১৩ মে ২০২১
`

ভারতে কুরআনের আয়াত নিয়ে রিট খারিজ

অহেতুক মামলার দায়ে আবেদনকারীকে ৫০ হাজার রুপি জরিমানা
-

সম্প্রতি ভারতের একটি আদালতে পবিত্র কুরআন শরীফ থেকে কিছু আয়াত অপসারণ চেয়ে রিট দায়ের করেছিলেন দেশটির উত্তরপ্রদেশের শিয়া ওয়াক্ফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ ওয়াসিম রিজভী। তার সেই রিট আবেদন বাতিল করে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল সোমবার বিচারপতি আর এফ নরিমনের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ রিট বাতিলের আদেশ দেন।
লাইভ ল নিউজ নেটওয়ার্কের খবরে বলা হয়েছে, এ দিন আদালতে রিট আবেদনটিকে ‘বাজে’ বলে আখ্যায়িত করেছেন বিচারক। একই সাথে পিটিশন দাখিল করার ব্যয় হিসেবে আবেদনকারীকে ৫০ হাজার রুপি ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেন আদালত। রিট আবেদনে বলা হয়েছে, পবিত্র কুরআন শরীফের কিছু আয়াতের কারণে ইসলাম ধর্ম ধীরে ধীরে তার মূল শিক্ষাগুলো থেকে দূরে সরে যাচ্ছে, যা আজকাল সহিংস আচরণ, জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ, চরমপন্থা ও সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে চিহ্নিত হচ্ছে। তাই আয়াতগুলো অপসারণের আবেদন জানাচ্ছি। রিট আবেদনে আয়াত নাম্বারগুলোর কথাও উল্লেখ করা হয়।
সুপ্রিম কোর্টে সোমবার প্রথম দিনের শুনানিতেই তিনজন বিচারপতির বেঞ্চ আবেদনটিকে ‘পুরোপুরি ভিত্তিহীন’ বলে নাকচ করে দিয়েছেন। বেঞ্চের নেতৃত্বে ছিলেন জাস্টিস রোহিংটন নরিম্যান, তিনি এমনও প্রশ্ন তোলেন, ‘আবেদনকারী কি এই পিটিশন নিয়ে সত্যিই সিরিয়াস? আমরা তো বিশ্বাসই করতে পারছি না!’
অর্থহীন বিষয় নিয়ে মামলা রুজু করে আদালতের সময় নষ্ট করার জন্য আবেদনকারীর আর্থিক জরিমানা করারও সিদ্ধান্ত নেয় শীর্ষ আদালত। তবে সুপ্রিম কোর্টে এই মামলার শুনানির আগেই ভারতের নানা মহলে সৈয়দ ওয়াসিম রিজভির পদক্ষেপের বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছিল।
অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদ দরিয়াবাদী বিবৃতি দিয়ে বলেছিলেন, ‘পবিত্র কুরআনের কোনো আয়াত মানুষকে সহিংসতায় প্ররোচিত করে বলে আমরা বিশ্বাস করি না।’ অল ইন্ডিয়া শিয়া পার্সোনাল ল বোর্ড এবং আরো নানা মুসলিম সংগঠনের পক্ষ থেকেও অভিযোগ আনা হয়েছিল, সৈয়দ ওয়াসিম রিজভি ‘সম্পূর্ণ প্রসঙ্গ-বহির্ভূতভাবে কুরআনের অপব্যাখ্যা’ করার চেষ্টা চালাচ্ছেন।
ভারতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিঘিœত করার অভিযোগে রিজভিকে নোটিশ পাঠিয়েছিল দেশের জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশনও। দক্ষিণ ভারতের আর্কটের নবাব মহম্মদ আবদুল আলিও বিবৃতি দিয়ে বলেছিলেন, ভারতের সুপ্রিম কোর্ট যদি এই আবেদনটি শুনানির জন্য গ্রহণ করে তাহলে সেটা হবে নাগরিকদের ধর্মীয় স্বাধীনতার লঙ্ঘন। শুধু ভারতে নয়, প্রতিবেশী বাংলাদেশেও খেলাফত মজলিসসহ বিভিন্ন ইসলামপন্থী সংগঠন কুরআনের আয়াত নিষিদ্ধ করার দাবিকে ‘আল্লাহর সাথে চরম ধৃষ্টতার শামিল’ বলে বর্ণনা করেছিল। তবে সোমবার সুপ্রিম কোর্টে মামলাটি অঙ্কুরেই বিনষ্ট হওয়ার পর এই বিতর্কের অবসান হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।
সোমবারের শুনানিতে আবেদনকারীর পক্ষে সিনিয়র আইনজীবী আর কে রাইজাদা অবশ্য যুক্তি দিয়েছিলেন, মাদরাসা শিক্ষাকে একটা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আনার সীমিত লক্ষ্য নিয়েই এই পিটিশন দাখিল করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমার সাবমিশন হলো, এই বিশেষ আয়াতগুলো বিধর্মী বা কাফিরদের বিরুদ্ধে সহিংসতার হয়ে সওয়াল করে।’ ‘খুব অল্প বয়স থেকে যে শিশুদের মাদরাসায় থেকে পড়াশোনা করতে হয়, তাদের এগুলো শিখিয়ে মগজধোলাই করা হয়Ñ যা কখনোই কাম্য নয়’। সুপ্রিম কোর্টের তিন সদস্যের বেঞ্চ অবশ্য এর পরও পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, তারা এ বিষয়টি নিয়ে কোনো তর্কবিতর্ক শুনতেও আগ্রহী নয়।

 



আরো সংবাদ


ইসরাইলি আরবরা নিজ দেশে যেভাবে বৈষম্যের শিকার ইসরাইলের পক্ষে দাঁড়াল ভারত, জাতিসঙ্ঘে ফিলিস্তিনের ‘বিশেষ নিন্দা’ কোভিডে একের পর এক অধ্যাপকের মৃত্যু, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে আতঙ্ক কোম্পানীগঞ্জে বাদলের অনুসারীদের লক্ষ্য করে মির্জা অনুসারীদের গুলি, পালাতে গিয়ে আহত ৫ হাজারতম ম্যাচে হারলেন সেরেনা নিখোঁজ অমিত শাহ’র খোঁজে দিল্লি পুলিশের কাছে মিসিং ডায়েরি মাগুরায় ২ মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১ বাউফলে গভীর নলকূপ স্থাপন ও দুস্থদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন ড. মাসুদ ইসরাইলি সন্ত্রাস বন্ধে পদক্ষেপ নিতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি বাবুনগরীর আহ্বান এবারের মতো ক্ষতির শিকার ইসরাইল আর কখনো হয়নি : হামাস ঈদ উদযাপন যাতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধির উপলক্ষ না হয়ে উঠে : প্রধানমন্ত্রী

সকল