০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
`

আঞ্চলিক শান্তি নিশ্চিতে তুরস্ক গ্রিস দ্বন্দ্ব নিরসন চায় যুক্তরাষ্ট্র

এজিয়ান দ্বীপপুঞ্জে সামরিক স্থাপনা মোতায়েন নিয়ে বিরোধ
-

থামার নাম নেই তুরস্ক-গ্রিস দ্বন্দ্ব। এই দ্বন্দ্বের সমাপ্তি চায় যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির পররাষ্ট্র দফতরের পক্ষ থেকে আঞ্চলিক শান্তি নিশ্চিত করতে দুই দেশকে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে বিরোধপূর্ণ দ্বীপগুলোতে সামরিক স্থাপনা ও অস্ত্র মোতায়েন করেছে এথেন্স, তুরস্ক কর্তৃক প্রকাশিত ভিডিওতে এমনটা দেখা যাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের এই আহ্বান এলো।
মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এখন ন্যাটো দেশগুলোর মধ্যে বিরোধ সৃষ্টির সময় নয়। এমন কোনো কাজ বা বিবৃতি দেয়া যাবে না, যার ফলে ন্যাটোর দেশগুলোতে মতবিরোধ সৃষ্টি হয়। পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেন, আমরা ন্যাটো জোটের সদস্য দেশগুলোকে উৎসাহ দিতে চাই, তারা যেন একে অপরের বিরুদ্ধে না লাগে। আমরা যেকোনো মতবিরোধ সুষ্ঠু কূটনৈতিক পন্থায় সমাধান করতে চাই। আমাদের এখন চিন্তা করা উচিত, কারা আমাদের জোটের জন্য হুমকি। রাশিয়া অবশ্যই ন্যাটোর জন্য হুমকি বলে তিনি মনে করেন।
তুর্কি ড্রোন সম্প্রতি রেকর্ড করেছে, মিডিলি ও সিসাম দ্বীপে সামরিক যান মোতায়েন করেছে গ্রিস। আঙ্কারা এটাকে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন বলে মনে করে। গত রোববার ওই ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে। গত সোমবার তুরস্ক গ্রিসের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে। তুরস্কের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এজিয়ান দ্বীপপুঞ্জে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন বন্ধ করুন। অঞ্চলটির অসামরিক মর্যাদা ফিরিয়ে দিন। তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দূত তলবের এই তথ্য জানিয়েছে।
তুর্কি মন্ত্রণালয়ের বিবৃবিতে বলা হয়েছে, দ্বীপপুঞ্জে সামরিক যান মোতায়েন ১৯২৩ সালের লুসান চুক্তি ও ১৯৪৭ সালের প্যারিস চুক্তির লঙ্ঘন। দুই চুক্তিতেই বলা হয়েছে, দ্বীপগুলোতে সামারিক স্থাপনা ও অস্ত্র মোতায়েন নিষিদ্ধ। কিন্তু গ্রিস চুক্তির বিধি লঙ্ঘন করেই যাচ্ছে। এর আগে ভূমধ্যসাগরে তুর্কি যুদ্ধবিমানকে হয়রানি করে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয় গ্রিস। অবশ্য গ্রিস তুরস্কের এই অভিযোগকে অস্বীকার করেছে। তুরস্ক এ নিয়ে ন্যাটোর কাছে নালিশও করে। কিন্তু কোনো সদুত্তর পায়নি। অবশেষে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর জানালো, আঞ্চলিক শান্তি রক্ষায় নিজেদের মধ্যে ঐক্য বজায় রাখার এখনই সময়। এজন্য তুরস্ক-গ্রিসকে একসাথে কাজ করতে হবে।


আরো সংবাদ


premium cement
রুশ হামলায় বিধ্বস্ত পাওয়ার গ্রিড পুনরুদ্ধারের চেষ্টা ইউক্রেনের সমাবেশের স্থান নিয়ে সাংবাদিকদের যা বললেন এ্যানি সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাস বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৪ জন দগ্ধ, হাসপাতালে গৃহবধূর মৃত্যু বিদেশী বিনিয়োগের আদর্শ জায়গা বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী হবিগঞ্জে আগুনে পুড়ে পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু বরগুনায় জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ও যুগ্ম সম্পাদককে গ্রেফতার কুমিল্লায় ট্রেনের ধাক্কায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত মিরসরাইয়ে বাসের ধাক্কায় নিহত ১ নতুন বছরের ‘শুরুতেই’ দ্বিতীয় মেয়াদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বাইডেন হারের পর জরিমানাও গুণতে হলো ভারতকে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর ছাত্রলীগের সম্মেলন শুরু

সকল