১২ এপ্রিল ২০২১
`

লন্ডনস্থ দূতাবাস দখলে নিলো মিয়ানমার জান্তা

নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে আরো ১১ বিক্ষোভকারী নিহত # জনপ্রিয় অভিনেতা পাইং তাখন গ্রেফতার
-

ব্রিটেনে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত বুধবার বলেছেন, ইয়াঙ্গুন সামরিক সংশ্লিষ্ট এক ব্যক্তি লন্ডনের দূতাবাস জোরপূর্বক দখল করেছেন এবং তাকে এ ভবনে প্রবেশের ব্যাপারে নিষেধ করে দিয়েছেন। লন্ডনে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত কেয়াও জোয়ার মিন জানিয়েছেন, কর্মীদের ভবন ছেড়ে চলে যেতে বলেছেন মিয়ানমারের সামরিক অ্যাটাশে এবং তিনি আর দেশটির প্রতিনিধি নন বল তাকে জানানো হয়েছে।
বুধবার লন্ডনের কেন্দ্রস্থলে দূতাবাসটির বাইরে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে তিনি বলেছেন, ‘আমাকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।’ রয়টার্সকে কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, জোয়ার মিনের ডেপুটি মিয়ানমারের সামরিক জান্তার পক্ষ হয়ে নিজেই দায়িত্ব তুলে নিয়েছেন আর মিনকে ভবনটিতে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।
গত ১ ফেব্রুয়ারি এক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। তারপর থেকে শক্তিপ্রয়োগ করে গণতন্ত্রপন্থী প্রতিবাদকারীদের দমন করার চেষ্টা করছে তারা। সম্প্রতি লন্ডনে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত মিন ক্ষমতাসীন সামরিক জান্তার সাথে সম্পর্কচ্ছেদ করেন এবং কারাবন্দী বেসামরিক নেত্রী অং সান সু চির মুক্তি দাবি করেন। পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিটেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে কথা বলছেন জানিয়ে মিন বলেন, ‘এটা এক ধরনের অভ্যুত্থান, লন্ডনের মাঝখানে। আপনারা দেখতে পাচ্ছেন তারা আমার ভবন দখল করে আছে।’
ঘটনা সম্পর্কে জানানো এমন চার জন কূটনৈতিক সূত্র জানায়, উপরাষ্ট্রদূত চিট উয়িন শার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন আর তিনি ও সামরিক অ্যাটাশে রাষ্ট্রদূতকে ভবনটিতে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন না। দূতাবাসের বাইরে রাস্তায় জড়ো হওয়া প্রতিবাদকারীদের উদ্দেশ্যেও বক্তব্য রাখেন তিনি।
গত মাসে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত কেয়াও জোয়ার মিন সু চি ও ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট উয়িন মিন্টকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন, তার এই ‘সাহসিকতার’ প্রশংসা করেছিলেন ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব। ব্রিটেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মিয়ানমারের লন্ডন দূতাবাসের এ ঘটনার বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি।
১১ বিক্ষোভকারী নিহত : এ দিকে গতকাল বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা বাহিনী আরো ১১ জন অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভকারীকে গুলি করে হত্যা করেছে। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের তেইজ শহরে নিরাপত্তা বাহিনী ছয় ট্রাকভর্তি সেনা সদস্য নিয়ে অভিযান শুরু করে। তখন বিক্ষোভকারীরা শিকারি বন্দুক, ছুরি ও পেট্রলবোমা নিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করে। এ সময় সেনাসদস্যদের আরো পাঁচটি ট্রাক ঘটনাস্থলে এসে হাজির হয়। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত সংঘর্ষ চলে। দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলিতে অন্তত ১১ জন বিক্ষোভকারী নিহত ও আরো ২০ জন আহত হন। সংঘর্ষে কোনো সেনাসদস্যের হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।
জনপ্রিয় অভিনেতা গ্রেফতার : মিয়ানমারের জনপ্রিয় অভিনেতা পাইং তাখনকে গ্রেফতার করেছে জান্তা সরকার। দেশটিতে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে তিনি সশরীরে ও অনলাইনে সক্রিয় ছিলেন। এ দিকে অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে কথা বলায় প্রায় ১০০ চলচ্চিত্র পরিচালক, অভিনেতা, সেলিব্রেটি ও সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।
দেশটিতে গণতন্ত্রপন্থীদের বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর ধরপাকড় থেকে রেহাই পাচ্ছেন না শিল্পী ও অভিনয় জগতের লোকজনও।
তার মোবাইল ফোনও জব্দ করেছে সেনাবাহিনী। পাইং তাখনের বোন থি থি লুইনের ফেসবুক পোস্ট থেকে জানা গেছে, গতকাল বুধবার আটটি সামরিক ট্রাকযোগে অর্ধশতাধিক সেনা তাকে গ্রেফতার করতে আসে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তার এক ঘনিষ্ঠজন জানান, ইয়াঙ্গুনের শহরতলি নর্থ ডাগোনে তার মায়ের বাড়ি থেকে এই অভিনেতাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।



আরো সংবাদ