০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ১০ রজব ১৪৪৪
ads
`

বিশ্বসেরা হাফেজে কুরআন ও তরুণ দায়ী সংবর্ধনা-২২ অনুষ্ঠিত

বিশ্বসেরা হাফেজে কুরআন ও তরুণ দায়ী সংবর্ধনা-২২ অনুষ্ঠিত - ছবি : সংগৃহীত

বিশ্বসেরা হাফেজে কুরআন ও জাতীয় পর্যায়ে ইসলামের দাওয়াত সম্প্রসারণের কাজে বিশেষ ভূমিকা পালনকারী তরুণ দায়ীদের সংবর্ধনা দিয়েছে সেন্টার ফর ইসলামিক দাওয়াহ বাংলাদেশ (সিআইডিবি)।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) সকাল ১০টায় রাজধানীর একটি মিলনায়তনে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক হাফেজ নুরুজ্জামানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি হাফেজ রাশেদুল ইসলাম। প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. শামসুল আলম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ, বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ, লেখক ও গবেষক ড. আবুল কালাম আজাদ বাশার ও মারকাযুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসার প্রিন্সিপাল শায়েখ নেছার আহমাদ আন নাছেরী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. শামসুল আলম বলেন, ‘আমাদের জীবনটা কুরআনের জন্য। আমাদের ওপর যত বিপদ বিপর্যয়- তা কুরআন থেকে দূরে সরে আসার কারণেই হচ্ছে। আবারো কুরআনকে ধারণ করলে সোনালি যুগ ফিরে আসবে। অন্যদিকে অনেক তরুণ দায়ী ময়দানের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে; তাদের উৎসাহিত করতে হবে।’

তিনি আরো উল্লেখ করেন, ‘আমার জানা মতে দায়ীদের সংবর্ধনা এটাই বাংলাদেশে প্রথম। আমি আশা করি- এ ধারা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে, ইনশাআল্লাহ।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ সূরা ত্ব-হার ২ নম্বর আয়াত উল্লেখ করে বলেন- মহাগ্রন্থ আল কুরআন যাদের হাতে রয়েছে, তারা কখনো হতাশ হতে পারে না। আমরা এক সময় বিশ্বজয় করেছি, আবার কুরআন দিয়ে আমরা বিশ্বকে জয় করব। পরাজয় বরণ করার জন্য মুসলমানদের জন্ম হয়নি। আমাদের আবারো বিজয়ের স্বাধ গ্রহণ করতে হবে। এজন্য যার যার জায়গা থেকে দাওয়াতি ভূমিকা পালন করতে হবে। তবেই উম্মাতের এ শক্তি ইসলামের বিজয়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারবে। আলেমদের মাঝে পরস্পরের প্রতি মহব্বত রাখা জরুরি। কুরআনকে বুঝে পড়তে হবে এবং অন্যের কাছেও পৌঁছাতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শায়েখ নেছার আহমাদ আন নাছেরী বলেন, একজন হাফেজে কুরআনকে আল্লাহ তায়ালা দুনিয়া ও আখিরাতে অনেক সম্মান দেবেন। তাই প্রত্যেক হাফেজকে ভালো আলেম হতে হবে এবং কুরআনের আহ্বান সমাজের কাছে উপস্থাপন করতে হবে। বর্তমান বাংলাদেশে কুরআনের বিশুদ্ধ তিলাওয়াতের বিপ্লব চলছে। এ ধারা অব্যাহত রাখতে প্রতিটি ঘরে ঘরে বিশ্বসেরা হাফেজে কুরআন তৈরি করতে হবে। আজকে পুরস্কারপ্রাপ্ত হাফেজরা উম্মতের শ্রেষ্ঠ সম্পদ। কেননা, বিশ্বের হাফেজদের অনুস্বরণীয় হাফেজ হিসেবে ভূমিকা পালন করছেন। আমি আশা করি, এ ধারা অব্যাহত থাকবে, ইনশাআল্লাহ।

