২৪ নভেম্বর ২০২০

আমফানের আস্ফালন আর বাঘের গর্জনে ঘুম ছুটেছে সুন্দরবনবাসীর


একদিকে আমফানের আস্ফালন। অন্য দিকে বাঘ্রগজর্ন। উভয়সঙ্কট সুন্দরবনবাসীর। নদীতে কাঁকড়া, মাছ খেতে মে-জুনে সাধারণত রয়েল বেঙ্গল টাইগার চলে আসে লোকালয়ের কাছাকাছি। যেখানে মাছ-কাঁকড়া বেশি সেখানেই ভিড় করেন জেলেরাও। আর তাতেই ঘটে যায় অঘটন।

জেলেরা জানাচ্ছেন, আমফানের আতঙ্কে দিন কাটাতে হচ্ছে তাদের। সম্প্রতি আয়লা, বুলবুলে তছনছ করে দিয়েছে সবকিছু। তা গুছিয়ে উঠতে না উঠতে আবার আরও একটি ঝড়ের ভ্রুকূটি। একেই লকডাউনের জেরে টান পড়েছে পেটে। তারপর আমফানের আস্ফালন। সতর্কতা জারি থাকা সত্ত্বেও বাধ্য হয়ে নদীতে যেতে হচ্ছে জেলেদের।

একজন জেলে জানান, “পেটের টানেই নদীতে যেতে হচ্ছে আমাদের। যে সব খাঁড়িতে মাছ-কাঁকড়া বেশি পাওয়া যায়, সেখানেই থাকে বাঘের উপদ্রুবও। সব সময় প্রাণ হাতে নিয়ে মাছ ধরতে হচ্ছে।”

কোনও উপায় না থাকায় গভীর জঙ্গলে খাড়িতে গিয়ে মাছ ধরতে হয় তাদের। মাঝে মধ্যে জেলেদের খোঁজ মেলে না। পরে গভীর জঙ্গলে পাওয়া যায় দেহ। বাঘের আতঙ্ক বুকে নিয়ে মাছ ধরাই এখন জেলেদের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তার উপর দোসর আমফান। ফের সব কিছু তছনছ হওয়ার আশঙ্কায় প্রমাদ গুনছেন সুন্দরবনবাসীরা। জিনিউজ।


আরো সংবাদ