০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

টাকা তুলতে লেবাননের কয়েক ব্যাংকে গ্রাহকদের হামলা

বৈরুতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর রিয়াদ সালামেহের পদত্যাগ ও আর্থিক সঙ্কটের বিরুদ্ধে সমাবেশের সময় একজন বিক্ষোভকারী ব্যাংক ভবনে ককটেল নিক্ষেপ করছে : ইন্টারনেট -

তীব্র আর্থিক সঙ্কটের মুখে পড়া লেবাননে ব্যাংক থেকে নিজেদের জমানো অর্থ তুলতে আবারো হামলার আশ্রয় নিচ্ছে দেশটির জনগণ। গত মাসে এ ধরনের কয়েকটি ঘটনার পর বেশ কিছুদিন ব্যাংক বন্ধ রাখা হয়। সম্প্রতি ব্যাংকিং কার্যক্রম আবারো শুরু হলে ওই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয় দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে। লেবাননের ব্যাংকগুলো এখন আমানতকারীদের হামলার নিয়মিত লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে। এ ছাড়া গতকাল বুধবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সামনে বিক্ষোভ করছে সরকারবিরোধীরা।
গত মঙ্গলবার দেশের অন্তত তিনটি স্থানে ব্যাংকে হামলার ঘটনা ঘটেছে। আমানতকারীদের অধিকারের পক্ষে কাজ করা অ্যাসোসিয়েশন অফ ডিপোজিটরস নামের একটি এনজিও এ তথ্য জানিয়েছে। এনজিওটি জানায়, একজন অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পূর্ব লেবাননের চতৌরা শহরে এলবিসি ব্যাংকের একটি শাখায় হামলা চালিয়ে কর্মচারীদের আটকে রেখেছিলেন। তিনি তার অ্যাকাউন্টে থাকা ২৪ হাজার ৫০০ ডলার তুলতে না পেরে এ ঘটনা ঘটান। পরে নিরাপত্তা বাহিনী তাকে গ্রেফতার করে।
দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর টায়ারে বাইব্লস ব্যাংকের একটি শাখায় হামলা চালিয়েছেন একজন লেবানিজ আমানতকারী। ওই ব্যাংকে ৪৪ হাজার ডলার জমা আছে। এ অর্থ তিনি ক্যাশ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ব্যাংক তাতে রাজি হয়নি। অন্য দিকে কাদিচা ইলেকট্রিসিটি কোম্পানির কর্মীরা তাদের বেতন থেকে ৩ শতাংশ কেটে নেয়ার প্রতিবাদে ত্রিপোলিতে ফার্স্ট ন্যাশনাল ব্যাংকের একটি শাখায় হামলা চালায়।
এর আগে গত সেপ্টেম্বর মাসে লেবাননের বিভিন্ন এলাকায় এ ধরনের অন্তত আটটি হামলার খবর পাওয়া গিয়েছিল। তীব্র আর্থিক সঙ্কটে পড়া দেশটিতে নিজেদের জমানো স্বাভাবিকভাবে উঠাতে না পেরে অনেকে বাধ্য হয়ে এ পন্থা অবলম্বন করেছিলেন। তবে এ ঘটনার জেরে নিরাপত্তার অভাব দেখিয়ে প্রথমে তিনদিন এবং পরে অনির্দিষ্টকালের জন্য ব্যাংক বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। সপ্তাহখানেক পরে ব্যাংক চালু হলে এ মাসের শুরুতেই আবারো একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে।


আরো সংবাদ


premium cement