ড. আবুল কালাম আজাদ বাশার বলেন, হাফেজে কুরআন ও আলেমদের যারা সম্মান করবে, আল্লাহ তায়ালা তাদের সম্মান দেবেন। এ দেশের মাটি ইসলামের জন্য উর্বর। সম্ভাবনাময় ইসলামের বিপ্লবকে বাস্তবায়নে আলেমদেরকে ঐকমত্যে পৌঁছাতে হবে। উম্মতের প্রতিক্ষিত ঐক্য প্রতিষ্ঠায় দায়ীদের বিশেষ ভূমিকা পালন করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে হাফেজ রাশেদুল ইসলাম বলেন, আজ বিশ্বসেরা হাফেজে কুরআন ও তরুণ দায়ীদের জন্য সংবর্ধনা অনুষ্ঠান করতে পেরে আমরা নিজেদেরকে গর্বিত মনে করছি। এ দেশের মানুষদের ইসলাম ও জাহেলিয়াতের সংমিশ্রণ থেকে প্রকৃত ইসলামের দিকে আহ্বান করার জন্য আমাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। উপস্থিত প্রত্যেকের আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য ও যোগ্যতা রয়েছে। প্রত্যেকের যোগ্যতাকে সর্বোত্তমভাবে কাজে লাগাতে হবে। আমাদের ইসলামের গবেষণার কাজে নিজেদের নিয়োজিত করতে হবে। গর্ব ও অহংকারমুক্ত জীবনযাপন করতে হবে। নিজেদের আরো যোগ্য করে গড়ে তুলতে হবে। আমাদের যোগ্যতা বাড়ানোর চেষ্টা করা হলে আল্লাহ তায়ালা সহায়তা করবেন এবং সম্মান বৃদ্ধি করে দেবেন। সেন্টার ফর ইসলামিক দাওয়াহ বাংলাদেশ প্রতিবছর হাফেজ ও দায়ীদের সংবর্ধনার এ আয়োজন অব্যাহত রাখবে, ইনশাআল্লাহ।

অনুষ্ঠানে বিশ্বসেরা হাফেজদের মধ্য উপস্থিত ছিলেন- হাফেজ আবু রাহাত, হাফেজ তরিকুল ইসলাম, অন্ধ হাফেজ তানভীর হোসাইন, হাফেজ সাদ সুরাইল, হাফেজ সাইফুর রহমান ত্বকী, হাফেজ এমদাদুল্লাহ ও হাফেজ আব্দুল্লাহ আল মামুন।

এছাড়া তরুণ দায়ীদের মধ্য হতে উপস্থিত ছিলেন- ডিজিটাল কন্টেন্ট ক্রিয়েটর জাফর সাদেক, হাফেজে বুখারী হাবিবুল্লাহ সিরাজী, মাজালিসুল মুফাসসিরিনের কার্যকরী পরিষদের সদস্য ড. কামরুল হাসান শাহীন, মুফতি শাহাদাত সাদমান, হাফেজ মহিউদ্দিন মাহবুব, হাফেজ লোকমান হাকিম, হাফেজ আরাফাতুল ইসলাম, মাহমুদুল হাসান ও মাওলানা আবুল হাসেম মোল্লা।

অনুষ্ঠানে বিশ্বসেরা হাফেজে কুরআন ও তরুণ দায়ীদের হাতে ক্রেস্ট, নগদ অর্থ ও উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- সিআইডিবির উপদেষ্টা জাহিদুল ইসলাম, শাহরিয়ার ফয়সাল, সিবগাতুল্লাহ, আব্দুল্লাহ আল নোমান, সাজ্জাদ হোসাইন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, সহকারী ব্যবস্থাপক মো: মাহফুজুর রহমান ও হাফেজ মিজানুর রহমান প্রমুখ।

বিজ্ঞপ্তি


আরো সংবাদ


premium cement