দিগন্ত
24tkt

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সরকারের এই মুহূর্তে পদত্যাগ করা উচিৎ। কারণ দেশটা জুয়াড়িদের দেশ হয়ে গেছে। এই সরকারকে যদি আমি বলি জুয়াড়ি সরকার, আমার অপরাধ হবে না। কারণ, সরকার সব দিক থেকে ব্যর্থ হয়ে এখন জুয়ায় আশ্রয় নিয়েছে। তারা ভাবছে জুয়া খেলে যদি কোনো রকমে টিকে থাকা যায়। যাবে না, কারণ এটা হচ্ছে গণতন্ত্রকামী মানুষের দেশ।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে মহিলা দলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা চাই এখনো আপনাদের শুভবুদ্ধির উদয় হোক। দেশের মানুষের গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিন এবং খালেদা জিয়ার মুক্তিতে কোনো বাধা হবেন না। তাকে আইনগতভাবে মুক্তি দিন। ভোট চুরি করে যে পার্লামেন্ট গঠন করেছেন তা বাতিল করেন। নিরপেক্ষ কমিশনের অধীনে নির্বাচন দিন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে আওয়ামী লীগের ছোট নেতা, পাতি নেতাদের দাপটে দেশে থাকা যাচ্ছে না। সরকারি কর্মচারীরা চুপচাপ চলে যায় মান-সম্মান, ইজ্জত নিয়ে। যা হুকুম করে তাই করতে হয়। চাঁদা দাও নয় তো যাও।

তিনি বলেন, আজকে মাটি খুড়ে বেড়িয়ে আসছে সরকারের পাপের ইতিহাস। কেঁচো খুঁজতে গিয়ে সাপ বের হয়ে আসছে। তিনি বলেন, আজকে সরকারের লোকেরা ইচ্ছেমতো মানুষ খুন করে, ক্রসফায়ার করে। বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হচ্ছে। আমাদের নেতাকর্মীদের তুলে নিয়ে যাওয়া হয়, জিজ্ঞাসা করলে বলা হয় জানি না। নিখুঁতভাবে গুম হয়ে যায়। আমাদের এমপি পর্যন্ত বাদ যায়নি।

গত এক বছরে বিদেশে ২৭ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে গেছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব আরো বলেন, ক্যাসিনোগুলোতে কাজ করে বিদেশীরা এবং তারাই দেশের টাকা বিদেশে পাচার করছেন।

বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা একবারও বলি নাই বেগম জিয়াকে দয়া করে মুক্তি দিন। দেশের একজন নাগরিক হিসেবে তার যেটা প্রাপ্য সে অধিকার থেকে তাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা কোর্টে যাই জামিনের জন্য। বিচারপতি সব শুনে বক্তব্য শুনে চলে যান। বলেন পরে আদেশ দেব। যখন উপর থেকে নির্দেশ আসে পরে তিনি আদেশ দেন। এখন দেশে বিচার বিভাগের কোনো স্বাধীনতা নেই। সরকার বিচার বিভাগকে নিয়ন্ত্রণ করছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, অনেকে দোষারোপ করেন পুলিশকে। পুলিশ কী করবে। উপরমহল থেকে যা হুকুম হয়, নির্দেশ হয় পুলিশের তা পালন করতে হয়। সরকার হুকুম দিয়েছে- দেশে যারা গণতন্ত্র চায়, তাদের মারো, তারা মেরেছে। সরকার হুকুম দিয়েছে- নির্বাচনের সকল কেন্দ্র দখল করো, তারা করেছে।


আরো সংবাদ

হিজবুল্লাহর জালে আটকা পড়েছে ইসরাইল! (৩৬১৭৯)আবারো তাইওয়ান দখলের ঘোষণা দিল চীন (১৪৮৮১)মরুভূমির ‘এয়ারলাইনের গোরস্তানে’ ফেলা হচ্ছে বহু বিমান (১২২৫৯)হামলায় মার্কিন রণতরীর ডামি ধ্বংস না হওয়ার কারণ জানালো ইরান (৮৩১৯)সিনহা নিহতের ঘটনায় পুলিশ ও ডিজিএফআই’র পরস্পরবিরোধী ভাষ্য (৭২৫৯)সহকর্মীর এলোপাথাড়ি গুলিতে ২ বিএসএফ সেনা নিহত, সীমান্তে উত্তেজনা (৬৯০২)চীনের বিরুদ্ধে গোর্খা সৈন্যদের ব্যবহার করছে ভারত : এখন কী করবে নেপাল? (৫০৩৬)বিবাহিত জীবনের বেশিরভাগ সময় জেলে এবং পালিয়ে থাকতে হয়েছে বাবুকে : ফখরুল (৪৭১১)করোনায় আক্রান্ত এমপিকে হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হয়েছে (৪৪৩৩)তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে : আবহাওয়া অধিদপ্তর (৪৩৫৩)