২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ৫ রজব ১৪৪৪
ads
`

ইউক্রেনকে সময় দেয়া ছিল মিনস্ক চুক্তির উদ্দেশ্য : অ্যাঞ্জেলা

-

২০১৪ সালে রাশিয়া ও ইউক্রেন ‘মিনস্ক শান্তিচুক্তি’ করেছিল। ওই চুক্তিতে মধ্যস্থতা করেছিল জার্মানি ও ফ্রান্স। মূলত ওই চুক্তির ফলেই আট বছরের জন্য যুদ্ধ থেমে ছিল। তবে এ বছরের শুরুতে রাশিয়া মিনস্ক চুক্তি বাতিল করে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান পরিচালনা করে। এ অভিযানের আগে থেকেই দেশটি বারবার বলে আসছিল, মিনস্ক চুক্তি করার পেছনে ইউক্রেনের আসল উদ্দেশ্য ছিল নিজেদের সামরিক শক্তি বৃদ্ধি করা। এবার জার্মানির সাবেক চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলও সে কথাই জানিয়েছেন।
বুধবার প্রকাশ হওয়া তার এক সাক্ষাৎকারে অ্যাঞ্জেলা মার্কেল বলেন, ২০১৪ সালে ওই যুদ্ধবিরতির আসল উদ্দেশ্য ছিল ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীকে শক্তিশালী করে তোলার জন্য সময় নেয়া এবং সেই উদ্দেশ্য পুরোপুরি সফল হয়েছে। জার্মানির জেইত ম্যাগাজিনকে ওই সাক্ষাৎকারটি দেন অ্যাঞ্জেলা মার্কেল। এতে তার ১৬ বছর ধরে ক্ষমতাকালের নানা দিক নিয়ে কথা বলেন তিনি। তার দাবি- রাশিয়া ও ইউক্রেন ইস্যুতে তিনি যে নীতি গ্রহণ করেছিলেন তা সফল হোক বা না হোক, সঠিক ছিল।
অ্যাঞ্জেলা মার্কেল বলেন, ২০১৪ সালের মিনস্ক চুক্তি ছিল মূলত ইউক্রেনকে প্রস্তুত হওয়ার জন্য কিছু সময় দেয়ার প্রচেষ্টা। ওই বছর ইউক্রেনের সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা হলে ক্রাইমিয়া ও দনবাস অঞ্চল অস্থিতিশীল হয়ে ওঠে।
ক্রিমিয়া এক গণভোটের মাধ্যমে রাশিয়ার সাথে যুক্ত হয়। যদিও এই গণভোটকে স্বীকৃতি দেয় না পশ্চিমা দেশগুলো। দনবাসেও স্বাধীনতার ডাক দেয়া হয়। ফলে সেখানে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী ও স্থানীয় বিদ্রোহীদের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়। যুদ্ধে বিদ্রোহীদের সহায়তা করতে থাকে রাশিয়া। দ্রুতই দোনেস্ক ও লুহানস্কের বড় একটি অংশ স্থায়ীভাবে রুশপন্থী বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়। দিন যত যাচ্ছিল বিদ্রোহীরা নতুন নতুন জায়গা দখল করে চলেছিল।


আরো সংবাদ


premium cement