০২ ডিসেম্বর ২০২০

থাই প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগে জনতার আলটিমেটাম

জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার
-

সরকার ও রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে কয়েক মাস ধরে চলা বিক্ষোভ বন্ধে গত সপ্তাহে দেয়া জরুরি ডিক্রিটি প্রত্যাহার করে নিয়েছে থাইল্যান্ডের কর্তৃপক্ষ। তবে বিক্ষোভকারীরা প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথকে তিন দিনের মধ্যে পদত্যাগের সময় বেঁধে দিয়েছে। বিক্ষোভ ও সংবাদ প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া ‘যথেষ্ট নয়’ বলেও জানিয়েছে তারা।
ওই ডিক্রিতে জারি করা নিষেধাজ্ঞা দেশটির বাসিন্দাদের ক্ষোভ আরো উসকে দিয়েছিল; রাজধানী ব্যাংককের সড়কগুলোতে টেনে এনেছিল লাখ লাখ মানুষকে। রাজনৈতিক সমাবেশে পাঁচজন বা তার বেশি জমায়েত এবং নিরাপত্তায় প্রভাব ফেলতে পারে এমন খবর প্রকাশে নিষেধাজ্ঞাসহ যেসব ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল বৃহস্পতিবার রাজকীয় গেজেটে প্রকাশিত এক সরকারি বিবৃতিতে রাত ১২টা থেকে সেগুলোর ইতি টানার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘মারাত্মক পরিস্থিতির ঘোষণা যে কারণে দেয়া হয়েছিল তা খানিকটা হ্রাস পেয়েছে এবং এমন অবস্থায় পৌঁছেছে যেখানে সরকারি কর্মকর্তা ও রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলো নিয়মিত আইনগুলো কার্যকর করতে পারবে’। গত সপ্তাহে নিষেধাজ্ঞা জারির পেছনে রানী সুথিদার গাড়িবহর বিক্ষোভকারীদের তোপের মুখে পড়ার ঘটনাটিকে উল্লেখ করা হলেও মূলত কয়েক বছরের মধ্যে রাজা মাহা ভাজিরালংকর্ন ও প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচার জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে আবির্ভূত হওয়া বিক্ষোভ দমাতেই এটি দেয়া হয়েছিল বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।
বিক্ষোভকারীরা প্রায়ুথকে তিন দিনের মধ্যে পদত্যাগের সময় বেঁধে দিয়েছে। বিক্ষোভ ও সংবাদ প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া ‘যথেষ্ট নয়’ বলেও জানিয়েছে তারা। বিক্ষোভকারীদের অন্যতম নেতা সিরাউইথ ‘যা নিউ’ সেরিতিওয়াত বলেছেন, ‘জনগণের দাবি উপেক্ষা করে তিনি (প্রায়ুথ) এখনও ক্ষমতায় থেকে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। জরুরি ডিক্রি জারি করা তো উচিতই হয়নি’। থাইল্যান্ডের সরকার বিক্ষোভ দমনের চেষ্টার অংশ হিসেবে সম্প্রতি কয়েক ডজন আন্দোলনকারীকে গ্রেফতার করেছিল। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেয়া সুপরিচিত কয়েকজনও ছিলেন।
আন্দোলনকারীদের অন্যতম নেতা পাতসারাভালি মাইন্ড থানাকিতভিবুলপনকে বুধবার গ্রেফতার করা হয়েছিল; বৃহস্পতিবার তিনি ছাড়া পেয়েছেন। ২৫ বছর বয়সী এ তরুণী জানান, তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছিল আদালত সেগুলোকে গুরুতর মনে করেনি, এ ছাড়া তার ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নেয়াও জরুরি ছিল। যে কারণে সহজেই জামিন মিলেছে তার।

 


আরো সংবাদ