২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ৫ রজব ১৪৪৪
ads
`

পেরুতে নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট আটক

শপথ নিচ্ছেন পেরুর নতুন প্রেসিডেন্ট দিনা বুলার্তো : ইন্টারনেট -

পেরুতে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন দিনা বুলার্তো। বিরোধী দলের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস বামপন্থী প্রেসিডেন্ট পেড্রো ক্যাস্টিলোকে অপসারণ করার পর নতুন দিনা শপথ গ্রহণ করেন। অভিসংশনের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত পেড্রো ক্যাস্টিলোকে অভ্যুত্থান চেষ্টার অভিযোগে আটক করেছে পুলিশ।
কংগ্রেস বুধবার রাতে ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় ক্যাস্টিলোকে অপসারণের পক্ষে ভোট দেয়। তিনি এর এক দিন আগে পার্লামেন্ট ‘সাময়িকভাবে’ ভেঙে দিয়ে ডিক্রির মাধ্যমে দেশ পরিচালনার কথা ঘোষণা করেছিলেন। ক্যাস্টিলো বলেছিলেন, তার এ পদক্ষেপের লক্ষ্য ছিল পেরুতে ‘আইনের শাসন ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা’। তবে তার নিজের ভাইস প্রেসিডেন্ট দিনা বুলার্তোসহ বিরোধীদল এর তীব্র বিরোধিতা করছিল। তারা একে ‘অভ্যুত্থানচেষ্টা’ হিসেবে অভিহিত করেন।
কংগ্রেস এই প্রেক্ষাপটে প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে ইম্পিচমেন্ট প্রস্তাব আনে। দিনা বুলার্তো রাতে দক্ষিণ আমেরিকার দেশটির প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হলেন। তিনি ২০১৬ সাল পর্যন্ত ওই পদে থাকবেন। পেরুতে বেশ কিছু দিন ধরেই উত্তেজনা চলছিল। কংগ্রেস স্থগিত করা এবং পেরুর প্রতিষ্ঠানগুলোকে কাজ করতে না দেয়ার জন্য পেরুতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ক্যাস্টিলোর সমালোচনা করেছিলেন।
স্থানীয় সময় বুধবার বিকেলে বিরোধীদের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস বিরোধিতা ছাড়াই ক্যাসটিলোকে অপসারণের পক্ষে ভোট দেয়। এর আগের দিন মঙ্গলবার ক্যাসটিলো এক ঘোষণা জানিয়েছিলেন, আইনসভা সাময়িকভাবে বিলুপ্ত করা হবে এবং তিনি ডিক্রি জারির মাধ্যমে দেশের শাসনকার্য পরিচালনা করবেন। দেশে আইনের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও গণতন্ত্রের স্বার্থে এ উদ্যোগ নেয়া হবে বলেও ঘোষণায় বলেছিলেন ক্যাসটিলো। তখন এ ঘোষণার তীব্র বিরোধিতা করে বিরোধী শিবিরসহ অন্যরা। এমনকি সে সময় দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট দিনা বুলার্তো এ ধরনের ঘোষণাকে রাষ্ট্রবিরোধী অভ্যুত্থান হিসেবে উল্লেখ করেন। তার এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা। তারা একে একে পদত্যাগ করতে থাকেন।


আরো সংবাদ


premium cement