২৬ মে ২০২০

মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ছাত্রদলের প্রার্থীরা

মনোনয়নপত্র জমা দিচ্ছেন ছাত্রদলের পদপ্রত্যাশী এক প্রার্থী - নয়া দিগন্ত

বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ষষ্ঠ কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচনের জন্য দ্বিতীয় দিনের মতো মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন প্রার্থীরা। মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুর ২টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন প্রার্থীরা। এবারের কাউন্সিল উপলক্ষে এর আগে গত ১৭ ও ১৮ আগস্ট দুই দিনে ছাত্রদলের ১১০ জন ছাত্রনেতা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেন। এরমধ্যে সভাপতি পদে ৪২ জন ও সাধারণ সম্পাদক ৬৮ জন মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন।

বিএনপির ভ্যানগার্ড হিসেবে খ্যাত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর। পুনঃতফসিল অনুযায়ী, ১৯ ও ২০ আগস্ট মনোনয়নপত্র জমা নেয়া হবে। ২২-২৬ আগস্ট যাচাই-বাছাই শেষে ২ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। আগামী ৩১ আগস্ট প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন।

প্রসঙ্গত, এর আগে ১৫ জুলাই ছাত্রদলের কাউন্সিলের ভোটের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু বয়সসীমা নিয়ে সংগঠনের একটি অংশের টানা আন্দোলনের কারণে কাউন্সিল হয়নি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও ষষ্ঠ কাউন্সিলের সভাপতি পদপ্রার্থী সাজিদ হাসান বাবু মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর নয়া দিগন্ত অনলাইনকে জানান, আমি যদি সভাপতি নির্বাচিত হয় তবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের স্বপ্নের ছাত্রদল গড়ে সারা বাংলাদেশের ছাত্র সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করে দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনাই হবে আমার দৃপ্ত শপথ।

ছাত্রদল সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে সদ্য বিলুপ্ত ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের বৃত্তি ও ছাত্র কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ বলেন, আমি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি পদপ্রার্থী হিসেবে মনোয়নপত্র জমা দিয়েছি। আমি আশা করছি কাউন্সিল-এর সম্মানিত কাউন্সিলররা আমার যোগ্যতা এবং দলের প্রতি আমার ত্যাগ মূল্যায়ন করে আমাকে নির্বাচিত করবেন। আমি নির্বাচিত হলে গণতন্ত্র মুক্তি আন্দোলন ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনকে বেগবান করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবো।

ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সম্পাদক ও ষষ্ঠ কাউন্সিলে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম সিরাজ বলেন, আমি দীর্ঘ সময় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের একজন কর্মী হিসেবে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করে এসেছি। দেশনেতা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে মিছিলের সময় আমি গুলিবিদ্ধ হয়েছি। আমি মৃত্যু থেকে ফিরে এসেছি। আমি আমার বাকি জীবনটা শহীদ জিয়াউর রহমানের পরিবারকে উৎসর্গ করতে চাই। আমি আশা করি ছাত্রদলের সম্মানিত কাউন্সিলরা আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবেন।


আরো সংবাদ





maltepe evden eve nakliyat knight online indir hatay web tasarım ko cuce Friv gebze evden eve nakliyat buy Instagram likes buy Instagram likes cheap Adiyaman tutunu