১৯ এপ্রিল ২০২১
`

পরমাণু চুক্তি নিয়ে সুর নরম ইরানের

-

পরমাণু চুক্তি নিয়ে ইরানের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের চলমান বিতর্কে আশার আলো দেখা গেছে। জাতিসঙ্ঘের পারমাণবিক পর্যবেক্ষক সংগঠন জানিয়েছে, এতদিন আগ্রহ না দেখালেও চুক্তির বেশ কিছু বিষয় নিয়ে অবশেষে আলোচনায় বসতে রাজি হয়েছে তেহরান। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে এই ইস্যুতে দেশটি কোনো রকম আলোচনায় অংশ নিতে চাচ্ছিল না।
বৃহস্পতিবার ভিয়েনায় আন্তর্জাতিক আণুবিক শক্তি সংস্থার (আইএইএ) ডিরেক্টর জেনারেল রাফায়েল গ্রোসি সাংবাদিকদের জানান, ইরান তাদেরকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। ইরানের একাধিক অঞ্চলে ইউরেনিয়ামের মজুত আছে বলে দীর্ঘ দিন ধরেই অভিযোগ করে আসছে আইএইএ। গত কয়েক মাসে তা আরো বাড়ানো হয়েছে বলেও অভিযোগ সংস্থাটির। কিন্তু এরপরও আইএইএ’র কোনো কর্মকর্তাকে ইরানে ঢুকতে এবং বিতর্কিত ওই অঞ্চলগুলোতে পরিদর্শনে যেতে দেয়া হবে না বলে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেয় তেহরান। তবে বৃহস্পতিবার গ্রোসি জানিয়েছেন, ইরান এ বিষয়ে আলোচনার আশ্বাস দিয়েছে।
ইরানের সিদ্ধান্তের পেছনে জার্মানি, ফ্রান্স এবং ব্রিটেনের হাত আছে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ, এই সপ্তাহেই জাতিসঙ্ঘে ইরানের বিরুদ্ধে একটি নিন্দা প্রস্তাব জমা দেয়ার কথা ছিল এই তিনটি দেশের। কিন্তু আপাতত তা স্থগিত করা হয়েছে। তারপরেই সুর নরম করল তেহরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তারা আলোচনার বিষয়ে আশাবাদী।
অবশ্য গত কিছুদিন ধরে আলোচনার রাস্তা সম্পূর্ণ বন্ধ করে পরমাণু চুক্তি ইস্যুতে কঠোর অবস্থানে ছিল ইরান। তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা না তুললে পরমাণু চুক্তি নিয়ে কোনোরকম আলোচনায় বসবে না বলেও দাবি করে আসছিল দেশটি। এর পাশাপাশি ইউরেনিয়ামের মজুত অনেকগুণ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় ইরানি পার্লামেন্ট। পাশাপাশি দেশের পরমাণু কেন্দ্রগুলোতে আইএইএ’র বিশেষজ্ঞদের নজরদারিও বন্ধ করে দেয় দেশটি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে নিন্দাপ্রস্তাব গ্রহণ করার কথা ছিল জার্মানি, ফ্রান্স এবং ব্রিটেনের।



আরো সংবাদ