২৬ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

বুরকিনা ফাসোতে আবারো সামরিক অভ্যুত্থান

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে অভ্যুত্থানের খবর প্রকাশ করছে সশস্ত্র সেনারা : ইন্টারনেট -

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর সেনারা দেশটির সামরিক সরকারের প্রেসিডেন্ট পল-হেনরি দামিবাকে উৎখাত করেছে বলে জানিয়েছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় রাতে খাকি পোশাক ও মাস্ক পরিহিত সশস্ত্র সেনারা রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনে হাজির হয়ে প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করার বিষয়টি নিশ্চিত করে। এ নিয়ে চলতি বছর বুরকিনা ফাসোতে দ্বিতীয় অভ্যুত্থানের ঘটনা ঘটল।
শুক্রবার দিনের শুরুটা হয়েছিল রাজধানী ওগাদুগুর একটি সামরিক ক্যাম্পে গোলাগুলি দিয়ে আর টেলিভিশনে আসা ঘোষণার মধ্যে দিনটি শেষ হয়। এ দিন প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের কাছে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে, রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনের অনুষ্ঠান একাধিকবার বিঘ্নিত হয়েছে।
দুই বছর ধরে পশ্চিম ও মধ্য আফ্রিকার দেশগুলোতে অভ্যুত্থান নিয়মিত ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাহেল অঞ্চলে কথিত ইসলামপন্থী বিদ্রোহীদের প্রবল উপস্থিত, হাজার হাজার মানুষ হত্যা ও উগ্রবাদীদের পরাজিত করার পথ বের করতে না পারা দুর্বল সরকারগুলোর ওপর মানুষের আস্থাহীনতার সুযোগ নিচ্ছে অভ্যুত্থানকারীরা।
মালি, শাদ ও গিনি ২০২০ সাল থেকেই একের পর অভ্যুত্থান দেখে যাচ্ছে। এক দশক ধরে গণতান্ত্রিক পথে অঞ্চলটির খানিকটা অগ্রগতি হলেও সেখান থেকে পিছু হটে দেশগুলো সামরিক শাসনে পতিত হতে পারে, এমন আশঙ্কা বাড়ছে। বুরকিনা ফাসোর নতুন নেতা হচ্ছেন সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন ইব্রাহিম ত্রাওরে।
চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি অভ্যুত্থানের পর দামিবা যেভাবে হাজির হয়েছিলেন, সে রকম করেই ত্রাওরেও সৈন্য পরিবেষ্টিত হয়ে টেলিভিশনে হাজির হন এবং সরকার বিলুপ্ত ও সংবিধান স্থগিত করে, সীমান্ত বন্ধ রাখার ও রাত্রিকালীন কারফিউ জারির ঘোষণা দেন।


আরো সংবাদ


premium cement